প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য বাড়াতে স্পেনের সঙ্গে চুক্তিতে আগ্রহী এফবিসিসিআই

শেয়ার বিজ ডেস্ক: বাংলাদেশে বাণিজ্য বাড়ানোর সম্ভাবনা থাকলেও হাতে গোনা মাত্র কয়েকটি স্প্যানিশ কোম্পানি বাংলাদেশে ব্যবসা করছে। এ পরিমাণকে আরও বাড়ানো সম্ভব। সেজন্য স্পেনের উদ্যোক্তাদের কাছে বাংলাদেশকে পরিচিত করে তুলতে হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিনের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে এ মন্তব্য করেন বাংলাদেশে নিযুক্ত স্পেনের রাষ্ট্রদূত ফ্রান্সিসকো ডি আসিস বেনিতেজ সালাস।

রাষ্ট্রদূত জানান, বাণিজ্যিক সম্পর্ক জোরদারের লক্ষ্যে ২০১৮ সালে কমার্শিয়াল উইং চালু করা হয়। স্পেনের রাষ্ট্রদূত আরও জানান, ইনডিটেক্স ও জারাসহ অল্প কয়েকটি প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশে ব্যবসা করছে। কিন্তু কৃষি ও খাদ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ, মেশিন প্রস্তুতসহ বেশ কয়েকটি খাতে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় বহু স্প্যানিশ প্রতিষ্ঠান রয়েছে। কিন্তু তাদের অনেকেরই বাংলাদেশ সম্পর্কে সঠিক ধারণা নেই। তাই দুদেশের বাণিজ্যিক সম্পর্কের সম্ভাবনা কাজে লাগানো যাচ্ছে না।

এফবিসিসিআই সভাপতি জসিম উদ্দিন বলেন, বাণিজ্যিক সম্পর্ক জোরদার করতে হলে দুদেশের ব্যবসায়ীদের মধ্যে সম্পর্কের উন্নয়ন জরুরি। এজন্য স্পেনের ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠনের সঙ্গে এফবিসিসিআই’র এমওইউ হলে ব্যবসায়িক তথ্য আদান-প্রদান করা সহজ হবে।

এমন প্রস্তাবে একমত হন রাষ্ট্রদূত ফ্রান্সিসকো ডি আসিস বেনিতেজ সালাস। শিগগিরই স্পেন দূতাবাসের কাছে সমঝোতা স্মারকের খসড়া কপি পাঠানো হবে বলে জানান এফবিসিসিআই সভাপতি। তিনি বলেন, শুধু রপ্তানি নয়, বিশাল অভ্যন্তরীণ বাজারের জন্যও বাংলাদেশ বিদেশি বিনিয়োগকারীদের জন্য আকর্ষণীয় গন্তব্য।

দেশজুড়ে ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার জন্য তথ্য জানিয়ে এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, চীন, জাপান, কোরিয়া ও ভারতের মতো স্পেন এককভাবে অর্থনৈতিক অঞ্চলে শিল্প স্থাপন করতে পারে।

অনুষ্ঠানে এফবিসিসিআই’র সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু দুদেশের ব্যবসায়ীদের যৌথ মালিকানায় সিরামিক ও টাইলস খাতে বিনিয়োগের সম্ভাবনার কথা তুলে ধরেন।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন এফবিসিসিআই’র সহসভাপতি এমএ মোমেন ও মো. হাবীব উল্লাহ ডন, পরিচালক মোহাম্মাদ রিয়াদ আলী এবং প্রধান নির্বাহী মোহাম্মদ মাহফুজুল হক।