প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

ধান কাটার যন্ত্র কম্বাইন হারভেস্টার উদ্ভাবন করেছে ব্রি

শেয়ার বিজ ডেস্ক: দেশের জমিতে ব্যবহারের উপযোগী ধান কাটার যন্ত্র কম্বাইন্ড হারভেস্টার উদ্ভাবন করেছেন বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের (ব্রি) বিজ্ঞানীরা। যন্ত্রটি দামেও কম পড়বে। গতকাল গাজীপুরে ব্রির চত্বরে কম্বাইন্ড হারভেস্টারটির কার্যক্রম পরিদর্শন করেন কৃষিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক। পরিদর্শনকালে তিনি বলেন, ব্রির বিজ্ঞানীরা নিজেরা গবেষণা করে ধান কাটার মেশিনটি উদ্ভাবন করেছেন। এটি একটি অসাধারণ সাফল্য। খবর: বাসস।

এ সময় কৃষি মন্ত্রণালয়ের বিদায়ী জ্যেষ্ঠ সচিব মো. মেসবাহুল ইসলাম, সদ্য যোগদানকারী সচিব মো. সায়েদুল ইসলাম, ব্রির মহাপরিচালক শাহজাহান কবীর, মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও সংস্থাপ্রধানরা উপস্থিত ছিলেন।

কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধি ও কৃষিকে লাভজনক করতে কম্বাইন্ড হারভেস্টারটি অনন্য ভূমিকা রাখবে বলে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, বিদেশের ইয়ানমারসহ বিভিন্ন কম্বাইন্ড হারভেস্টারের দাম ২৫-৩০ লাখ টাকা, আর এটির খরচ পড়বে ১২-১৩ লাখ টাকা।

ব্রির বিজ্ঞানীরা জানান, তাদের উদ্ভাবিত বি হোল ফিড কম্বাইন্ড হারভেস্টারের ইঞ্জিনটি বিদেশ থেকে আনা। অন্যান্য যন্ত্রপাতি স্থানীয়ভাবে তৈরি। এর ইঞ্জিনের ক্ষমতা ৮৭ হর্স পাওয়ার। ঘণ্টায় মেশিনটি তিন-চার বিঘা জমির ধান কর্তন করতে পারে। জ্বালানি খরচ হয় ঘণ্টায় সাড়ে তিন থেকে চার লিটার। হারভেস্টিং লস শতকরা এক ভাগের কম। পরে কৃষিমন্ত্রী ব্রির চত্বরে ব্রির শ্রমিকদের জন্য নির্মিত পাঁচতলা নতুন আবাসিক ভবন ‘ব্রি শ্রমিক কলোনী ভবন’ উদ্বোধন করেন।

কৃষিমন্ত্রী এ সময় বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের শ্রমিক-মজুরদের দুঃখ-কষ্ট হƒদয় দিয়ে অনুভব করেন। তাই মুজিব শতবর্ষের উপহার হিসেবে শ্রমজীবী মানুষের আবাসনের জন্য নানা উদ্যোগ গ্রহণ করেন। ব্রির নবনির্মিত শ্রমিক কলোনি ভবন এর একটি বাস্তব উদাহরণ।’

একই দিন দুপুরে মন্ত্রী ব্রির প্রাঙ্গণে কৃষি মন্ত্রণালয় আয়োজিত মন্ত্রণালয়ের বার্ষিক পুনর্মিলনীতে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন। সভায় বিদায়ী জ্যেষ্ঠ সচিব মো. মেসবাহুল ইসলাম ও সদ্য যোগদানকারী সচিব মো. সায়েদুল ইসলামকে সংবর্ধনা দেয়া হয়।

পুনর্মিলনীতে মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. মো. আবদুর রৌফ, হাসানুজ্জামান কল্লোল, ওয়াহিদা আক্তার, বলাই কৃষ্ণ হাজরা, আব্দুল্লাহ সাজ্জাদ, মো. রেজাউল করিমসহ সর্বস্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও সংস্থাপ্রধানরা উপস্থিত ছিলেন।