দিনের খবর সারা বাংলা

নরসিংদীতে তীব্র পানি সংকট দুর্ভোগে শহরবাসী

শরীফ ইকবাল রাসেল, নরসিংদী: নরসিংদীতে ভূ-গর্ভস্থ পানির স্তর নিচে নেমে যাওয়ায় গ্রীষ্মকালের শুরু থেকেই শহরাঞ্চলের বেশিরভাগ বাসাবাড়ির সেচ পাম্প ও নলকূপ দিয়ে উঠছে না পানি। কোথাও কোথাও গভীর নলকূপেও তোলা যাচ্ছে না প্রয়োজনীয় পানি। তীব্র দাবদাহে এ অবস্থা আরও প্রকট হওয়ায় দেখা দিয়েছে তীব্র পানি সংকট। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন শহরের বাসিন্দারা। পরিবেশগত নানা কারণে ভূ-গর্ভস্থ পানির স্তর নিচে নেমে যাওয়ায় এ সমস্যা দেখা দিয়েছে বলে জানিয়েছে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর।

নরসিংদী জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর সূত্র ও স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, নরসিংদীতে পানির স্তর গড়ে ২২ থেকে ২৮ ফুট গভীরে। গ্রীষ্মকালে এ স্তর থাকে ২৮ থেকে ৩৫ ফুট গভীরে। বেশিরভাগ এলাকায় পানির সাধারণ এ স্তরের গভীরে পৌঁছালে পানির স্তর পাওয়া যেত। প্রায় এক যুগ ধরে পরিবেশগত নানা কারণে জেলার বেশিরভাগ এলাকা বিশেষ করে জেলা শহর ও শিল্পাঞ্চলে পানির স্তর অস্বাভাবিক নিচে নেমে গেছে। প্রতিবছর দাবদাহ তীব্র হওয়ার সময়টাতে জানুয়ারি থেকে মে পর্যন্ত এ অবস্থা আরও প্রকট হয়। প্রতি বছরের মতো এবারও জেলার বেশিরভাগ এলাকার অগভীর (৬১ মিটার পর্যন্ত) নলকূপে পানি ওঠা পুরোপুরি বন্ধ হয়ে গেছে। বিশেষ করে নরসিংদী পৌরশহর, শিল্পশহর মাধবদী, পাঁচদোনা, পলাশ উপজেলার কিছু অংশ ও আশপাশের এলাকায় পানি সংকট চরমে পৌঁছেছে। খাবারের জন্য সুপেয় পানির সংকট হওয়ায় চরম দুর্ভোগে স্থানীয়রা।

ভুক্তভোগী জনসাধারণ জানান, শুধু অগভীর নলকূপে (৬১ মিটার পর্যন্ত) নয়, শহর এলাকায় গভীর নলকূপেও (৬১ মিটারের অধিক) পানি উঠছে না। ১৫০ থেকে ২০০ ফুট গভীরে গিয়েও পানি পাওয়া যাচ্ছে না। এতে দাবদাহ বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে পানি সংকট বাড়ছে। আশপাশ এলাকা থেকে পানি সংগ্রহ করে জীবনযাপন করছে অনেক পরিবার। বাধ্য হয়ে অনেকে প্রয়োজনীয় কাজে ব্যবহার করছেন পুকুর কিংবা নদীনালার পানি। নিরাপদ পানির সুব্যবস্থা করা না গেলে অদূর ভবিষ্যতে পানি সংকট আরও প্রকট হবে বলে আশঙ্কা স্থানীয় বাসিন্দাদের।

শহরের ব্যাংক কলোনির বাসিন্দা মাসুদ পারভেজ বলেন, ‘চার তলাবিশিষ্ট একটি ভবন তৈরি করে কয়েক বছর ধরে ভাড়া দিয়েছি, নিজেরাও থাকি। এখন পানির সংকটে ভাড়াটিয়ারা থাকতে চাচ্ছেন না। আর আমরা তো কষ্ট করছিই।’

জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর নরসিংদীর নির্বাহী প্রকৌশলী সরদার সামসুল ইসলাম জানান, নরসিংদী শিল্পাঞ্চল হওয়ায় ভূ-গর্ভস্থ পানির অতিরিক্ত উত্তোলন হয়। এ সমস্যা সমাধানের জন্য হস্তচালিত টিউবওয়েলের পরিবর্তে গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় জনপ্রতিনিধিদের দেয়া তালিকা অনুযায়ী, গভীর নলকূপ সাব-মার্সিবল পাম্প স্থাপন করা হচ্ছে। কয়েক মাস এ সমস্যা চলমান থাকলেও বৃষ্টিপাত হলে এ সমস্যা দূর হয়ে যাবে। এছাড়া প্রাকৃতিক উৎস থেকে পানি ব্যবহার করে পানির সমস্যা দূরীকরণের দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা প্রয়োজন বলেও জানান তিনি।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..