বিশ্ব সংবাদ

নাইজেরিয়ায় ৪৩ কৃষককে গলা কেটে হত্যা

শেয়ার বিজ ডেস্ক : নাইজেরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় বর্নো রাজ্যের একটি কৃষি খামারে হামলা চালিয়ে অন্তত ৪৩ জনকে গলাকেটে হত্যা করেছে বোকো হারাম। গত শনিবার সকালে জেরে এলাকার কওয়াশেবে জামারমারিতে এই নৃশংস হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। হামলার সময় খামারের কর্মীরা ধান কাটার কাজে ব্যস্ত ছিলেন। হামলাকারীদের খোঁজে কর্তৃপক্ষ অভিযান শুরু করেছে। খবর: রয়টার্স ও এএফপি।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, কৃষকদের সবাইকেই বেঁধে গলাকেটে হত্যা করা হয়। স্থানীয় একটি সশস্ত্র গোষ্ঠীর নেতা বাবাকুরা কোলো বলেন, আমরা ৪৩টি মরদেহ পেয়েছি। সবাইকে গলাকেটে হত্যা করা হয়েছে। আরও ছয়জনকে গুরুতর আহত অবস্থায় পাওয়া গেছে।

অপর এক মিলিশিয়া ইব্রাহিম লিমান জানান, নিহত এসব শ্রমিক প্রায় এক হাজার কিলোমিটার দূরের সোকাতো রাজ্য থেকে কাজের খোঁজে উত্তর-পূর্বাঞ্চলে আসেন। এ ধরনের ৬০ জনকে ধানের জমির কাজে নিযুক্ত করা হয়। এর মধ্যে ৪৩ জনকে গলাকেটে হত্যা করা হয়েছে। ছয়জন আহত হয়েছেন। বাকি আটজন নিখোঁজ রয়েছেন। মনে করা হচ্ছে, তাদের অপহরণ করা হয়েছে।

বোকো হারাম ও ইসলামিক স্টেট ওয়েস্ট আফ্রিকা প্রভিন্স বা আইএসডব্লিওএপি প্রতিদ্বন্দ্বী গ্রুপ। সেনাবাহিনী ও স্থানীয় মিলিশিয়াদের কাছে তথ্য পাচার ও গুপ্তচরবৃত্তির কাজে নিয়োজিত রয়েছে এমন সন্দেহে বোকো হারাম রাখাল, কৃষক ও শ্রমিকজাতীয় লোকজনকে টার্গেট করে তাদের হত্যা করে। গত মাসেও পৃথক দুটি ঘটনায় বোকো হারাম জমিতে সেচ দেওয়ার কাজে নিয়োজিত ২২ কৃষিশ্রমিককে হত্যা করেছে।

এ দুই জঙ্গি গোষ্ঠীর উভয়েই নাইজেরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলে তৎপরতা চালিয়ে আসছে। এক দশক ধরে সেখানে আধিপত্য বিস্তার করে রেখেছে তারা। তাদের সঙ্গে সহিংসতায় হাজার হাজার মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। ২০০৯ সাল থেকে এ পর্যন্ত বাস্তুচ্যুত হয়েছেন অন্তত ২০ লাখ অধিবাসী।

চলতি বছর নাইজেরিয়ায় খাদ্যপণ্যের দাম অনেক বেড়ে গেছে। খাদ্য উৎপাদন বেশি হয়, সে রকম অঞ্চলে নিরাপত্তাহীনতা এর অন্যতম কারণ বলে দেশটির রাজনীতিকদের ভাষ্য। পাশাপাশি চলতি বছরের শুরুর দিকে উত্তর-পশ্চিম নাইজেরিয়ায় বন্যায় হাজার হাজার হেক্টর জমির ধানও নষ্ট হয়ে গেছে।

নাইজেরিয়ার প্রেসিডেন্ট মোহাম্মাদু বুহারি এ হত্যাকাণ্ডের নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, এ হত্যাকাণ্ডে পুরো দেশ আহত হয়েছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..