নারী সংখ্যাগরিষ্ঠ পার্লামেন্ট আইসল্যান্ডে

শেয়ার বিজ ডেস্ক: ইউরোপ মহাদেশের প্রথম দেশ হিসেবে পার্লামেন্টে পুরুষের চেয়ে বেশি নারী সংসদ সদস্য (এমপি) নির্বাচিত হয়েছে আইসল্যান্ডে। স্থানীয় সময় রোববার দেশটির জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনের প্রাথমিক ফলাফলে দেখা গেছে ক্ষমতাসীন বাম-ডান জোট এগিয়ে রয়েছে। দেশটির পার্লামেন্টের ৬৩ আসনের মধ্যে ৩৩ আসনে নারী এমপি নির্বাচিত হয়েছেন, যা মোট আসনের ৫২ শতাংশ। এর আগে ২০১৭ সালে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ২৪ জন নারী এমপি নির্বাচিত হয়েছিলেন। খবর: বিবিসি।

ইউরোপের কোনো দেশের পার্লামেন্টে এর আগে নারী এমপির সংখ্যা ৫০ শতাংশ পার হয়নি। অবশ্য সুইডেনে নারীরা ৪৭ শতাংশ আসনে জিতে এর কাছাকাছি গিয়েছিল।

অন্যান্য দেশের মতো আইসল্যান্ডের পার্লামেন্টে আইনগতভাবে নারী প্রতিনিধি নির্বাচনের কোনো কোটা ব্যবস্থা নেই। তারপরও নির্বাচনে অংশ নিতে চাইলে রাজনৈতিক দলগুলোর নির্দিষ্টসংখ্যক আসনে নারী প্রার্থী দেয়ার নিয়ম রয়েছে।

উত্তর আটলান্টিকের দেশ আইসল্যান্ডের জনসংখ্যা তিন লাখ ৭১ হাজার। লিঙ্গ সমতার জন্য দীর্ঘদিন ধরেই পরিচিতি পেয়ে আসছে আইসল্যান্ড। লিঙ্গ সমতা নিয়ে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের মার্চের প্রকাশিত বার্ষিক সূচকে দেখা গেছে, টানা ১২ বছরের মতো এ সূচকে শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে আইস্যান্ড।

আইসল্যান্ডে নারীকর্মীদের মাতৃত্বকালীন ছুটির মতো পুরুষরাও পিতৃত্বকালীন ছুটি পান। অনেক বছর ধরেই লিঙ্গ সমতার এমন আরও দৃষ্টান্ত আছে দেশটিতে। ১৯৬১ সালে প্রথম দেশ হিসেবে নারী ও পুরুষকে সমান মজুরি দিতে আইন পাস করে দেশটি।

বিশ্বে বর্তমানে মাত্র পাঁচটি দেশে অন্তত অর্ধেক নারী এমপি রয়েছে। সর্বোচ্চ ৬১.৩ শতাংশ নারী এমপি নিয়ে শীর্ষে আছে আফ্রিকার দেশ রুয়ান্ডা। এরপর কিউবায় ৫৩.৪ শতাংশ, নিকারাগুয়ায় ৫০.৬ শতাংশ, মেক্সিকো ও সংযুক্ত আরব আমিরাত দু’দেশেই ৫০ শতাংশ এমপি নারী। দেশটির প্রেসিডেন্ট গুডনি জোহানেসন বলেন, ঐতিহাসিক এবং আন্তর্জাতিক দৃষ্টিতে গুরুত্বপূর্ণ খবর হলো, আইসল্যান্ডের পার্লামেন্টে প্রথমবারের মতো ইউরোপের কোনো দেশ হিসেবে নারী এমপিরা সংখ্যাগরিষ্ঠ আসন পেয়েছেন। এটা খুব ভালো খবর।

সর্বশেষ..