প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

নিউজিল্যান্ডের রানপাহাড়ে আটকে গেল বাংলাদেশ

ক্রীড়া ডেস্ক: বদলে যাওয়া বাংলাদেশ এভাবে আকাশ থেকে মাটিতে নেমে আসবে কে জানতো! সর্বশেষ আট সাক্ষাতের সাতটিতেই জয়। দুবার হোয়াইটওয়াশের সুখস্মৃতি। সঙ্গে কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমানের প্রত্যাবর্তন। সব মিলিয়ে ক্রাইস্টচার্চে টাইগারদের জ্বলে ওঠার মঞ্চ তৈরিই ছিল। কিন্তু হলো না। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে গতকাল মাশরাফি বিন মুর্তজার দল হারলো ৭৭ রানে। লড়াইটুকু করতে পারলো না।

যদিও নিউজিল্যান্ডের মাঠে ভিন্ন কন্ডিশনে সেই ধারাবাহিকতা ধরে রাখার একটা চ্যালেঞ্জ ছিলই। এতদিন মুখস্থ পরিবেশে বিশ্বসেরাদের চোখে চোখ রেখেই কথা বলছেন মাশরাফি-সাকিবরা। কিন্তু গতকাল হলো না। ক্রাইস্টচার্চের হেগলি ওভারে টসভাগ্য ছিল কিউইদের পক্ষে।

মোস্তাফিজের ফেরার ম্যাচে টম ল্যাথামের ব্যাটে ১২১ বলে ১৩৭ রান। আর এর ওপর ভর করে ৭ উইকেটে ৩৪১ রান তোলে নিউজিল্যান্ড। জবাব দিতে নেমে নিয়মিত উইকেট হারাতে থাকে সফরকারীরা। শেষ পর্যন্ত ৪৪.৫ ওভারে ২৬৪ রানে আটকে যায় বাংলাদেশের ইনিংস।

মোস্তাফিজ ৬২ রানে নিলেন ২ উইকেট। তাসকিন আহমেদ সমান উইকেট পেতে ব্যয় করলেন আরও বেশি রান।

জবাব দিতে নেমে যা হলো, তাতে বাংলাদেশের সংগ্রহটাকে অবশ্য মামুলি বলার সুযোগ নেই। ৪৪.৫ ওভারে ২৬৪। কিন্তু ম্যাচটা যে আগেই হাতছাড়া টাইগারদের। এরই মধ্যে লড়লেন শুরুতে তামিম ইকবাল। এই ওপেনারের ব্যাটে ৩৮। পরে সাকিব আল হাসান ৫৯ রান করে বাজে শট খেলে ফিরে যান সাজঘরে। মোসাদ্দেক অবশ্য ৫০ রানে অপরাজিত থাকেন।

অপরাজিত ছিলেন মুশফিকুর রহীমও। রান নিতে গিয়ে হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট নিয়ে মাঠ ছাড়েন তিনি। ৪২ রানে রিটায়ার্ড হার্ট হলেও পরে আর ফেরেননি! ম্যাচশেষে অধিনায়ক মাশরাফি জানালেন, তার এই চোট কতটা মারাত্মকÑসেটা ৪৮ ঘণ্টা পরই জানা যাবে।

একই সঙ্গে পরের ম্যাচেই ভুল সামলে ফেরার প্রত্যয়ও ছিল অধিনায়কের কণ্ঠে। বলছিলেন, ‘দেখুন, এই সিরিজের এখনও অনেক কিছুই বাকি আছে। এখানেই সব শেষ হয়ে যায়নি।’ সিরিজ বাঁচিয়ে রাখতে ২৯ ডিসেম্বর নেলসনে ফের কিউইদের সঙ্গে লড়বে বাংলাদেশ। ওয়ানডে সিরিজের শেষ ম্যাচ ৩১ ডিসেম্বর একই মাঠে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

নিউজিল্যান্ড: ৫০ ওভারে ৩৪১/৭ (ল্যাথাম ১৩৭, গাপটিল ১৫, উইলিয়ামসন ৩১, ব্রুম ২২, নিশাম ১২, মানরো ৮৭, রনকি ৫, স্যান্টনার ৮*, সাউদি ৭*; মাশরাফি ০/৬১, মোস্তাফিজ ২/৬২, তাসকিন ২/৭০, সাকিব ৩/৬৯, সৌম্য ০/২৫, মোসাদ্দেক ০/৪০)।

বাংলাদেশ: ৪৪.৫ ওভারে ২৬৪/৯ (তামিম ৩৮, ইমরুল ১৬, সৌম্য ১, মাহমুদউল্লাহ ০, সাকিব ৫৯, মুশফিক ৪২ (আহত অবসর), সাব্বির ১৬, মোসাদ্দেক ৫০*, মাশরাফি ১৪, তাসকিন ২, মোস্তাফিজ ০; সাউদি ২/৬৪, ফার্গুসন ৩/৫৪, নিশাম ৩/৩৬, স্যান্টনার ১/৬১)।

ফল: নিউজিল্যান্ড ৭৭ রানে জয়ী।

সিরিজ: ৩ ম্যাচ সিরিজে নিউজিল্যান্ড ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে।

ম্যাচসেরা: টম ল্যাথাম।