প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

নিজস্ব জমিতে ভবন নির্মাণ করবে পদ্মা অয়েল

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজধানীর পরিবাগে অবস্থিত নিজস্ব জমিতে ভবন নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতের পদ্মা অয়েল কোম্পানি লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, কোম্পানিটি পরিবাগে ১২ তলাবিশিষ্ট একটি ভবন নির্মাণ করবে। এজন্য ‘এনডিই-টিইএএল জেভি’-এর সঙ্গে একটি চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে। আধুনিক আবাসিকের পাশাপাশি বাণিজ্যিক ভবনটিতে পদ্মা অয়েলের দুটি বেসমেন্ট থাকবে।

এদিকে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ ৩০ জুন, ২০২১ সমাপ্ত হিসাববছরের আর্থিক প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করে বিনিয়োগকারীদের জন্য ১২৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে। আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২৩ টাকা ২৭ পয়সা। ৩০ জুন, ২০২১ তারিখে শেয়ারপ্রতি নেট সম্পদমূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১৬৮ টাকা ৪১ পয়সা। এছাড়া এই হিসাববছরে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি নগদ অর্থপ্রবাহ (এনওসিএফপিএস) হয়েছে দুই টাকা ৭৩ পয়সা। ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি বেলা ১১টায় ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে।

চলতি হিসাববছরের প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর, ২০২১) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে পাঁচ টাকা ৭৫ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ছয় টাকা ৪০ পয়সা। ২০২১ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর তারিখে শেয়ারপ্রতি নেট সম্পদমূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১৭৪ টাকা ১৬ পয়সা। আর প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানির এনওসিএফপিএস হয়েছে ২৬ টাকা ৮৬ পয়সা।

এর আগে ৩০ জুন, ২০২০ হিসাববছরের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ১২৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে। ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরের আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ২৭ টাকা ৭৯ পয়সা। এর আগের বছর ইপিএস ছিল ২৯ টাকা সাত পয়সা। আলোচিত বছরে শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) হয়েছে ১৫৭ টাকা ৬৪ পয়সা। আর এ বছরে শেয়ারপ্রতি নগদ অর্থপ্রবাহ হয়েছে ৮০ টাকা ৯১ পয়সা।

কোম্পানিটি ১৯৭৬ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়ে বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটেগরিতে অবস্থান করছে। ১০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ৯৮ কোটি ২৩ লাখ ৩০ হাজার টাকা। কোম্পানির রিজার্ভের পরিমাণ এক হাজার ৪৫০ কোটি ৩০ লাখ টাকা।

কোম্পানিটির মোট ৯ কোটি ৮২ লাখ ৩২ হাজার ৭৫০টি শেয়ার রয়েছে। ডিএসইর সর্বশেষ তথ্যমতে, কোম্পানির মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা পরিচালকদের কাছে দুই দশমিক শূন্য ছয় শতাংশ, সরকারি ৫০ দশমিক ৩৫ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর কাছে ৩১ দশমিক ২৬ শতাংশ, বিদেশি বিনিয়োগকারীর কাছে শূন্য দশমিক ৭৯ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে বাকি ১৫ দশমিক ৫৪ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।