বাণিজ্য সংবাদ

নিটপণ্য রফতানি বৃদ্ধিতে সহায়তার আশ্বাস

নিজস্ব প্রতিবেদক: পারস্য উপসাগরীয় জোট জিসিসির সদস্য সংযুক্ত আরব আমিরাতে (ইউএই) বাংলাদেশের নিটপণ্যের রফতানি বাণিজ্য সম্প্রসারণে সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে ২৯ মার্চ দুপুরে বিকেএমইএ’র পাঁচ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল সংযুক্ত আরব আমিরাতের দূতাবাসে এক আলোচনা সভায় মিলিত হয়।

বিকেএমইএ’র ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এএইচ আসলাম সানি ইউএই ও বাংলাদেশের মধ্যকার দ্বিপক্ষীয় নিট বাণিজ্যের বর্তমান অবস্থা তুলে ধরেন। আলোচনায় ইউএই নিটপণ্য রফতানি বৃদ্ধিতে দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতার বিভিন্ন বিষয় উঠে আসে।

এএইচ আসলাম সানি বলেন, ইউএই সারা বিশ্ব থেকে প্রতিবছর প্রায় ৩.৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের নিটপণ্য আমদানি করে। তার মধ্যে বাংলাদেশ রফতানি করে প্রায় ১০০ মিলিয়ন। তাই সংযুক্ত আরব আমিরাতে বাংলাদেশের নিটপণ্য রফতানি বৃদ্ধিরও বিশাল সুযোগ রয়েছে। দেশটির মোট জনসংখ্যার প্রায় ৬২ শতাংশ তরুণ ও মধ্যবয়সী। যে কারণে এখানে বৈচিত্র্যময় পোশাকের চাহিদা দীর্ঘ সময় ধরে বিদ্যমান থাকবে। বিকেএমইএ মধ্যপ্রাচ্যের পোশাকের বাজার বিশেষ করে সংযুক্ত আরব আমিরাতের বাজারে নিটপণ্যের রফতানি বৃদ্ধিতে কাজ করে আসছে। এরই আলোকে দুবাই ওয়ার্ল্ড এক্সপো-২০২০ সামনে রেখে আরব আমিরাতে বাংলাদেশের নিটপণ্যের বাজার সম্প্রসারণ পরিকল্পনা নির্ধারণেই এই প্রয়াস।’

তিনি রাষ্ট্রদূতের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বাংলাদেশি পোশাক রফতানিকারকদের সহজে ও কম সময়ে ভিসা প্রদানের জন্য অনুরোধ করেন। প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে রাষ্ট্রদূত তার নিজ দেশসহ জিসিসিভুক্ত অন্য দেশের সঙ্গে বাংলাদেশের বাণিজ্য সম্পর্ক বৃদ্ধিতে যাবতীয় সহযোগিতার আশ্বাস দেন। বাংলাদেশের নিটশিল্পের বাজার বিস্তৃতিতে বিকেএমইএ’র কার্যক্রমের প্রশংসা করেন। বিকেএমইএ থেকে একটি প্রতিনিধিদল প্রেরণের বিষয়টি উল্লেখ করে তিনি সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন। সে সঙ্গে বিকেএমইএ’র সুপারিশ করা ভিসা আবেদনকারীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ভিসা দেওয়ার আশ্বাস দেন।

 

সর্বশেষ..