স্পোর্টস

নিরাপত্তা নয়, মাহমুদউল্লাহর ভাবনায় টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়

আজ পাকিস্তান যাচ্ছে বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক: পাকিস্তান সফরে সবার আগে আসে নিরাপত্তার বিষয়টি। তবে এ নিয়ে কোনো ভাবনাই যেন নেই মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের। গতকাল মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে সংবাদ সম্মেলনে তার কথাতেই স্পষ্ট ফুটে উঠেছে তেমনটি। অবশ্য তিনি জানিয়েছেন, দীর্ঘদিন পর পাকিস্তান সফরে গিয়ে টাইগাররা প্রথম ধাপে শুধু টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়ের জন্যই খেলবে।

আজ রাতেই পাকিস্তানের উদ্দেশে রওনা হবে বাংলাদেশ দল। প্রথম ধাপে সেখানে দলটি খেলবে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। তার আগে গতকাল মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুশীলনের ফাঁকে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘এ মুহূর্তে ব্যক্তিগতভাবে আমি এতটুকু বলতে পারিÑআমার মনে হয় দলের অন্য খেলোয়াড়রাও চিন্তিত নয়। কারণ এটির সিদ্ধান্ত হয়ে গেছে। আমরা এখন ওখানে খেলার কথাই চিন্তা করছি, কীভাবে ভালো পারফর্ম করতে পারব এবং জিততে পারবÑএটা নিয়েই বেশি চিন্তিত। সিরিজ জেতার উদ্দেশ্যেই খেলব।’

টি-টোয়েন্টিতে পাকিস্তান খুবই শক্তিশালী। র‌্যাংকিংয়ে দলটির অবস্থান এক নম্বরে। অন্যদিকে বাংলাদেশের অবস্থান ৯ নম্বরে। ব্যাপারটি অবশ্য মাথায় আনছেন না মাহমুদউল্লাহ, ‘র‌্যাংকিংটা অবশ্য ভিন্ন কথা বলে। আমরা ৯ নম্বরে, ওরা এক নম্বরে। তারা ধারাবাহিকভাবে ফর্মে আছে এ ফরম্যাটে। আমার কাছে মনে হয়, যেভাবে আমরা ক্রিকেট খেলছি বিগত সিরিজে ও লাস্ট কয়েকটি সিরিজে, আমি খুব আশাবাদী ভালো করতে পারব, ইনশাল্লাহ আমরা সিরিজ জেতারই চেষ্টা করব।’

গত ভারত সফরে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশকে জেতানোর মূল কারিগর ছিলেন মুশফিকুর রহিম। নিরাপত্তা শঙ্কায় পাকিস্তান সফর থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন তিনি। সাকিব আল হাসান দলে নেই আইসিসির নিষেধাজ্ঞার কারণে। দুই সিনিয়র মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও তামিম ইকবালের সঙ্গী মূলত পুরো তারুণ্যনির্ভর দল। তবে নিজের দল নিয়ে টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ বেশ সন্তুষ্ট, ‘এ দলে যারা জায়গা পেয়েছে, তারা প্রায় সবাই এবারের বিপিএলে খুবই ভালো পারফরম্যান্স করেছে। বেশিরভাগ টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান রানের মধ্যে আছে। বোলাররা উইকেট পেয়েছে। ম্যাচে ভালো পারফর্ম করেছে। দলের শক্তি নিয়ে আমি সার্বিকভাবে অনেক আত্মবিশ্বাসী। এখন দেখার বিষয়, মাঠের ক্রিকেটে আমরা নিজেদের কেমন করে মেলে ধরতে পারি। আমি ও তামিম এ দলের সবচেয়ে সিনিয়র খেলোয়াড়। আমরা দুজনেই মনে করি, এ দলে আমাদের দায়িত্বটা একটু বেশি। টপ অর্ডারে তামিমের অভিজ্ঞতা অনেক বড় এক বিষয়। বেশ ভালো ছন্দেই আছে  সে। এ বিপিএলে রানও করেছে ভালো। দলে ব্যাটসম্যান হিসেবে আমারও যে ভূমিকা থাকবে, আশা করছি সেটা ভালোভাবে পালনে সক্ষম হব। সত্যি বলতে কি, দলের প্রত্যেক ক্রিকেটারকেই নিজেদের দায়িত্ব পালন করতে হবে। এ সিরিজে হয়তো অনেক ব্যাটসম্যানকে নতুন জায়গায় ব্যাটিং করতে হতে পারেÑবিষয়টি সিরিজ শুরুর আগে সবাই বেশ ভালোই জানে, সেভাবেই তারাও নিজেদের প্রস্তুত করছে।’

পারিবারিকভাবে মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহ খুবই ঘনিষ্ঠ আত্মীয়। দুজনেই ভায়রা ভাই। মুশফিক এ সফরে যাচ্ছেন না নিরাপত্তা শঙ্কায়। কিন্তু নিজের পরিবারকে শেষ পর্যন্ত রাজি করিয়ে যাচ্ছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। গতকাল এ ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘শুরুতে তো অবশ্যই পরিবারকে বোঝানো কিছুটা কঠিনই ছিল। পরিবারের সবাই শুরুতে বেশ সংশয়ে ছিল। তবে আমি আমার পরিবারের সঙ্গে কথা বলেছি। তাদের সার্বিক বিষয়টি বোঝানোর চেষ্টা করেছি। তারাও ব্যাপারটি বুঝতে পেরেছে। এখন পর্যন্ত যা শুনছি, তাতে পাকিস্তানের এবারের সফরে বেশ জোরদার নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে। মুশফিক এ সফরে যাচ্ছে না। তার এ সিদ্ধান্তকে আমিও সমর্থন করি, সম্মান জানাই। পরিবার যে কারোর জন্যই অনেক বড় ইস্যু।’

নিরাপত্তার ব্যাপারটি দেখছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। এরই মধ্যে সংস্থাটি টাইগারদের নিরাপত্তায় দিয়েছে বাড়তি প্রতিশ্রুতিও। তাই মাহমুদউল্লাহ ব্যাপারটি নিয়ে মোটেও ভাবছেন না। এখন তার একটাই কাজ, ওখানে গিয়ে খেলা ও পারফর্ম করা।

আগামী ২৪, ২৫ ও ২৭ জানুয়ারি লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে তিনটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..