মত-বিশ্লেষণ

নির্দেশনা অনুসরণের জন্য শিশুর প্রশংসা করুন

নভেল করোনা ভাইরাসজনিত রোগ (কভিড-১৯) বিশ্বজুড়ে পারিবারিক জীবন এলোমেলো করে দিয়েছে। সময়ে শিশুসন্তানের প্রতি আলাদা মনোযোগ দিতে হয়। তাদের অনেক প্রশ্নের জবাব দিতে হয়, তাদের বোঝাতে হয় প্রজ্ঞার সঙ্গে। কভিডকালে শিশুকে কীভাবে গুণগত সময় দেবেন, তা ঠিক করুন। 

কভিড-১৯ সম্পর্কে কথা বলা: তথ্য অনুসন্ধানে তাদের সম্পৃক্ত করুন এবং তাদের প্রশ্নগুলো মনোযোগ দিয়ে শুনুন। রেডিও প্রোগ্রাম, সংবাদপত্রের নিবন্ধ বা ইন্টারনেট থেকে কোনো বিষয় সম্পর্কে জেনে সে বিষয়টি পরিবারকে জানানোর কাজ দিন তাদের।

দায়িত্ব ভাগ করে নেয়া: কিশোর-কিশোরীরা বাড়তি দায়িত্ব নিতে পছন্দ করে। তাদের একটি বিশেষ কাজ বেছে নেয়ার অনুমতি দিন। দিনের বেলায় এমন একটি সময় বেছে নিন, যে সময়ে প্রত্যেকে নিজের ভালো লাগার কোনো একটি বিষয় অন্যদের সঙ্গে ভাগাভাগি করবে। নারী-পুরুষ ও ছেলেমেয়েদের মধ্যে দায়িত্ব সমানভাবে ভাগ করুন।

রুটিন তৈরি করা: আপনার কিশোর সন্তানকে প্রতিদিনের কার্যসূচি তৈরিতে সম্পৃক্ত করুন। একসঙ্গে লক্ষ্য ও পুরস্কার নির্ধারণ করুন। আপনার সন্তান যাতে তার প্রাত্যহিক গৃহস্থালি কাজ ও স্কুলের কাজ করার পাশাপাশি বিশ্রাম করার জন্য সময় পায়, তা নিশ্চিত করুন।

কঠিন আচরণের বিষয়টি মোকাবিলা করা: চ্যালেঞ্জিং আচরণের প্রভাবগুলোর ব্যাপারে কথা বলুন। আপনার সন্তানদের সঙ্গে নিয়ে বিকল্পগুলো খুঁজে দেখুন এবং তাদের পরামর্শ প্রদানের সুযোগ দিন। পরিষ্কার ও ন্যায্য নিয়ম এবং সীমানা নিয়ে একসঙ্গে সিদ্ধান্ত নিন।

আপনার সন্তানরা ভালো আচরণের পাশাপাশি নির্দেশনা অনুসরণ করলে তাদের প্রশংসা করুন।

মহানুভবতা ও সহমর্মিতার বিষয়গুলো তুলে ধরুন: যারা অসুস্থ এবং যারা অসুস্থদের যতœ নিচ্ছেন, তাদের জন্য আদর্শ মহানুভবতা ও সহমর্মিতার নজির স্থাপন করুন। বৈষম্যের শিকার হওয়া কারও পাশে দাঁড়ানো বা তাকে খাবার পাঠিয়ে সহায়তা করার মতো কার্যক্রমের মাধ্যমে আপনার কিশোর সন্তানেরা কীভাবে সহ-আচরণের নজির তৈরি করতে পারে, তা নিয়ে তাদের সঙ্গে কথা বলুন।

ইউনিসেফের তথ্য অবলম্বনে

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..