দিনের খবর প্রচ্ছদ শেষ পাতা

নির্দেশনা পরিপালন হচ্ছে কি না খতিয়ে দেখবে আইডিআরএ

পলাশ শরিফ : বিমা কোম্পানির লেনদেনে স্বচ্ছতা আনতে ব্যাংক অ্যাকাউন্টের সংখ্যা নির্ধারণ করে দিয়েছে বিমা নিয়ন্ত্রক সংস্থা বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ)। এরপর কমিশন বাণিজ্য বন্ধে কমিশন ১৫ শতাংশ বেঁধে দেওয়া হয়েছে। সেইসঙ্গে নিয়ম মেনে পলিসির স্ট্যাম্প শুল্ক আদায়ের জন্য কোম্পানিগুলোকে নির্দেশনা দিয়েছে সংস্থাটি। এসব নির্দেশনাকে বিমা খাতের জন্য ইতিবাচক হিসেবে মনে করা হচ্ছে। এবার কোম্পানিগুলো নিয়ন্ত্রক সংস্থার নির্দেশনা মানছে কি না, সেই প্রশ্নের উত্তর খুঁজছে আইডিআরএ। এজন্য এরই মধ্যে দুটি সার্ভেইল্যান্স কমিটি করা হয়েছে।

তথ্যমতে, আইডিআরএ’র এক সার্কুলারে গত রোববার (১১ নভেম্বর) এজেন্ট কমিশন, লেনদেনের জন্য নির্দিষ্টসংখ্যক ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ব্যবহার ও পলিসির স্ট্যাম্প ডিউটিসংক্রান্ত নির্দেশনা পরিপালন করা হচ্ছে কি না, তা মনিটরিংয়ের জন্য দুটি কমিটি গঠনের কথা বলা হয়েছে। এর মধ্যে আইডিআরএ’র নির্বাহী পরিচালক ড. শেখ মহ. রেজাউল ইসলামকে আহবায়ক করে সংস্থাটির পাঁচ পরিচালকসহ ১১ সদস্যের সার্ভেইল্যান্স কমিটি করা হয়েছে। অপর সার্ভেইল্যান্স কমিটির আহ্বায়ক নির্বাহী পরিচালক খলিল আহমেদ, ওই কমিটিতে পাঁচ পরিচালকসহ আরওও ১১ জনকে রাখা হয়েছে। ওই দুই কমিটি নিয়ন্ত্রক সংস্থার সাম্প্রতিক নির্দেশনা পরিপালন হচ্ছে কি না, তা খতিয়ে দেখবে। এজন্য ব্যাংক লেনদেনের তথ্য সংগ্রহ ও প্রয়োজনে পরিদর্শন করবে।

সাধারণ বিমা কোম্পানিতে কমিশন বাণিজ্য বন্ধে এজেন্ট কমিশন ১৫ শতাংশের মধ্যে রাখার নির্দেশ দিয়েছে আইডিআরএ। গত সেপ্টেম্বরের শুরুতে দেওয়া এ-সংক্রান্ত নির্দেশনায় অগ্রিম কর কর্তন করে এজেন্টকে ১৪ দশমিক ২৫ শতাংশ কমিশন দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। এরপর এ নিয়ে খাতসংশ্লিষ্টদের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক করেছে সংস্থাটি। ওই নির্দেশনা বিমা কোম্পানিগুলো উপকৃত হবে বলেও খাত ও নিয়ন্ত্রক সংস্থার দায়িত্বশীলরা জানিয়েছেন।

আলাপকালে আইডিআরএ চেয়ারম্যান মো. শফিকুর রহমান পাটোয়ারী শেয়ার বিজকে বলেন, ‘বিমায় শৃঙ্খলা ফিরলে এ খাতের প্রতি মানুষের আস্থা ফেরাতেই এজেন্ট কমিশন ১৫ শতাংশ করাসহ বেশকিছু দিকনির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এসব বিষয়ে খাতসংশ্লিষ্টদের সঙ্গেও দফায় দফায় আলোচনা হয়েছে। নির্দেশনা পরিপালন করা হলে কোম্পানিগুলোর স্বচ্ছতা-জবাবদিহি বাড়বে। সেজন্যই নিয়মিত মনিটরিংয়ের ব্যবস্থা রাখা হচ্ছে।’

এর আগে, চলতি বছরের জুলাইয়ের প্রথম সপ্তাহে বিমা কোম্পানির লেনদেনের জন্য ব্যাংক অ্যাকাউন্টের সংখ্যা নির্ধারণ করা হয়েছে। সাধারণ বিমা কোম্পানির লেনদেনে স্বচ্ছতা আনতে ব্যাংক অ্যাকাউন্টসংখ্যা নির্ধারণ করে নতুন নির্দেশনা দিয়েছে আইডিআরএ। নির্দেশনায় একই ব্যাংকে যেসব সাধারণ বিমা কোম্পানির তিনটির বেশি ব্যাংকে অ্যাকাউন্ট আছে, তাদের চলতি মাসের মধ্যেই অতিরিক্ত অ্যাকাউন্ট বন্ধ করতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে কোম্পানি আয়-ব্যয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যাংক অ্যাকাউন্টের সংখ্যাও নির্ধারণ করেছে সংস্থাটি।

খাতসংশ্লিষ্টরা বলছেন, ‘নিয়ন্ত্রক সংস্থা থেকে নির্দেশনা দেওয়াই শেষ কথা নয়, বরং সেগুলো পরিপালন হচ্ছে কি না, খতিয়ে দেখা জরুরি। সে কারণে সার্ভেইল্যান্স কমিটি গঠন নিঃসন্দেহে ভালো উদ্যোগ। কমিটির নিয়মিত মনিটরিংয়ের মাধ্যমে নির্দেশনা অমান্য হলে কঠোর পদক্ষেপের সুপারিশ করলে তার সুফল পাওয়া যাবে।’

এদিকে বিমা পলিসির স্ট্যাম্প শুল্ক প্রদানের ক্ষেত্রে নিয়ম মেনে চলার নির্দেশ দিয়েছে আইডিআরএ। এ-সংক্রান্ত প্রবিধান মেনে চলার জন্য বিমা কোম্পানিগুলোকে তাগিদ দেওয়া হয়েছে। নির্দেশনায় ২০ হাজার টাকার বেশি বিমা স্ট্যাম্প প্রদেয় হলে অন্য চালানের সঙ্গে একত্রিত না করে পৃথক চালানের মাধ্যমে প্রদানের কথাও বলা হয়েছে। সেইসঙ্গে এ বিষয়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যানের কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..