সারা বাংলা

নির্বাচনী সহিংসতা পাথরঘাটায় সংঘর্ষে আহত ৬

প্রতিনিধি, পাথরঘাটা (বরগুনা): বরগুনার পাথরঘাটায় মেয়র প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে দু’দফা সংঘর্ষে স্বতন্ত্র প্রার্থীসহ ছয়জন আহত হয়েছেন। তাদের পাথরঘাটা হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। গত রোববার বিকাল ৫টা থেকে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত পাথরঘাটা থানার গেটে ও পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের ইমান আলী সড়কে স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহাবুবুর রহমান খানের বাসার সামনে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পাথরঘাটা থানার ওসি মো. শাহাবদ্দিন এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, গত রোববার বিকাল ৩টার দিকে পাথরঘাটা উপজেলা পরিষদের সভাকক্ষে বরগুনা জেলা পুলিশ সুপার মো. জাহাঙ্গীর মল্লিক ও জেলা প্রসাশক মো. হাবিবুর রহমান সমন্বয় প্রার্থীদের নিয়ে আইনশৃঙ্খলা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে মাহাবুব খান বাসায় ফিরছিলেন। এ সময় নৌকা মার্কার প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র আনোয়ার হোসেন আকনের সমর্থকরা মাহাবুব রহমান খানকে ধাওয়া করে থানার গেটের সামনে নিয়ে যায়।

পরে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে বাসায় পৌঁছে দেয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাত পৌনে ৯টার দিকে ছাত্রলীগ কর্মীরা মাহাবুব খানের বাসায় হামলা করলে উভয় পক্ষের মধ্যে ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। এ সময় ছাত্রলীগের পাঁচ নেতাকর্মীসহ প্রার্থী মাহাবুবুর রহমান খান আহত হন।

আওয়ামী লীগের মনোনয়নে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আনোয়ার হোসেন আকন বলেন, ‘ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা মাহাবুবুর রহমানের বাসার সামনে দিয়ে আমার মিটিংয়ে যাচ্ছিল। এ সময় তাদের লক্ষ্য করে বাসার ছাদের ওপর থেকে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এতে পাঁচ কর্মী আহত হয়েছেন। এ ব্যাপারে আমি থানায় একটি মামলা করেছি।’

তবে মাহাবুবুর রহমান খান দাবি করেন, ‘ছাত্রলীগ কর্মীরা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে আমার বাসার দোতলার জানালার গ্লাস ভাঙার সময় তাতে এবং ইট পড়ে তারা আহত হয়েছে। আমাদের পক্ষ থেকে কোনো ইটপাটকেল নিক্ষেপ করা হয়নি।’

এ ব্যাপারে পাথরঘাটা পৌরসভা নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ও নির্বাহী কর্মকর্তা সাবরিনা সুলতানা বলেন, ‘আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

পাথরঘাটা থানার ওসি তদন্ত সাইদ আহম্মেদ বলেন, ‘এ ব্যাপারে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আনোয়ার হোসেন আকন একটি মামলা করেছে। আমরা আসামিদের গ্রেপ্তার করার চেষ্টা করছি।’

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..