বিশ্ব সংবাদ

নির্বাচনে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে প্রার্থী হতে চান ধনকুবের ব্ল–মবার্গ

শেয়ার বিজ ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডোমোক্র্যাটিক দলের প্রার্থী হওয়ার দৌড়ে নামার কথা ভাবছেন দেশটির ধনকুবের ব্যবসায়ী মাইকেল ব্লুমবার্গ। নিউইয়র্কের সাবেক এ মেয়র মনে করেন, ডোনাল্ড ট্রাম্পকে হারানোর জন্য যোগ্য কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী নেই। তাই নিজেই তার সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে চান। এ সপ্তাহেই আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম সম্পন্ন করবেন বলেও জানিয়েছেন বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ এ ধনী। খবর: রয়টার্স।

২০২০ সালের নভেম্বর মাসে যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। বিরোধী ডেমোক্র্যাটিক দলের ১৭ জন নেতা ২০২০ সালের নির্বাচনে তাকে চ্যালেঞ্জ জানাতে প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন। সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এরই মধ্যে জনপ্রিয়তার বিচারে তাকে পেছনে ফেলে এগিয়ে রয়েছেন। বছোড়া মাসাচুয়েটসের সিনেটর এলিজাবেথ ওয়ারেনও রয়েছেন এ তালিকায়।

চলতি সপ্তাহেই ডেমোক্র্যাট প্রার্থী হিসেবে কাগজপত্র তৈরি করবেন ৭৭ বছর বয়সী ব্লুমবার্গ। সাম্প্রতিক জরিপে দেখা যায় ওয়ারেন ও বার্নি স্যান্ডার্সের কারোরই ট্রাম্পকে চ্যালেঞ্জ জানানোর মতো জনপ্রিয়তা নেই। অন্যদিকে ট্রাম্পের সঙ্গে প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হওয়ার লড়াইয়ে রয়েছেন তিনজন রিপাবলিকানও। তবে তাদের কারও ট্রাম্পকে সরিয়ে নির্বাচনের করার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।

মাইকেল ব্লুমবার্গ বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ ধনী। ফোর্বসের হিসেব অনুযায়ী তার সম্পদের পরিমাণ পাঁচ হাজার ২০০ কোটি ডলার, যা ট্রাম্পের সম্পদের প্রায় ১৭ গুণ। শিক্ষা ও স্বাস্থ্যসহ বিভিন্ন খাতে কোটি কোটি ডলার সহায়তা করেছেন তিনি। রাজনীতিতেও বেশ সফল ব্লুমবার্গ। তিনবার নিউইয়র্কের মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি।

ওয়াল স্ট্রিটের এক সময়ের ব্যাংকার ব্লুমবার্গ পরে নিজের নামে মিডিয়া সম্রাজ্য গড়ে তোলেন। মানবহিতৈষী হিসেবেও সুপরিচিত ব্লুমবার্গ শিক্ষা ও চিকিৎসার মতো খাতগুলোতে প্রতি বছর লাখ লাখ ডলার দান করেন।

ডেমোক্র্যাট দলের সদস্য হিসেবে রাজনৈতিক জীবন শুরু করলেও ২০০১ সালে রিপাবলিকান প্রার্থী হিসেবে নিউইয়র্কের মেয়র পদে নির্বাচনী প্রচার শুরু করেন এবং ভোটে জেতেন। তিনি টানা ২০১৩ সাল পর্যন্ত নিউইয়র্কের মেয়র ছিলেন। তবে গত বছর তিনি আবার ডেমোক্র্যাটিক দলে যোগ দিয়েছেন।

এ বছরের শুরুতে নানা অনুষ্ঠানে তিনি নিজেকে একজন আধুনিক ডেমোক্র্যাট হিসেবে পরিচয় করিয়ে দিয়ে জলবায়ু পরিবর্তনের মতো বিষয়গুলোতে জোর দেওয়ার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। তবে তখন তিনি প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার সম্ভাবনাকে উড়িয়ে দিয়েছিলেন।

যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্র-নিয়ন্ত্রণবিষয়ক উপদেষ্টা গ্রুপ ‘এভরিটাউন ফর গান সেফিট’র অন্যতম প্রধান তহবিল দাতা ব্লুমবার্গ। তার সহায়তায় ২০১৪ সালে ওই সংগঠনটি প্রতিষ্ঠিত হয়।

সর্বশেষ..