দিনের খবর বাণিজ্য সংবাদ শিল্প-বাণিজ্য

নীতিমালা জটিলতায় এক মাসেও খালাস হয়নি

সমুদ্রগামী জাহাজের মেরিন ফুয়েল

সাইফুল আলম, চট্টগ্রাম: শুল্ক জটিলতার কারণে আমদানি করা মেরিন ফুয়েল গত এক মাসেও খালাস হয়নি চট্টগ্রাম বন্দর থেকে। আন্তর্জাতিকভাবে মেরিন ফুয়েল শুল্কমুক্ত হলেও দেশের নীতিমালায় শুল্কযুক্ত থাকায় কাস্টমস ছাড়পত্র না পাওয়ার কারণে এক মাস আগে আমদানি করা মেরিন ফুয়েল সরবরাহ দেওয়া সম্ভব হয়নি। অপরদিকে বাংকারিংয়ের ট্যাংকার নিয়োগ নিয়ে নতুন জটিলতা তৈরি হয়েছে। নতুন নীতিমালায় বাংকারিংকে সিন্ডিকেটনির্ভর করার অভিযোগ উঠেছে। ফলে প্রস্তুতি থাকার পরও বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন (বিপিসি) সমুদ্রগামী জাহাজে তেল সরবরাহ শুরু করছে না, যা নিয়ে বিরূপ মনোভাব দেখা দেয় সংশ্লিষ্ট অংশীজনদের মধ্যে। যদিও কর্তৃপক্ষ বলছে, এ জটিলতা নিরসনে মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে। আশা করছি দ্রুত বিষয়টি নিষ্পত্তি হবে।

বিপিসি সূত্রে জানা যায়, ইন্টারন্যাশনাল মেরিন টাইম অরগানাইজেশনের বাধ্যবাধকতা থাকায় দেশে আসা বিদেশি জাহাজের বাংকারিং সুবিধা দেওয়ার জন্য গত ১৪ সেপ্টেম্বর ১৫ হাজার টন লো-সালফার মেরিন ফুয়েল নিয়ে থাই জাহাজ ‘এমটি টিএমএন প্রাইড’ চট্টগ্রাম বন্দরের মেঘনার জেটিতে আসে। ১৬ সেপ্টেম্বর জাহাজটির খালাস শেষ হলেও এখনও আমদানিকৃত এসব মেরিন ফুয়েল বিপণন শুরু হয়নি। কারণ বাংকারিং নীতিমালার ৭(গ) অনুচ্ছেদে উল্লেখ করা হয়েছে, ‘সংশ্লিষ্ট তেল বিপণন কোম্পানি কর্তৃক সরবরাহকৃত সব তেল শুল্কযুক্ত হিসেবে সরবরাহ করা হবে।’ অথচ বাংকারিংয়ের জন্য আমদানিকৃত মেরিন ফুয়েলের শুল্কমুক্ত থাকার কথা। ফলে কাস্টমস শুল্ক ছাড়া তেল ছাড় করায় অনীহা প্রকাশ করে। এতে গত এক মাস ধরে জ্বালানি তেল পড়ে আছে বন্দরে।

অপরদিকে সংশ্লিষ্টদের অভিযোগ, নতুন নীতিমালায় ট্যাংকার নিয়োগে সর্বনি¤œ ৫০০ টন বোঝাই সক্ষমতা এবং ২০ লাখ টাকা জামানত বাধ্যবাধকতার কারণে অনেকটাই সিন্ডিকেটনির্ভর হয়ে পড়বে বাংকারিংÑএমন আশঙ্কা প্রকাশ করেন কিছু অয়েল ট্যাংকার মালিক ও ডিলার। এতে আমদানিকৃত স্ক্র্যাপ জাহাজের চোরাই হাই-সালফার মেরিন ফুয়েল বিপণনের আরও বেশি সুযোগ সৃষ্টি হতে পারে।

এদিকে বাংকারিংয়ের জটিলতা নিরসনের প্রক্রিয়া নিয়ে মতামত চেয়ে তিন বিপণন প্রতিষ্ঠানকে চিঠি দিয়েছে বিপিসি। যদিও মেরিন ফুয়েল আমদানির পাশাপাশি জাহাজের এসব জ্বালানি সমুদ্রগামী জাহাজে সরবরাহের জন্য ১০টি ট্যাংকার নিয়োগ দেওয়ার প্রক্রিয়া করে বিপিসি। তার অংশ হিসেবে বাংকার সরবরাহকারী ৯টি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি করে বিপিসির বিপণনকারী তিন সহযোগী প্রতিষ্ঠান পদ্মা অয়েল, মেঘনা পেট্রোলিয়াম ও যমুনা অয়েল কোম্পানি লিমিটেড।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি সূত্র জানায়, ট্যাংকার নিয়োগের বিষয়টি চ্যালেঞ্জ করে গত বৃহস্পতিবার বিপিসিকে আইনি নোটিস দেন মেসার্স চিটাগং এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী এমএ ওয়াদুদ। নতুন বাংকারিং নীতিমালাটি ইন্টারন্যাশনাল মেরিটাইম অরগানাইজেশনের রেগুলেশন অনুযায়ী হয়নি এবং বাংকার সাপ্লাইয়ার নিয়োগ দেওয়ার ক্ষেত্রে পত্রিকায় কোনো প্রকার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ না করে কতিপয় প্রতিষ্ঠানকে বিশেষ সুবিধা দেওয়া হয়েছে বলে ওই নোটিসে উল্লেখ করা হয়। নোটিসে বিপিসির চেয়ারম্যান, দুই পরিচালক, সচিব ও তিন বিপণন কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালককে বিবাদী করা হয়।

অপরদিকে নতুন বাংকারিং নীতিমালা সংশোধনের অনুরোধ জানিয়ে গত ৬ অক্টোবর বিপিসি চেয়ারম্যানকে চিঠি দেয় তালিকাভুক্ত বাংকার সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স শাহ আমানত মেরিন সার্ভিস। ওই চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, দেশি-বিদেশি বাংকার সরবরাহের জন্য ১০০ থেকে ৩০০ মেট্রিক টন মেরিন ফুয়েলের চাহিদা থাকে। কিন্তু নতুন নীতিমালায় ন্যূনতম ৫০০ টন সক্ষমতার ট্যাংকার সংগ্রহের পাশাপাশি ২০ লাখ টাকা পে-অর্ডার জামানত নেওয়ার কথা উল্লেখ করা হয়। একই চিঠিতে বাংকারিংয়ের জন্য জাহাজের ক্ষমতা সর্বোচ্চ ৩০০ মেট্রিক টন এবং জামানত হিসেবে পাঁচ লাখ টাকার ব্যাংক গ্যারান্টি রাখার পাশাপাশি স্ক্র্যাপ জাহাজের মাধ্যমে আসা তেল বিপিসির আওতাধীন অঙ্গপ্রতিষ্ঠানগুলোর মাধ্যমে সংগ্রহ ও বিপণনের ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়।

এ বিষয়ে বিপিসির পরিচালক (পরিচলন ও বিপণন) সৈয়দ মেহদী হাসান শেয়ার বিজকে বলেন, ‘২০১৪ সালে করা বাংকারিং নীতিমালায় শুল্কযুক্ত আছে। নীতিমালা যখন তৈরি করা হয় তখনকার ভুল, যা এখন দেখা যাচ্ছে। আসলে পৃথিবীর সব জায়গায় বাংকারিং নীতিমালায় তেল সব জায়গায় শুল্কমুক্ত হয়। এখানে ভুলে যুক্ত করা হয়েছিল। তা না হলে আমাদের জ্বালানি তেলের দাম বেশি পড়বে, তখন কেউ বেশি দামে তেল কিনবে না। এ জটিলতার বিষয়ে আমরা মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়েছি। আর মন্ত্রণালয় জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে নিদের্শনা দেবে। আশা করছি দ্রুত বিষয়টি নিষ্পত্তি হবে। আর নীতিমালায় যা আছে তা-ই থাকবে। কারও জন্য তো আর নীতিমালা পরিবর্তন হয় না। বাকিগুলো ঠিক থাকবে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..