স্পোর্টস

নেতৃত্ব নিয়ে কাঁটাছেড়া করার আগে পর্যাপ্ত সময় চান তামিম

ক্রীড়া ডেস্ক: গত মার্চে মাশরাফি বিন মর্তুজা ওয়ানডের নেতৃত্ব ছাড়ার পর আনুষ্ঠানিকভাবে এই দায়িত্ব পান তামিম ইকবাল। কিন্তু এখনও ক্যারিয়ারে নতুন এ পথচলা শুরু তরতে পারেননি তিনি। যদিও তার আগেই ড্যাশিং এ ওপেনারের ওপর অনেকেই আস্থা রাখতে পারছেন না। তামিম অবশ্য ব্যাপারটি নিয়ে খুব একটা ভাবছেন না। তার শুধু চাওয়া, নেতৃত্ব নিয়ে কাঁটাছেড়া করার আগে পর্যাপ্ত সময় দেওয়া হয়।

গত বিশ্বকাপের পর মাশরাফি চোটে পড়লে হঠাৎ করেই শ্রীলঙ্কা সফরে ওয়ানডে দলের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়কের দায়িত্ব পান তামিম। কিন্তু সেখানে নিজের দায়িত্ব ঠিক পালন করতে পারেননি তিনি। হয়তো সে কারণে এবার তার উপর নতুন দায়িত্বে অনেকেই আস্থা রাখতে পারছেন না। জাতীয় দলের হয়ে এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে মাঠের ক্রিকেটে নেতৃত্ব দেননি তামিম।

তবে ঘরোয়া টুর্নামেন্টে এ তারকা অনেকবারই দিয়েছেন নেতৃত্ব। সে ধারাবাহিকতায় কদিন পরে শুরু হতে যাওয়া বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে তিনি নেতৃত্ব দেবেন ফরচুন বরিশালকে। যথারীতি তামিমের অধিনায়কত্বের দিকে চোখ থাকবে অনেকের। তার আগে শনিবার মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্ন উঠল, নেতৃত্ব তার জন্য চাপ হয়ে উঠছে বা উঠবে কিনা। সেই চাপ চাপানোর দায় তামিম অবশ্য দিলেন সংবাদকর্মীদের। নেতৃত্ব পাওয়ার পর এখনও কোন পরীক্ষায় দিতে হয়নি তামিমের। তাই এ ব্যাপারে আগেই কথা শুনতে চান না তিনি।

শনিবার এ নিয়ে তামিম বলেন, ‘অধিনায়কত্বের চাপ… আমি তো এখনো পর্যন্ত ওই রকম কোনো চাপের ম্যাচই খেলিনি! প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ক্রিকেট হতে হবে তো… অধিনায়কত্বের চাপ এটা আসলে আপনাদের (সাংবাদিকদের) বানানো। আমি এখনও কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলিনি (দায়িত্ব পাওয়ার পর)।’ নেতৃত্ব নিয়ে কাঁটাছেড়া করার আগে পর্যাপ্ত সময় দেওয়া উচিত বলে মনে করেন তিনি। এরআগে এ তারকা সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন, ৬ মাস বা ১ বছর পর নেতৃত্ব নিয়ে বিচার করতে।

যা আবার শনিবার মনে করিয়ে দিলেন তামিম, ‘আমি যেদিন অধিনায়কত্ব পেয়েছি, ওই দিনই বলেছি যে, আপনারা বিচার করবেন ৬ মাস বা ১ বছর পর। পৃথিবীর যত বড় অথবা ছোট নেতাই হোক, দুই ম্যাচ-তিন ম্যাচ পর আপনারা (সাংবাদিকরা) শুরু করে দেন ক্যাপ্টেন্সির চাপ… এটা শুধু আমার ব্যাপার নয়, যে কারও ক্ষেত্রেই।’ খেলায় কতটা অধিনায়কত্ব প্রভাব ফেলছে, সেটা অন্তত ২০ ম্যাচ পর, কিংবা ১০-১৫ ম্যাচ পর বিচার করতে বলেছেন তামিম, ‘একটা বাচ্চা হাঁটতে কিন্তু ৯ মাস সময় নেয়… একদিনে না হাঁটলে তো আপনি বলতে পারেন না যে সে হাঁটতে পারে না। সময় লাগবেই। অধিনায়কত্ব আমার খেলায় কতটা প্রভাব ফেলছে, সেটা অন্তত ২০ ম্যাচ পর বিচার করবেন,… কিংবা ১০-১৫ ম্যাচ পর। দুই-তিন ম্যাচ পর সেটা করতে পারেন না।’

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..