দিনের খবর প্রচ্ছদ শেষ পাতা

নেপাল ভুটানের চেয়ে পিছিয়ে বাংলাদেশ

বিশ্বব্যাংকের মানব মূলধন সূচক ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক: একটি দেশের জনসমষ্টির শিক্ষাগত ও কর্মদক্ষতা কেমন, তা নির্দেশ করে মানব মূলধন সূচক। প্রতি বছর বিভিন্ন দেশের মানব মূলধন বিষয়ে এ সূচক প্রকাশ করে আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সহযোগী প্রতিষ্ঠান বিশ্বব্যাংক। এবারও এ সূচক প্রকাশ করেছে সংস্থাটি। এ সূচক বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, এতে বাংলাদেশের অবস্থান দক্ষিণ এশিয়ার দেশ নেপাল ও ভুটানেরও নিচে।

গত বুধবার ওয়াশিংটনে বিশ্বব্যাংকের প্রধান কার্যালয় থেকে ‘হিউম্যান ক্যাপিটাল ইনডেক্স ২০২০ আপডেট’ শীর্ষক প্রতিবেদনটি প্রকাশ করা হয়। করোনা সংক্রমণকালে বিভিন্ন দেশে মানব মূলধনের পরিস্থিতি কেমন হয়েছে, তা এ প্রতিবেদন তুলে ধরা হয়েছে।

প্রতিবেদনের তথ্য মতে, দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে মানব মূলধন সূচকে সবচেয়ে পিছিয়ে আফগানিস্তান। দেশটির প্রাপ্ত স্কোর দশমিক ৪০। তালিকায় ১৭৪টি দেশের মধ্যে তাদের অবস্থান ১৪৮তম। দশমিক ৪১ পয়েন্ট নিয়ে ১৪৪তম অবস্থানে রয়েছে পাকিস্তান। আর বাংলাদেশের অবস্থান ১২৩তম। বাংলাদেশের প্রাপ্ত স্কোর দশমিক ৪৬। দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে সবচেয়ে ভালো অবস্থানে আছে শ্রীলংকা। দেশটির অবস্থান ৭১তম। আর প্রাপ্ত স্কোর দশমিক ৬০। তালিকায় নেপালের অবস্থান ১০৯তম এবং প্রাপ্ত স্কোর দশমিক ৫০। ভুটানের অবস্থান ১২১তম। আর প্রাপ্ত স্কোর দশমিক ৪৮। দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় দেশ ভারতের অবস্থান ১১৬তম। দেশটির প্রাপ্ত স্কোর দশমিক ৪৯।

মানব মূলধন সূচকে সবচেয়ে ভালো অবস্থানে রয়েছে সিঙ্গাপুর। প্রথম অবস্থানে থাকা দেশটির প্রাপ্ত স্কোর দশমিক ৮৮। শীর্ষ দশে থাকা দেশগুলোর মধ্যে দশমিক ৮১ স্কোর নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে হংকং। তৃতীয় অবস্থানে থাকা জাপানের স্কোর দশমিক ৮০। শীর্ষ দশে এর পরের অবস্থানগুলোয় রয়েছে পর্যায়ক্রমে দক্ষিণ কোরিয়া, কানাডা, ফিনল্যান্ড, ম্যাকাও, সুইডেন, আয়ারল্যান্ড ও নেদারল্যান্ডস।

অন্যদিকে তালিকায় সবচেয়ে নিচের অবস্থানে রয়েছে মধ্য আফ্রিকা প্রজাতন্ত্র। ১৭৪টি দেশের মধ্যে ১৭৪তম অবস্থানে থাকা দেশটির স্কোর দশমিক ২৯। তালিকায় ১৭৩তম অবস্থানে রয়েছে আফ্রিকার দেশ চাদ। এছাড়া ১৭২তম অবস্থানে রয়েছে দক্ষিণ সুদান, ১৭১তম অবস্থানে নাইজার, ১৭০তম অবস্থানে মালি, ১৬৯তম অবস্থানে লাইবেরিয়া, ১৬৮তম অবস্থানে নাইজেরিয়া, ১৬৭তম অবস্থানে মোজাম্বিক, ১৬৬তম অবস্থানে অ্যাঙ্গোলা, ১৬৫তম অবস্থানে সিয়েরা লিয়ন এবং ১৬৪তম অবস্থানে রয়েছে কঙ্গো। খারাপ স্কোরের দিক দিয়ে শীর্ষে থাকা ১০টি দেশই আফ্রিকা মহাদেশের। প্রতিবেদনের তথ্যমতে, মানব মূলধনের ক্ষেত্রে ২০১০ সালের তুলনায় ২০২০ সালে বাংলাদেশের বেশ অগ্রগতি হয়েছে। ২০১০ সালে বাংলাদেশে শিক্ষার্থীদের স্কুলগামীতার গড় সময়কাল ছিল ৮ দশমিক ২ বছর। ২০২০ সালে তা ১০ দশমিক ২ বছরে উন্নীত হয়েছে। শিক্ষা খাতে সরকার প্রদত্ত নানা ধরনের প্রণোদনা কার্যক্রম এক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। তবে চলমান করোনাভাইরাসের কারণে শিশুদের মধ্যে অপুষ্টিজনিত খর্বতার হার বৃদ্ধি পাবে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। একই সঙ্গে কভিডের প্রভাবে মানব মূলধন সূচকে বাংলাদেশের স্কোরও নিম্নগামী হয়ে বর্তমানের দশমিক ৪৬ থেকে দশমিক ৪৫ পয়েন্টে নেমে আসতে পারে বলে প্রতিবেদনে প্রাক্কলন করা হয়েছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..