শোবিজ

‘ন ডরাই’র সেন্সর বাতিল ও প্রদর্শনী বন্ধে হাইকোর্টের রুল জারি

শোবিজ ডেস্ক: গত ২৯ নভেম্বর ‘ন ডরাই’ সিনেমা মুক্তি পায়। স্টার সিনেপ্লেক্স প্রযোজিত চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ভাষায় নির্মিত সার্ফিং নিয়ে দেশের প্রথম সিনেমা এটি। এতে মূল চরিত্রের নাম আয়শা। যিনি শত প্রতিকূলতা অতিক্রম করে সার্ফিং করেন। এতে আয়শা চরিত্রে অভিনয় করেছেন সুনেরাহ বিনতে কামাল। এটি মূলত একজন নারী সার্ফারের জীবন কাহিনি নিয়ে এ সিনেমার গল্প। গত ৪ ডিসেম্বর ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগ তুলে সেন্সর বাতিল ও প্রদর্শনী বন্ধে একটি আইনি নোটিস পাঠানো হয়। নোটিসে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব, আইন মন্ত্রণালয় সচিব, সিনেমাটির প্রযোজক মাহবুব রহমান, পরিচালক তানিম রহমান অংশু ও চিত্রনাট্যকার শ্যামল সেনগুপ্তকে সিনেমাটির বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলা হয়। জনস্বার্থে রেজিস্ট্রি ডাকযোগে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মো. হুজ্জাতুল  ইসলাম এ নোটিস পাঠান। কারণ নোটিসে বলা হয় এ সিনেমায় মহানবী হজরত মুহাম্মদের (সা.) স্ত্রী হজরত আয়শা (রা.) সম্পর্কে বর্ণনা তুলে ধরা হয়েছে। এছাড়া এ সিনেমায় কিছু অংশ রয়েছে অশ্লীল ও অনৈতিক। তাই এসব বিষয়ে মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের অনুভূতিতে আঘাত সৃষ্টি করবে। তাই সিনেমার প্রযোজক, পরিচালক এবং চিত্রনাট্যকার সস্তা প্রচারণার উদ্দেশে ধর্মীয় উসকানিমূলক পথ বেছে নিয়েছেন। সিনেমাটি সেন্সর বাতিল ও প্রদর্শনী বন্ধে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। এছাড়াও ‘ন ডরাই’ নামে বাজারে যে কমিক বই আছে, সেটিও বাজার থেকে প্রত্যাহারে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, রুলে তাও জানতে চেয়েছেন আদালত। মোহাম্মদ হুজ্জাতুল ইসলাম খান সিনেমাটি সেন্সর সার্টিফিকেট বাতিলের নিষ্ক্রিয়তা চ্যালেঞ্জ করে গত রোববার রিটটি করেন। গতকাল এ রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রুল দেন। তথ্যসচিব (বাংলাদেশ ফিল্ম সেন্সর বোর্ডের চেয়ারম্যান), আইন সচিব, প্রযোজক মাহবুব রহমান, পরিচালক তানিম রহমানসহ পাঁচ বিবাদীকে চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। অন্যদিকে এ বিষয়ে এ সিনেমার সংশ্লিষ্টদের তাৎক্ষণিক কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..