দিনের খবর প্রথম পাতা

পতনের দিন চাহিদায় পিছিয়ে কম দরের শেয়ার

মুস্তাফিজুর রহমান নাহিদ: সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবসে পুঁজিবাজারে বড় ধরনের পতন দেখা গেছে। দিন শেষে ৭৭ পয়েন্ট হ্রাস পেয়ে সূচকের অবস্থান হয়েছে সাত হাজার ১৪০ পয়েন্ট। পাশাপাশ দর কমেছে লেনদেন হওয়া বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিটের।

গতকাল ডিএসইতে মোট ৩৭৬টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারও ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর হ্রাস পেতে দেখা যায় ৩০০টির। বাকি কোম্পানিগুলোর মধ্য ৫২টির দর বাড়ে এবং ২৪টির দর অপরিবর্তিত থাকে।

এদিকে গতকালের বাজার বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, এদিন স্বল্প মূলধনি এবং কম দরের শেয়ার বিনিয়োগকারীদের তেমন আগ্রহ ছিল না। এসব কোম্পানির আর্থিক অবস্থা খতিয়ে দেখার জন্য সম্প্রতি কমিটি গঠন করেছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। এ কারণে এসব কোম্পানির শেয়ার চাহিদা কমে গেছে। গতকাল দিন শেষে এ ধরনের কোম্পানিতে বিনিয়োগে আগ্রহ দেখা গেছে মাত্র ১৮ শতাংশ বিনিয়োগকারীর।

অন্যদিকে গতকাল বিনিয়োগকারীদের বাজার পর্যবেক্ষণ করতে দেখা গেছে। এক দিনের বিরতিতে সূচকের বড় ধরনের পতনের কারণে অনেকে শেয়ার ক্রয় করেননি। বাজার পরিস্থিতি কোন দিকে যায় সেটাই পর্যবেক্ষণ করছেন তারা। এ কারণে গতকালের বাজারে ক্রেতার চেয়ে বিক্রেতার সংখ্যাই বেশি দেখা যায়।

এদিকে মোট লেনদেনে চোখ রাখলে দেখা যায়, সবার শীর্ষে ছিল আর্থিক খাত। মোট লেনদেন এ খাতের অবদান দেখতে পাওয়া যায় ১৫ শতাংশ। লেনদেনে এর পরের অবস্থানে ছিল ওষুধ ও রসায়ন খাত। এটি মোট লেনদেনে ১১ দশমিক ৪৪ শতাংশ অবদান রাখতে সমর্থ হয়। একইভাবে লেনদেনে ১১ শতাংশ অবদান রেখে তৃতীয় অবস্থানে ছিল বস্ত্র খাত। এ ছাড়া লেনদেনে প্রকৌশল, বিমা ও বিবিধ খাত উল্লেখযোগ্যহারে ভূমিকা রাখে।

অন্যদিকে গতকাল ডিএসইতে মোট দুই হাজার ৯৭ কোটি টাকার শেয়ার ও ইউনিট কেনাবেচা হয়। এর মধ্যে ব্লক মার্কেটের লেনদেন ছিল ৫২ কোটি টাকা। এ মার্কেটে মোট ৫৮টি কোম্পানি লেনদেনে অংশ নেয়। 

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..