Print Date & Time : 26 February 2021 Friday 4:30 pm

পতনের ধারায় সোনা-রূপা ঊর্ধ্বমুখী তেলের দর

প্রকাশ: November 29, 2020 সময়- 09:44 pm

শেয়ার বিজ ডেস্ক : অস্বাভাবিকভাবে দাম বাড়ার পর বিশ্ববাজারে স্বর্ণ ও রুপার দাম পতনের ধারায় রয়েছে। গত শনিবার মূল্যবান এ ধাতুটির দাম কমে পাঁচ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন পর্যায়ে পৌঁছায়। যুক্তরাষ্ট্রে নির্বাচনে জো বাইডেনের জয় চূড়ান্ত এবং করোনাভাইরাসের কার্যকর টিকার খবরে ‘সেফ হ্যাভেন’ বা নিরাপদ বিনিয়োগ হিসেবে পরিচিত স্বর্ণের দাম কমছে। স্বর্ণ ও রুপার এমন দুঃসময়ে তেজি হয়ে উঠেছে তেলের বাজার। অপরিশোধিত তেলের দাম আট মাসের মধ্যে সর্বোচ্চে পৌঁছায়। খবর: বিজনেস রেকর্ডার।

গত সপ্তাহে বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দাম প্রায় সাড়ে চার শতাংশ এবং রুপার দাম প্রায় সাড়ে ছয় শতাংশ কমেছে। গত সেপ্টেম্বরের পর এক সপ্তাহে এতে বড় পতনের মধ্যে আর পড়েনি স্বর্ণ ও রুপা। অপরিশোধিত তেলের দাম আট শতাংশের ওপরে এবং ব্রেন্ট ক্রুড অয়েলের দাম সাত শতাংশের ওপরে বেড়ে গেছে।

মহামারি করোনার প্রকোপের মধ্যে চলতি বছরের শুরু থেকেই বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দাম লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছিল। দাম বেড়ে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম রেকর্ড দুই হাজার ৭৪ ডলারে উঠে যায়। তবে ৭ আগস্ট থেকে কমতে থাকে স্বর্ণের দাম। ১১ আগস্ট এসে বড় পতন হয় স্বর্ণের দামে। এক দিনে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম ১১২ ডলার পর্যন্ত কমে যায়। এর পরও চলতে থাকে স্বর্ণের দরপতনের ধারা। এতে সেপ্টেম্বর মাসের শেষের দিকে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম সাড়ে এক হাজার ৮০০ ডলারের কাছাকাছি চলে আসে।

গত শনিবার যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে ফিউচার মার্কেটে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৭৮১ ডলার ৯০ সেন্টে। আগের দিনের তুলনায় এ দাম এক দশমিক তিন শতাংশ কম। একইভাবে স্পট মার্কেটে প্রতি আউন্স স্বর্ণ এক হাজার ৭৮৬ ডলার ৮৭ সেন্টে স্থির হয়। আগের দিনের তুলনায় এটি এক দশমিক তিন শতাংশ কম।

মহামারি করোনার প্রকোপের মধ্যে রুপার দামেও বড় উত্থান হয়। গত সপ্তাহে রুপার দাম বেড়ে ২০১৩ সালের মার্চের পর সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছে যায়। প্রতি আউন্স রুপার দাম ২৮ দশমিক ২৬ ডলার স্পর্শ করে। স্বর্ণের মতো রেকর্ড দামে পৌঁছে রুপার দামেও পতন শুরু হয়। গত এক সপ্তাহ বিশ্ববাজারে রুপার দাম ছয় দশমিক ৪৮ শতাংশ কমে প্রতি আউন্স রুপার দাম ২২ দশমিক ৫৮ ডলারে নেমে এসেছে। এতে গত সেপ্টেম্বরের পর এক সপ্তাহে রুপার দামে সর্বোচ্চ পতন হলো।

স্বর্ণ ও রুপার এই দরপতনের মধ্যে বাড়ছে তেলের দাম। ইতিহাসের সর্বোচ্চ দরপতনের কারণে গত ২০ এপ্রিল অপরিশোধিত তেলের দাম ব্যারেলপ্রতি ৩৭ ডলারের নিচে নেমে যায়। গত সপ্তাহের শেষে যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে প্রতি ব্যারেল অপরিশোধিত তেলের দাম আট দশমিক শূন্য দুই শতাংশ বেড়ে ৪৫ দশমিক ৫৩ ডলারে উঠেছে। এর মধ্যে গত মার্চের পর অপরিশোধিত তেলের দাম সর্বোচ্চ পর্যায়ে উঠে এসেছে। গত সপ্তাহে ব্রেন্ট ক্রুড অয়েলের দাম সাত দশমিক ১৬ শতাংশ বেড়ে ৪৮ দশমিক ১৮ ডলারে উঠে এসেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের কয়েক সপ্তাহ পেরিয়ে গেছে। বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে মতপার্থক্যের জের ধরে এতদিন নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর প্রক্রিয়া শুরু করা যায়নি। কিন্তু সম্প্রতি ট্রাম্পের সবুজ সংকেত পাওয়ার পর এই প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে। ক্ষমতা হস্তান্তরে হোয়াইট হাউসের কার্যক্রমের প্রশংসা করেন বাইডেন। নির্বাচনের এ খবরেই মূলত স্বর্ণের দামে প্রভাবে পড়ে।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের কোম্পানি ফাইজার ও মডার্নার পর এবার অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়-অ্যাস্ট্রাজেনেকা জুটির টিকার কার্যকারিতা নিয়ে আশাব্যঞ্জক ফলাফল জানা গেছে। ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের অন্তর্বর্তীকালীন প্রতিবেদন প্রকাশ করে তারা জানিয়েছে, ব্রিটেন ও ব্রাজিলের ট্রায়ালে করোনা প্রতিরোধে গড়ে ৭০ শতাংশ কার্যকর বলে প্রমাণিত হয়েছে তাদের টিকা। আর এ খবরও প্রভাব ফেলেছে বাজারে।