সারা বাংলা

পরিত্যক্ত ভবনের উপকরণ ও আসবাব আত্মসাতের অভিযোগ

পশ্চিম সৈয়দপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়

পশ্চিম সৈয়দপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়প্রতিনিধি, লক্ষ্মীপুর : লক্ষ্মীপুর সদরের পশ্চিম সৈয়দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিত্যক্ত ভবন অপসারণের নামে বিদ্যালয়ের বিভিন্ন আসবাবপত্র আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির কয়েকজন সদস্য প্রধান শিক্ষক ও পরিচালনা কমিটির সভাপতির বিরুদ্ধে সোমবার এ অভিযোগ করেন।

জানা যায়, সদর উপজেলার পশ্চিম সৈয়দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিত্যক্ত টিনশেড ভবনটি গত অর্থবছরে অপসারণ করে পাকা ভবনের কাজ শুরু করা হয়। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি সফিক উল্যাহ ও প্রধান শিক্ষক ফাতেহা ইয়াছমিন তালিকা না করে পরিত্যক্ত ভবনটির বিভিন্ন আসবাব আত্মসাৎ করেন। এর মধ্যে রয়েছে পুরাতন ভবনের প্রায় ৪০ হাজার ইট, এঙ্গেল, কাঠ, টিন, গ্রিল, দরজা ও লোহার জানালা।

আরও জানা যায়, নিলাম তালিকায় ইটের পরিমাণ এক হাজার ৭০০ দেখানো হয়েছে। এছাড়া দরজা চারটি, জানালা ১৫টি, টিন ১৮০ পিস, রড, গ্রিল, লোহার দরজা, পানির ট্যাংক ও কাঠের আসবাবপত্রসহ বেশ কিছু পণ্য নিলাম ছাড়াই সভাপতি ও প্রধান শিক্ষক লুটে নেন। এর মধ্যে কিছু আসবাবপত্র স্থানীয় বেলায়েত হোসেন নামের একজনের কাছে গোপনে বিদ্যালয়ের সভাপতি বিক্রি করেন। সভাপতি সফিক উল্যাহ রাতের আঁধারে পরিত্যক্ত বিদ্যালয় ভবনের ইট ও আসবাব সরিয়ে নিজের বাড়িতে লাগিয়েছেন।

অভিযোগের বিষয়ে কোনো কথা বলতে রাজি হননি বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি। প্রধান শিক্ষক ফাতেহা ইয়াছমিন জানান, পণ্যতালিকার বাইরের দ্রব্যাদি সম্পর্কে তার জানা নেই।

সদর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান মোল্লা জানান, ওই বিদ্যালয়ের পরিত্যক্ত ভবনের আসবাবপত্র যথাযথভাবে অন্তর্ভুক্ত না করায় ২০১৮ সালের ১৭ অক্টোবর নিলাম স্থগিত করা হয়েছিল। পরবর্তীকালে আবারও তালিকা নেওয়ার পর নিলাম ডাকা হয়েছে। কিন্তু সঠিকভাবে পণ্যদ্রব্যের তালিকা দেওয়া হয়নি। এ বিষয়ে সরেজমিনে গিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শফিকুর রিদোয়ান আরমান শাকিল জানান, ওই বিদ্যালয়ের পুরোনো দ্রব্যাদি কেউ আত্মসাৎ করলে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে। এছাড়া বিষয়টি তদন্তের জন্য উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..