বিশ্ব সংবাদ

পরিবেশ রক্ষায় ১০০ বিলিয়ন ইউরো খরচ করবে জার্মানি

শেয়ার বিজ ডেস্ক: জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব এড়াতে ২০৩০ সাল নাগাদ কার্বন নিঃসরণ কমিয়ে আনতে চায় জার্মানি। আর এ উদ্যোগ বাস্তবায়নে ১০০ বিলিয়ন ইউরো ব্যয়ের পরিকল্পনা করেছে দেশটির সরকার। অন্যদিকে জলবায়ু ঝুঁকিতে থাকা দেশগুলোকে ৬ বিলিয়ন পাউন্ডের তহবিলের ঘোষণা দিয়েছে ব্রিটেন। খবর: এএফপি ও আনাদালু এজেন্সি।
বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ২০২০ সালের মধ্যে কার্বন নিঃসরণ কমানোর লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করা জার্মানির পক্ষে সম্ভব হবে না। জাতিসংঘের জলবায়ু অ্যাকশন সামিটের আগে জলবায়ু বিপর্যয় মোকাবিলার দাবিতে গত শুক্রবার বিভিন্ন দেশে কর্মসূচি পালন করা হয়। জার্মানিতেও পালিত হয়েছে এ কর্মসূচি। এরই মধ্যে জার্মানির জোট সরকার ১৮ ঘণ্টা ধরে বৈঠক করে কার্বন নিঃসরণ ২০৩০ সালের মধ্যে কমিয়ে আনার জন্য ওই ১০০ বিলিয়ন ইউরোর তহবিল চূড়ান্ত করে। বৈঠকে দেশটির চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল ও ভাইস চ্যান্সেলর, অর্থমন্ত্রী ও এসপিডি নেতা ওলাফ শোলৎস এ বিষয়ে একমত হয়েছেন।
এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়, কার্বন নিঃসরণ কমাতে উড়োজাহাজ ভাড়া বাড়াবে এবং ট্রেনের টিকিটের দাম কমানোর কথা ভাবছে জার্মানির সরকার। রেলের অবকাঠামোতে পরিবর্তন আনতে ৮৬ বিলিয়ন ইউরো খরচ করা হবে। মের্কেল সরকার মনে করে, কার্বন নিঃসরণ কমানোয় ১০০ বিলিয়ন ইউরো খরচ করা হলেও বাজেটের ভারসাম্য নষ্ট হবে না।
এদিকে জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব মোকাবিলায় প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের উচ্চ ঝুঁকিতে থাকা দেশগুলোকে ৬০০ কোটি পাউন্ডের তহবিল দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে ব্রিটেন। বাংলাদেশে নিযুক্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসন এ তহবিলের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, বৈশ্বিক শান্তি রক্ষার অনেক উপায়ের মধ্যে একটি হচ্ছে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলা করা।
আন্তর্জাতিক শান্তি দিবস উপলক্ষে এক ভিডিওবার্তায় তিনি বলেন, ‘বিশ্বব্যাপী শান্তি বজায় রাখা এবং পরিস্থিতির আরও উন্নয়নের একটি মাধ্যম হচ্ছে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলা করা। এ কারণে বিষয়টি নিয়ে যুক্তরাজ্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।’ শান্তি ও জলবায়ুর মধ্যে একটি গভীর সংযোগ রয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

সর্বশেষ..