বিশ্ব বাণিজ্য

পর্যটন ভিসা দেওয়ার সিদ্ধান্ত সৌদি আরব সরকারের

শেয়ার বিজ ডেস্ক: প্রথমবারের মতো পর্যটন ভিসা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সৌদি আরব সরকার। গতকাল শুক্রবার দেশটি এ ঘোষণা দেয়। এর মাধ্যমে তেলকেন্দ্রিক অর্থনীতি থেকে বেরিয়ে আসার ক্ষেত্রে আরও একটি পদক্ষেপ নিল দেশটি। এর আওতায় প্রাথমিকভাবে ৪৯টি দেশ ভিসা সুবিধা পাচ্ছে এবং নারীদের পোশাকের ব্যাপারে আরোপিত কঠোরতাও শিথিল করা হচ্ছে। খবর: এএফপি, বিবিসি।
দেশটির পর্যটনমন্ত্রী আহমাদ আল খতিব এই সিদ্ধান্তকে ঐতিহাসিক হিসেবে অভিহিত করেছেন। সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের ‘ভিশন ২০৩০’ সংস্কার কর্মসূচির অন্যতম একটি বিষয় পর্যটনশিল্পকে উš§ুক্ত করে দেওয়া। বর্তমানে সৌদি আরবে ধর্মীয় কর্মকাণ্ড, ব্যবসা ও কর্মী ছাড়া অন্য ক্ষেত্রে ভিসা দেওয়ার ক্ষেত্রে কঠোরতা রয়েছে।
এ ঘোষণা এমন এক সময় দেওয়া হলো যার মাত্র দুই সপ্তাহ আগে সৌদি আরবের তেল স্থাপনায় হামলার ঘটনা ঘটে। হামলার জন্য ইরানকে দায়ী করেছে যুক্তরাষ্ট্র। অবশ্য ইরান হামলার অভিযোগ অস্বীকার করেছে। ওই হামলার পর বৈশ্বিক বাজারে তেলের দামে প্রভাব পড়েছে এবং আঞ্চলিক উত্তেজনা আরও বৃদ্ধি পাওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।
পর্যটনমন্ত্রী এক বিবৃতিতে বলেন, পর্যটকদের জন্য সৌদি আরবের দ্বার উম্মুক্ত করা এক ঐতিহাসিক মুহূর্ত। প্রাকৃতিক ও ঐতিহ্যবাহী স্থাপনা বা স্থানগুলো দেখে দর্শনার্থীরা মুগ্ধ হবেন। আমাদের রয়েছে ইউনেসকোর পাঁচটি বিশ্ব ঐতিহ্য, আকর্ষণীয় সংস্কৃতি ও অসাধারণ প্রাকৃতিক সৌন্দর্য।’ খতিব বলেন, বিদেশি নারীদের জন্য পোশাকের কঠোর নীতি শিথিল করবে সরকার। তবে তাদের ‘মার্জিত পোশাক’ পরতে হবে।
এ সিদ্ধান্তের মাধ্যমে দেশটির পর্যটন খাতে ব্যাপক বিনিয়োগ আসবে বলে আশা করছে সৌদি আরব সরকার। ২০৩০ সালের মধ্যে এ খাত থেকে জিডিপিতে ১০ শতাংশ অবদান থাকবে বলে দেশটি প্রত্যাশা করছে। বর্তমানে সৌদি আরবের জিডিপিতে পর্যটন খাতের অবদান মাত্র তিন শতাংশ। সৌদি আরবের পবিত্র নগরী মক্কা ও মদিনায় প্রবেশে বিধিনিষেধ রয়েছে। এছাড়া অ্যালকোহল পানেও রয়েছে কঠোরতা।

সর্বশেষ..