প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

পর্যটন শিল্প বিকাশে তরুণ চিত্রগ্রাহকদের দায়িত্ব

রূপবৈচিত্র্যে ঘেরা আমাদের বাংলাদেশ। চারদিকে সবুজ সোনার ফসল পাশে বয়ে চলা আঁকাবাঁকা নদ-নদী, খাল-বিল, হাওর কোথাও আবার উঁচুনিচু পাহাড়-টিলা এ দেশকে দিয়েছে ভিন্নমাত্রা। এদেশের বৈচিত্র্যময় প্রাকৃতিক পরিবেশ মুগ্ধ করে দেশি-বিদেশি পর্যটকদের। বারবার টেনে নিয়ে আসে তার রূপের জগতে হারিয়ে দিতে। বর্তমান সময়ে যখন বেকারত্বের হার ক্রমেই বেড়ে যাচ্ছে, তখন ফটোগ্রাফি আমাদের তরুণদের আশাবাদী করে। অনেক তরুণ কোথাও ঘুরতে গেলে ছবি তুলে ফেসবুকে আপলোড দেয় কিংবা পত্রিকা অফিসে পাঠায়।

অনেকে ছবি তুলে অর্থ উপার্জন করেন। তরুণরা চাইলে ফটোগ্রাফির মাধ্যমে নিজেদের নাম বেকারের খাতা থেকে কেটে ফেলতে পারে। বাংলাদেশ প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের আধার। এদেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যময় স্থানগুলো ফটোগ্রাফির মাধ্যমে যদি তুলে ধরা যায়, তাহলে বিদেশি পর্যটকরা আমাদের দেশে ভ্রমণ করতে আগ্রহী হবে। তাছাড়া আজকাল বিভিন্ন অনুষ্ঠানে ফটোগ্রাফারদের আমন্ত্রণ জানানো হয়। তারা ছবি তুলে দিয়ে কিংবা ভিডিও ডকুমেন্টারি তৈরি করে মানুষের হƒদয় জয় করে থাকে।

পর্যটনকেন্দ্রগুলোতে পর্যটকরা তাদের আনন্দময় মুহূর্তগুলো, স্মৃতিটুকু ক্যামেরাবন্দি করতে চায়। তারা আনন্দের পাশাপাশি চায় স্মৃতিগুলোকে ফ্রেমবন্দি করে রাখতে। পর্যটন এলাকায় অনেক ফটোগ্রাফার দেখা যায়। পর্যটকদের ছবি তুলে দিতে তাদের যেমনি আনন্দ হয়, তেমনি পর্যটকরাও পারে মনমতো ছবি তুলতে। দুঃখের বিষয় হলো, অনেক ফটোগ্রাফারকে দেখা যায় পর্যটকদের ছবি তুলে দিয়ে অতিরিক্ত টাকা আদায় করতে;  যা কখনো কাম্য নয়। পর্যটন এলাকায় ফটোগ্রাফারদের হতে হবে সৎ ও দক্ষ। কাউকে জিম্মি করে অতিরিক্ত টাকা হাতিয়ে নেয়া ভালো ফটোগ্রাফারের কাজ নয়। তাই এক্ষেত্রে আমাদের সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। হতে হবে নিষ্ঠাবান ও মিষ্টভাষী। ফটোগ্রাফির মাধ্যমে উদ্ভিদ,  জীব, প্রকৃতি প্রভৃতির ছবি তুলে তা বিভিন্ন গবেষণার কাজে লাগানো যায়। অনেক প্রকৃতিবিষয়ক লেখক বিভিন্ন পাখি, বৃক্ষ, ফুল প্রভৃতির ছবি তুলে পত্রিকায় দেন। পত্রিকার পাতায় হাত বুলালে তাদের লেখা ও ছবি দেখা যায়; যা আমাদের অনেক কিছু শিখতে সাহায্য করে।

তরুণদের ফটোগ্রাফিতে অধিক আগ্রহ আমাদের আশান্বিত করে। কথায় আছে, ছবি মনের কথা বলে। একটি ছবি শুধু মুগ্ধই করে না, ভাবনার জগতে হারিয়ে যেতে সাহায্য করে। সম্প্রতি আমাদের ক্যাম্পাসে ছবি প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। সেখানকার বিচিত্র ছবি যেন ফ্রেমবন্দি নয়। মনে হয়েছিল, প্রতিটি ছবি প্রাণবন্ত!

বাংলাদেশ প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি। এদেশের আঁকাবাঁকা নদ-নদী, ফসলের ক্ষেত প্রভৃতি ফটোগ্রাফির মাধ্যমে দেশ ও দেশের বাইরের পর্যটকদের কাছে তুলে ধরতে হবে। দেশের সম্ভাবনাময় পর্যটন শিল্পকে বিশ্বের মাঝে তুলে ধরা এখন সময়ের দাবি। পর্যটন শিল্পকে এগিয়ে নিয়ে যেতে তরুণ ফটোগ্রাফারদের এগিয়ে আসতে হবে।

মারুফ হোসেন

শিক্ষার্থী, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়