পশ্চিম তীরে আরও ১৩৫৫ বাড়ি নির্মাণের ঘোষণা ইসরাইলের

শেয়ার বিজ ডেস্ক: দখল করা পশ্চিম তীরে আরও ইহুদি বসতি স্থাপনের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছে ইসরাইল। স্থানীয় সময় রোববার ইসরাইলের গৃহায়ণ মন্ত্রণালয় জানায়, পশ্চিম তীরে আরও এক হাজার তিনশ’র বেশি বাড়ি নির্মাণ করবে। আরও বসতি স্থাপনের এ ঘোষণা আসার পর ফিলিস্তিন, মানবাধিকারকর্মী ও প্রতিবেশী জর্ডান এর নিন্দা জানিয়েছে। খবর: আল জাজিরা।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, রোববার এ ঘোষণা দিয়ে ইসরাইলের কট্টর ডানপন্থি প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেনেটের সরকার জানায়, পশ্চিম তীরে এক হাজার ৩৫৫টি বাড়ি নির্মাণের জন্য তারা টেন্ডার প্রকাশ করেছে। ১৯৬৭ সালে ছয় দিনের আরব-ইসরাইল যুদ্ধের সময় পশ্চিম তীর দখল করে ইসরাইল।

দুই হাজারের বেশি বাসিন্দা থাকবে নতুন বসতিগুলোয়। গত আগস্টে পশ্চিম তীরে এসব বসতি নির্মাণের অনুমোদন দেয় ইসরাইল সরকার।

ইসরাইলের গৃহায়নমন্ত্রী জিভ এলকিন ডানপন্থি দল নিউ হোপ পার্টির সদস্য। তিনি এক বিবৃতিতে বলেন, ইহুদিবাদী দৃষ্টিভঙ্গি কার্যকরের জন্য (পশ্চিম তীরে) ইহুদিদের উপস্থিতি জোরদার করা জরুরি।

ফিলিস্তিনের প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ শাতায়াহ এর নিন্দা জানিয়েছেন। সাপ্তাহিক মন্ত্রিসভার বৈঠকে তিনি ইসরাইলের এ বসতি নির্মাণকে ফিলিস্তিনিদের ওপর ‘আগ্রাসন’ বলেও বর্ণনা করেন। এ সময় ইসরাইলি আগ্রাসন ঠেকাতে বিশ্বের অন্যান্য দেশ বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

গত শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র নেড প্রাইস বলেন, বসতি নির্মাণের এ পরিকল্পনা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র উদ্বিগ্ন। যেকোনো একতরফা পদক্ষেপ নেয়া থেকে ইসরাইল ও ফিলিস্তিনকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, এমন পদক্ষেপ উত্তেজনা বাড়াবে এবং এতে করে দ্বিরাষ্ট্র সমাধানে অগ্রগতি থমকে যাবে।

প্রসঙ্গত, পশ্চিম তীরে প্রায় পৌনে পাঁচ লাখ ইসরাইলি ইহুদির বাস। আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী, এটাকে অবৈধ বলে বিবেচনা করা হয়। এছাড়া এ পশ্চিম তীর নিয়েই একতরফা তারা ভবিষ্যৎ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন দেখে।


সর্বশেষ..