দিনের খবর প্রচ্ছদ প্রথম পাতা

পাওনা পরিশোধের খবরে চাঙা গ্রামীণফোনের শেয়ার

নিজস্ব প্রতিবেদক: আদালতের নির্দেশ মেনে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনকে (বিটিআরসি) এক হাজার কোটি টাকা পরিশোধ করছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত গ্রামীণফোন। এই খবরে চাঙা হয়েছে প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারদর। গতকাল এক কার্যদিবসেই প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারদর বেড়েছে প্রায় আট শতাংশ। প্রতি শেয়ারের দর বাড়ে ২২ টাকা ৪০ পয়সা। এর আগের দুই কার্যদিবসেও প্রায় সমপরিমাণ দর বাড়ে।

তিন কার্যদিবসের ব্যবধানে দর ২৬৪ টাকা থেকে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩১৯ টাকা ৬০ পয়সা। অর্থাৎ তিন কার্যদিবসের ব্যবধানে দর বেড়েছে ৫৫ টাকা ৬০ পয়সা।

গতকাল বিকালে বিটিআরসির চেয়ারম্যান জহুরুল হকের কাছে গ্রামীণফোনের হেড অব রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স হোসেন সাদাতসহ কর্মকর্তারা এক হাজার কোটি টাকার পে-অর্ডার হস্তান্তর করেন।

এর আগে বুধবার আপিল বিভাগ সোমবারের মধ্যে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনকে (বিটিআরসি) এক হাজার কোটি টাকা পরিশোধ করতে নির্দেশ দেন। একই সঙ্গে গ্রামীণফোনের রিভিউ আবেদনের ওপর আদেশের জন্য দিন ধার্য রাখেন আপিল বিভাগ।

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন সাত সদস্যের আপিল বিভাগ ওই নির্দেশ দেন। এরপরই গ্রামীণফোনের পক্ষ থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, তারা রোববার বিটিআরসিকে এক হাজার কোটি টাকা পরিশোধ করবে।

এর আগে গত বছরের ২৪ নভেম্বর দেশের সর্বোচ্চ আদালত বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) নিরীক্ষা দাবির সাড়ে ১২ হাজার কোটি টাকার মধ্যে দুই হাজার কোটি টাকা তিন মাসের মধ্যে পরিশোধ করতে সময় বেঁধে দিয়েছিলেন। আপিল বিভাগের এই আদেশ পুনর্বিবেচনা (রিভিউ) চেয়ে গ্রামীণফোন আবেদন করে।

এর আগে চলতি বছরের এপ্রিলে বড় অঙ্কের বকেয়ার তথ্য সামনে আসার পর থেকেই পুঁজিবাজারে গ্রামীণফোন নিয়ে টানাপড়েন শুরু হয়। এরপর থেকে নিয়ন্ত্রক সংস্থার বিভিন্ন পদক্ষেপের খবরে দর হারাতে থাকে কোম্পানিটির শেয়ারের। বকেয়া পরিশোধ না করলে গ্রামীণফোনের লাইসেন্স বাতিল হতে পারেÑএমন খবরে গ্রামীণফোনের শেয়ারদর আশঙ্কাজনক হারে যায়।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন
ট্যাগ »

সর্বশেষ..