স্পোর্টস

পাকিস্তানের আতিথেয়তায় মুগ্ধ শ্রীলঙ্কা

ক্রীড়া ডেস্ক: নিরাপত্তা শঙ্কায় কোনো দলই পাকিস্তান সফরে যেতে চায় না। তবে দ্বিতীয় সারির দল নিয়ে এবার দেশটিতে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ নির্বিঘ্নে শেষ করেছে শ্রীলঙ্কা। গত পরশুই তো স্বাগতিকদের তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টিতে হোয়াইটওয়াশের লজ্জা দিয়েছে লঙ্কানরা। শেষ ম্যাচ জেতার পরপরই পাকিস্তানের আতিথেয়তায় মুগ্ধতার কথা জানিয়েছেন সফরকারী কোচ রুমেশ রত্নায়েক। শুধু তা-ই নয়, তিনি দৃঢ় কণ্ঠে জানিয়েছেন, এ সফল সফর ভবিষ্যতে অন্য দলকে পাকিস্তানে যেতে প্রভাবিত করবে।
ওয়ানডেতে ২-০ তে হারলেও টি-টোয়েন্টিতে প্রথমবার হোয়াইটওয়াশে জিতেছে শ্রীলঙ্কা। এ সফর কোনো বাধাবিঘ্ন ছাড়া শেষ হওয়ায় আত্মবিশ্বাসী রত্নায়েক, ‘এ সফর পুরো বিশ্বের জন্য একটা বার্তা, বিশেষ করে ভবিষ্যতের শ্রীলঙ্কানদের জন্য। এটা খুব নির্বিঘ্নে শেষ হলো। পাকিস্তানে আমাদের খেলা অন্য দেশগুলোকেও এখানে আসতে উৎসাহিত করবে।’
পাকিস্তানের আতিথেয়তায় মুগ্ধ রত্নায়েক। যে কারণে তার খুব ভালো লাগছে, ‘পাকিস্তানের এমন আতিথেয়তা পাওয়া সত্যিই দারুণ ব্যাপার। অনেক দিন পর এমন অভিজ্ঞতা হলো, এমনকি অনেক ভালো। আমাদের এখানে আতিথেয়তা দিতে অনেক পরিশ্রম করতে হয়েছে, নিরাপত্তা ব্যবস্থা ছিল অভাবনীয়। আমাদের কয়েকজন সংশয়ে থাকলেও আমি প্রত্যেকটা মুহূর্ত উপভোগ করেছি। কিন্তু এখন সব সংশয় কেটে গেছে, এটা বাস্তবায়ন করায় আপনাদের ধন্যবাদ।’
শ্রীলঙ্কা একসময় টেস্টও খেলবে পাকিস্তানের মাটিতে। পাকিস্তান সফর বয়কট করা লঙ্কান খেলোয়াড়দের উদ্দেশ্যে রত্নায়েক বার্তা দিয়েছেন, ‘এখানে খেলা নিরাপদ। আমরা এটা তাদের কাছে ব্যাখ্যা করব। তারা হয়তো দেখেছেও। আমরা যতখানি সম্ভব তাদের প্রভাবিত করার চেষ্টা করব। কিন্তু কাউকে জোর করব না। আশা করি এ সিরিজ সফল হওয়ায় তারা মন পাল্টাবে।’
রত্নায়েক যখন লঙ্কানদের হয়ে পাকিস্তানের মাটিতে খেলেছিলেন, ঠিক তেমনই দর্শক দেখেছেন এবারও, ‘৩০ বছর আগের মতোই দর্শক উপস্থিতি ছিল, কিছু পাল্টায়নি। তাদের হাতে ‘স্বাগতম শ্রীলঙ্কা’ লিখা ব্যানার আমার মনকে স্পর্শ করেছে। তাদের ভালোবাসা ছিল আপ্লুুত করার মতো।’

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..