প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

পায়রা সেতুতে যান চলাচল শুরু উচ্ছ্বসিত বরিশালের চালক-যাত্রী

আরিফ হোসেন, বরিশাল: গতকাল রোববার সকাল ১০টার দিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে পটুয়াখালীর দুমকী উপজেলার লেবুখালীতে পায়রা নদীর ওপর পায়রা সেতু উদ্বোধন করেন। আনুষ্ঠানিকতা শেষে দুপুর সোয়া ১২টার দিকে সেতুতে যাত্রীবাহী বাস চলাচল শুরু হয়।

তবে এর আগে পটুয়াখালী প্রান্তের ডিজিটাল টোল প্লাজা দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রথম গাড়ি নিয়ে সেতুতে ওঠেন সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মো. আবদুস সবুর। পায়রা সেতুতে প্রথম টোল দেয়া যাত্রীবাহী বাসের চালক মো. ছাত্তার বলেন, উদ্বোধনের পর সেতুতে উঠতে পেরে বেশ ভালো লেগেছে।

তবে ফেরির চেয়ে সেতুতে টোলের পরিমাণ বেশি। যান চলাচল শুরু হওয়ার পর সেতুটি পার হওয়ার সময় দক্ষিণাঞ্চলের এ রুটের চালক-শ্রমিক ও যাত্রীদের বেশ উচ্ছ্বাস দেখা গেছে।

এদিকে সেতুতে যান চলাচল শুরু হওয়ার আগে সকালে লেবুখালী ফেরিঘাটে চারটি ফেরি শেষবারের মতো চলাচল করেছে।

সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রে জানা গেছে, পায়রা সেতু বরিশাল বিভাগের প্রথম বেশি প্রস্থের (১৯ দশমিক ৭৬ মিটার) চার লেনের সেতু। দেশের মধ্যে এ সেতুতে প্রথমবারের মতো ‘হেলথ মনিটরিং সিস্টেম’ সংযোজন করা হয়েছে। ফলে বিভিন্ন দুর্যোগ বা ওভারলোডেড গাড়ি চলাচলের ফলে ব্রিজের যাতে কোনো ক্ষতি না হয় তার (ক্ষতির) পূর্বাভাস পাওয়া যাবে।

পায়রা সেতু নির্মাণ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মো. আব্দুল হালিম বলেন, এক্সট্রা ডোজ কেব্ল স্টেট পদ্ধতিতে নির্মিত ১ হাজার ৪৭০ মিটার দৈর্ঘ্য এবং ১৯ দশমিক ৭৬ মিটার প্রস্থের পায়রা সেতুটি বাংলাদেশে দ্বিতীয়। চট্টগ্রামের কর্ণফুলী সেতুর মতো এখানেও ২০০ মিটারের লং লেন্থ স্প্যান রয়েছে। এ সেতুর বিশেষত্বের মধ্যে একটি হচ্ছে সব থেকে ‘ডিপেস্ট ফাউন্ডেশন’। ১৩০ মিটার পাইলবিশিষ্ট সেতু এটি, যা পদ্মা সেতুর ক্ষেত্রেও করা হয়েছে। তবে পদ্মা সেতুর আগে এটা হয়েছে।

বরিশাল বিভাগ উন্নয়ন ফোরামের সাধারণ সম্পাদক মো. আতিকুর রহমান আতিক বলেন, পায়রা সেতুতে বদলে যাবে বরিশাল বিভাগের চিত্র। বিশেষ করে পর্যটন কেন্দ  সাগরকন্যা কুয়াকাটা ও পায়রা বন্দরকে ঘিরে নতুন সম্ভাবনা সৃষ্টি হবে। সেতুতে যান চলাচলের মধ্য দিয়ে এখানকার অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি, ব্যবসার প্রসার, পর্যটনশিল্পের বিকাশ এবং আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ঘটবে।

কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট বলরাম পোদ্দার বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগে জনগুরুত্বপূর্ণ লেবুখালী ফেরিঘাটে (পায়রা নদীর ওপর) সেতু নির্মিত হয়েছে।

বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট তালুকদার মো. ইউনুস বলেন, ভবিষ্যতে গোটা বরিশাল বিভাগ দেশের অন্যতম অর্থনৈতিক করিডোর হিসেবে আবির্ভূত হবে। বরিশালের বিভাগীয় কমিশনার মো. সাইফুল হাসান বাদল বলেন, দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের স্বপ্নের পায়রা সেতু অত্যন্ত নান্দনিক নকশায় নির্মাণ করা হয়েছে। সেতুটি এ অঞ্চলের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধিতে সহায়ক ভূমিকা রাখবে।

উদ্বোধনী ঘোষণার আগে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব মো. নজরুল ইসলাম বলেন, করোনার ঝুঁকিতেও এ সেতুর কাজ অব্যাহত রাখতে সংশ্লিষ্ট সবাই সচেষ্ট ছিলেন। সময়বর্ধন ও নানা জটিলতার মধ্যেও প্রকল্পের পূর্ত কাজের চুক্তি মূল্য থেকে ৫২ কোটি ২৫ লাখ টাকা সাশ্রয় হয়েছে। নির্মাণশৈলীর দিক থেকে নান্দনিক শোভামণ্ডিত এ সেতুটি ইতোমধ্যে স্থানীয় মানুষের নজর কেড়েছে। বিশেষ করে রাতের আলোকিত সেতু মানুষকে বেশ আকৃষ্ট করেছে।

১৮ বছর লেবুখালীতে ফেরি চালিয়েছেন জাকির হাওলাদার। পায়রা সেতুতে গাড়ি চলাচল শুরু হওয়ায় গতকাল থেকে এ নৌপথে শেষবারের মতো ফেরি চালিয়েছেন তিনি। এই দক্ষ চালকের হাত ধরে শেষ হলো একটি অধ্যায়ের। তিনি বলেন, এখন বগায় ফেরি চালাতে হবে।

সেতুতে প্রথম টোল দিয়ে উঠেছে ডলফিন পরিবহনের একটি বাস। সেতুর উদ্বোধনের জন্য প্রশাসনের গাড়িগুলো পার হওয়ার পর সেতুতে ওঠে কুয়াকাটা থেকে বরিশালগামী যাত্রীবাহী এ বাসটি। বাসের চালক আব্দুস সাত্তার বলেন, সব সময় ফেরিতেই পায়রা নদী পাড়ি দিতাম। সেতু উদ্বোধনের দিন সেতুতে ওঠার প্রথম সুযোগ হারাতে চাইনি। আমি প্রথম বাস নিয়ে সেতু দিয়ে এসেছি। তবে টোলের টাকা বেশি বলে তিনি কিছুটা হতাশ হয়ে বলেন, পায়রা সেতুতে প্রথম টোল হিসাবে আমি ৩৪০ টাকা দিয়েছি। ফেরির চেয়ে এ টোলের খরচ বেশি। তাই টোলের টাকা কমানোর জন্য সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে জোর দাবি করছি।

সেতুর টোল প্লাজার কর্মী সজীব দাস বলেন, গতকাল সকাল থেকে ফেরি দিয়েই যানবাহন পার হচ্ছিল। সেতুর উদ্বোধনের ঘণ্টা খানেক পর টোল প্লাজা খুলে দেয়া হয়। এরপর থেকে সেতু দিয়েই গাড়ি চলাচল করছে।

উল্লেখ্য, বরিশাল বিভাগে এই প্রথম ফোর লেনের সেতু নির্মিত হয়েছে। আর এ সেতু পারাপারের টোল আদায়ে যে ডিজিটাল টোলপ্লাজা নির্মাণ করা হয়েছে, সেটিও প্রথমবারের মতো বিভাগের কোনো সেতুতে সংযুক্ত হয়েছে। এছাড়া সেতুর বরিশালপ্রান্তে ওজন স্কেল বসানো হয়েছে।