দিনের খবর প্রচ্ছদ প্রথম পাতা

পুঁজিবাজারেও লেনদেন বন্ধ থাকবে ১০ দিন

মুস্তাফিজুর রহমান নাহিদ: বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। দিন যত যাচ্ছে ততই এর প্রাদুর্ভাব আরও বাড়ছে। এরই মধ্যে বিশ্বের ১৮৯টি দেশ এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। ভাইরাসটি আঘাত হেনেছে বাংলাদেশেও। ফলে সারা দেশে সর্বস্তরেই বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করা হচ্ছে। ঘোষণা করা হয়েছে সাধারণ ছুটি। এরই ধারাবাহিকতায় পুঁজিবাজারেও ১০ দিন লেনদেন বন্ধ থাকবে। গতকাল এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

করোনাভাইরাস রোধে সতর্কতা অবলম্বন করার জন্য সোমবার সরকারের পক্ষ থেকে সাপ্তাহিক ছুটিসহ সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। এ সময়ে পুঁজিবাজারও বন্ধ থাকবে বলে শেয়ার বিজকে নিশ্চিত করেছেন ডিএসইর পরিচালক রকিবুর রহমান। তিনি বলেন, অন্যান্য অফিসের মতো সাধারণ ছুটির আওতায় পুঁজিবাজারও বন্ধ থাকবে। অর্থাৎ অন্যান্য অফিসে যেদিন কার্যক্রম শুরু হবে, সেদিন থেকে পুঁজিবাজারে লেনদেনও চালু হবে।

এদিকে গত ৮ মার্চ দেশে করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর থেকে পুঁজিবাজারের চলমান পতন আরও বড় হতে শুরু করে। এক দিনে সূচকে প্রায় সাত শতাংশের মতো পতনের ঘটনা ঘটতে দেখা যায়। ফলে তখন থেকেই ব্রোকারেজ হাউস ফাঁকা হতে শুরু করে। পরে করোনায় একজনের মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর বিনিয়োগকারীরা এখন বাজারে আসা ছেড়েই দিয়েছেন, কিন্তু যারা আসছেন তাদের জন্য সতর্কতা অবলম্বন করছে হাউস কর্তৃপক্ষ। প্রতি হাউসেই বিনিয়োগকারীদের জন্য হ্যান্ড সেনিটাইজার রাখা হয়েছে। অনেক হাউস থেকে বিনিয়োগকারীদের টেলিফোনে লেনদেন করার পরমর্শ দেওয়া হচ্ছে। কারণ এতে ঝুঁকি কম।

এ বিষয়ে আনোয়ার সিকিউরিটিজের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আজম খান বলেন, ‘আমরা হাউসে বিনিয়োগকারীদের জন্য সেনিটাইজার রেখেছি, যাতে তারা জীবাণুমুক্ত হয়ে হাউসে প্রবেশ করতে পারে। তবে হাউসে এমনিতেই উপস্থিতি কমে গেছে। সবাই এখন পুঁজির কথা না ভেবে নিজের লাইফ সেফ করার কথা ভাবছেন।’

এদিকে বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করা হচ্ছে কোম্পানিগুলোতেও। বেশিরভাগ কোম্পানিতেই বোর্ড সভা বন্ধ রয়েছে। এই লক্ষ্যে গতকাল তালিকাভুক্ত তিন কোম্পানির বোর্ড সভা স্থগিত করা হয়েছে। কোম্পানিগুলো হচ্ছে এশিয়া ইন্স্যুরেন্স, ব্র্যাক ব্যাংক ও ইস্টার্ন ব্যাংক। ডিএসই সূত্রে বিষয়টি জানা গেছে।

জানা গেছে, সম্ভাব্য করোনা মহামারি থেকে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে কোম্পানি তিনটি লভ্যাংশ-সংক্রান্ত বোর্ড সভা স্থগিত করা হয়েছে। পরে কোম্পানি তিনটির বোর্ড সভার তারিখ ও সময় জানিয়ে দেওয়া হবে। এর আগে ইস্টার্ন ব্যাংকের বোর্ড সভার তারিখ ছিল ২৯ মার্চ। এছাড়া ব্র্যাক ব্যাংকের ২৫ মার্চ এবং এশিয়া ইন্স্যুরেন্সের বোর্ড সভার তারিখ ৩১ মার্চ নির্ধারণ করা হয়েছিল।

এদিকে নতুন সার্কিট ব্রেকার দেওয়াতে পতন থেমেছে পুঁজিবাজারে। এতে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন বিনিয়োগকারীরা। তবে এটা দীর্ঘমেয়াদি থাকবে এমন প্রত্যাশা করছেন তারা। বিনিয়োগকারীরা জানান, হঠাৎ যদি আবার এই নিয়ম তুলে দেওয়া হয়, তাহলে বাজারে আবারও পতন নেমে আসবে। এতে লোকসানও বাড়বে।

বিনিয়োগকারীরা বলছেন, করোনাভাইরাস নিয়ে বড় ধরনের আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। এ কারণে দেশি-বিদেশি সব ধরনের বিনিয়োগকারীরা শেয়ার বিক্রির চাপ বাড়িয়েছেন, যার ফলে পুঁজিবাজারে বড় দরপতন হচ্ছিল। কিন্তু এই নতুন এই নিয়ম পতন থেমেছে। তবে এটা দীর্ঘমেয়াদি থাকা জরুরি।

পতন ঠেকাতে ১৯ মার্চ থেকে নিয়ম করা হয়। যে কোনো কোম্পানির শেয়ার লেনদেন শুরু হবে সর্বশেষ পাঁচ কার্যদিবসের গড় ক্লোজিং দর দিয়ে। আর ওই দরের নিচে শেয়ারের দাম নামতে পারবে না। তবে দাম বাড়ার সীমার আগের নির্দেশনা অপরিবর্তিত থাকবে। তবে ওইদিন দর নির্ধারণে কিছু সমস্যা ছিল, রোববার যা ঠিক করে দেওয়া হয়।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..