কোম্পানি সংবাদ

পুঁজিবাজারে ইতিবাচক গতিতে লেনদেন শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক: পুঁজিবাজারে ঈদের ছুটি শেষে ইতিবাচক গতিতে লেনদেন শুরু হয়েছে। লেনদেন না বাড়লেও সূচক ও শেয়ারদরে ছিল ইতিবাচক গতি। ঈদের পর গতকাল লেনদেন শুরু হলেও বিনিয়োগকারীরা এখনও পুরোদমে সক্রিয় হননি, যে কারণে লেনদেনে গতি ছিল না। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেনের শুরুতে সূচকের উত্থান হলেও এরপর ক্রমেই নেমে যায় সূচক। বারবার ওঠানামা করতে করতে শেষদিকে শেয়ার কেনার চাপ বাড়লে প্রধান সূচক ১৫ পয়েন্ট ইতিবাচক হয়। বাকি দুই সূচকও ইতিবাচক ছিল। ডিএসইতে ৫২ শতাংশ কোম্পানির শেয়ারদর বেড়েছে। কমেছে ৩৫ শতাংশের দর। অন্যদিকে চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক, শেয়ারদর ও লেনদেনে একই চিত্র দেখা গেছে।
বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১৫ দশমিক ১১ পয়েন্ট বা দশমিক ২৯ শতাংশ বেড়ে পাঁচ হাজার ২১৬ দশমিক ৫৩ পয়েন্টে অবস্থান করে।
ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক পাঁচ দশমিক ৩৪ পয়েন্ট বা দশমিক ৪৪ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ১৯৭ দশমিক ৫৬ পয়েন্টে অবস্থান করে। আর ডিএস৩০ সূচক চার দশমিক ০৪ পয়েন্ট বা দশমিক ২২ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ৮৪১ দশমিক ৭৯ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন তিন লাখ ৮৭ হাজার ৫৩২ কোটি ৩৮ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৪ টাকা হয়। ডিএসইতে লেনদেন হয় ৩২৩ কোটি ৭০ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৪১০ কোটি ৫৬ লাখ ৩০ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসেবে লেনদেন কমেছে ৮৬ কোটি ৮৬ লাখ টাকা। এদিন ৯ কোটি ছয় লাখ ১৭ হাজার ৩৩৭টি শেয়ার এক লাখ তিন হাজার ৩২০ বার হাতবদল হয়। লেনদেন হওয়া ৩৫২ কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৮৪টির, কমেছে ১২৩টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৪৫টির দর।
গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে খুলনা পাওয়ার। কোম্পানিটির ২৪ কোটি ৬৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে এক টাকা ৯০ পয়সা। জেএমআই সিরিঞ্জের ১৩ কোটি ৭৯ লাখ টাকা লেনদেনের পাশাপাশি দর বেড়েছে ১১ টাকা ২০ পয়সা। তৃতীয় অবস্থানে থাকা ইউনাইটেড পাওয়ারের ১২ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে এক টাকা ৬০ পয়সা। বীকন ফার্মার ৯ কোটি ৯৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে এক টাকা ১০ পয়সা। মুন্নু সিরামিকের ৯ কোটি ৬৯ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে চার টাকা ৮০ পয়সা। এছাড়া কপারটেকের সোয়া সাত কোটি টাকা, গ্লোবাল ইন্স্যুরেন্সের সাড়ে ছয় কোটি টাকা, ডরিন পাওয়ারের সোয়া ছয় কোটি টাকা, ফরচুন সুজের প্রায় ছয় কোটি টাকা, বাংলাদেশ সাবমেরিন কেব্লসের সাড়ে পাঁচ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।
১০ শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে এসিআই ফরমূলেমন। প্রাইম ফাইন্যান্স ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ডের দর ১০ শতাংশ, ইস্টার্ন ইন্স্যুরেন্সের দর প্রায় ১০ শতাংশ, এসইএমএলএফবিএসএল গ্রোথ ফান্ডের দর ৯ দশমিক ৬৭ শতাংশ, এসইএমএলআইবিবিএল শরিয়াহ্ ফান্ডের দর ৯ দশমিক ৩০ শতাংশ, এসিআই লিমিটেডের দর আট দশমিক ৭৩ শতাংশ, গ্লেবাল ইন্স্যুরেন্সের দর আট দশমিক ৬২ শতাংশ, সোনারবাংলা ইন্স্যুরেন্সের দর আট দশমিক ৬২ শতাংশ ও লিবরা ইনফিউশনের দর সাড়ে সাত শতাংশ বেড়েছে।
অন্যদিকে আট দশমিক ৮৬ শতাংশ কমে দরপতনের শীর্ষে উঠে আসে ভিএফএস থ্রেড। ঢাকা ডায়িংয়ের দর সাত দশমিক ৮৯ শতাংশ, ফারইস্ট ফাইন্যান্সের দর পাঁচ দশমিক ৮৮ শতাংশ, বিচ হ্যাচারির দর তিন দশমিক ৮৪ শতাংশ, হামিদ ফেব্রিক্সের দর তিন দশমিক ৮০ শতাংশ, সোনারগাঁও টেক্সটাইলের দর তিন দশমিক ৩৩ শতাংশ, ইন্টারন্যাশনাল লিজিং ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেসের দর তিন দশমিক ১২ শতাংশ, তুংহাই নিটিংয়ের দর তিন দশমিক ০৩ শতাংশ, শেফার্ড ইন্ডাস্ট্রিজের দর তিন দশমিক ০১ শতাংশ ও প্রিমিয়ার লিজিংয়ের দর দুই দশমিক ৮৫ শতাংশ কমেছে।
সিএসইতে গতকাল সিএসসিএক্স মূল্যসূচক ৩৫ দশমিক ২০ পয়েন্ট বা দশমিক ৩৬ শতাংশ বেড়ে ৯ হাজার ৬৯৬ দশমিক ১০ পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৬০ দশমিক ৬৯ পয়েন্ট বা দশমিক ৩৮ শতাংশ বেড়ে ১৫ হাজার ৯৫৭ দশমিক ৩৯ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল সর্বমোট ২৪৫টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১২৪টির, কমেছে ৮৫টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৩৬টির দর।
সিএসইতে এদিন ১৫ কোটি পাঁচ লাখ ৯২ হাজার ৩৯৯ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ১৬ কোটি ৮১ লাখ তিন হাজার ৮৫৭ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসাবে লেনদেন কমেছে এক কোটি ৭৫ লাখ টাকা। সিএসইতে গতকাল লেনদেনের শীর্ষে অবস্থান করে ডরিন পাওয়ার। কোম্পানিটির দুই কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। এরপর সিনোবাংলা ইন্ডাস্ট্রিজের এক কোটি ১৬ লাখ টাকার, বীকন ফার্মার ৯৮ লাখ টাকার, খুলনা পাওয়ারের ৯৭ লাখ টাকার, কপারটেকের ৭৬ লাখ টাকার ও ভিএফএস থ্রেডের ৫৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

সর্বশেষ..