প্রচ্ছদ শেষ পাতা

পেঁয়াজের ঝাঁজে বাড়ল মূল্যস্ফীতি

নিজস্ব প্রতিবেদক: নভেম্বরে আগের মাসের তুলনায় মূল্যস্ফীতি বেড়েছে। অক্টোবরে পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে সাধারণ মূল্যস্ফীতি ছিল পাঁচ দশমিক ৪৭ শতাংশ; গত মাসে যা বেড়ে হয়েছে ছয় দশমিক শূন্য পাঁচ শতাংশ। এক মাসের ব্যবধানে মূল্যস্ফীতি বেড়েছে দশমিক ৫৮ শতাংশীয় পয়েন্ট। রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক সভা শেষে এ তথ্য জানান পরিকল্পনা মন্ত্রী এমএ মান্নান। পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব সৌরেন্দ্রনাথ চক্রবতী এবং বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর মহাপরিচালক তাজুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

মন্ত্রী জানান, নভেম্বরে মূল্যস্ফীতি বেড়েছে। এখানে লুকোচুরির কিছু নেই। আর মূল্যস্ফীতি বৃদ্ধিতে প্রধান ভূমিকা রেখেছে পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি। তিনি বলেন, ‘পেঁয়াজের দাম এবং সবজির দাম কমলে মূল্যস্ফীতি কমে যাবে। আমরা তাই করার চেষ্টা করছি।’

পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, ‘নভেম্বরে খাদ্যপণ্যের মূল্যস্ফীতি দাঁড়িয়েছে ছয় দশমিক ৪১ শতাংশে, যা অক্টোবর মাসে ছিল পাঁচ দশমিক ৪৯ শতাংশ।’ ব্রিফিংয়ে আরও জানানো হয়, শহরে সার্বিক মূল্যস্ফীতি পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ছয় দশমিক ১২ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল পাঁচ দশমিক ৬৭ শতাংশ। খাদ্যপণ্যের মূল্যস্ফীতি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ছয় দশমিক ১১ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল পাঁচ দশমিক ৩১ শতাংশ। খাদ্যবহির্ভূত পণ্যের মূল্যস্ফীতি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ছয় দশমিক ১৩ শতাংশে।

পাশাপাশি গ্রামে সার্বিক মূল্যস্ফীতি পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ছয় দশমিক শূন্য এক শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল পাঁচ দশমিক ৩৬ শতাংশ। খাদ্যপণ্যের মূল্যস্ফীতি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ছয় দশমিক ৫৪ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল পাঁচ দশমিক ৫৬ শতাংশ। খাদ্যবহির্ভূত পণ্যের মূল্যস্ফীতি বেড়ে দাঁড়িয়েছে চার দশমিক ৯৯ শতাংশে, যা তার আগের মাসে ছিল চার দশমিক ৯৬ শতাংশ।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন
ট্যাগ »

সর্বশেষ..