প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

পোশাক শিল্পের উন্নয়নে বিশ্বব্যাংকের সহযোগিতা কামনা করেছেন বিজিএমইএ সভাপতি

শেয়ার বিজ ডেস্ক : বিশ্বব্যাংকের ম্যানেজিং ডিরেক্টর অব অপারেশনস অ্যাক্সেল, ভ্যান ট্রটসেনবার্গ এর নেতৃত্বে বিশ্বব্যাংকের একটি উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি দল ২৩ জানুয়ারি (মঙ্গলবার) ঢাকার উত্তরায় বিজিএমইএ কমপ্লেক্সে বিজিএমইএ সভাপতি ফারুক হাসানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছে।

প্রতিনিধি দলে ছিলেন দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের ভাইস প্রেসিডেন্ট মার্টিন রাইসার, বাংলাদেশ ও ভুটানের কান্ট্রি ডিরেক্টর আবদৌলায়ে সেক; ডান্ডান চেন, বাংলাদেশ ও ভুটানের অপারেশনস ম্যানেজার; ইউটাকা ইয়োশিনো, প্রধান অর্থনীতিবিদ-প্রোগ্রাম লিডার; মার্টিন হোল্টম্যান, কান্ট্রি ম্যানেজার, আইএফসি বাংলাদেশ; এলেনা কারাবান, ম্যানেজার, এক্সটার্নাল কমিউনিকেশন; বারবারা ওয়েবার, সিনিয়র অপারেশন অফিসার, কান্ট্রি ডিরেক্টরস অফিস; মেহরিন মাহবুব, সিনিয়র এক্সটার্নাল অ্যাফেয়ার্স অফিসার; কিমবারলি ভার্সাক, সিনিয়র এক্সটার্নাল অ্যাফেয়ার্স অফিসার; ইওয়া সবচিজইনসকা, সিনিয়র অপারেশন অফিসার, ভাইস প্রেসিডেন্টের অফিস; ফেরদৌস সুমি, প্রাইভেট সেক্টর স্পেশালিস্ট, টিটিএল এক্সপোর্ট কম্পিটিটিভ ফর জবস প্রজেক্ট; সুহেল কাসিম, সিনিয়র অর্থনীতিবিদ।

বৈঠকে বাংলাদেশের পোশাক শিল্পের বর্তমান পরিস্থিতি, চ্যালেঞ্জ, সম্ভাবনা এবং শিল্পের রূপকল্প নিয়ে আলোচনা হয়।

তারা বাংলাদেশের এলডিসি গ্র্যাজুয়েশনের পোশাকখাতের ওপর সম্ভাব্য প্রভাব, বিশেষ করে এলডিসি-পরবর্তী যুগে শিল্পের প্রতিযোগী সক্ষমতা ধরে রাখার প্রস্তুতি নিয়েও আলোচনা করেন।
বিজিএমইএ সভাপতি ফারুক হাসান বিশ্বব্যাংকের প্রতিনিধি দলকে বাংলাদেশের পোশাক শিল্পের ভবিষ্যৎ অগ্রাধিকারগুলো, বিশেষ করে শিল্পকে টেকসই করতে উদ্ভাবন, পণ্য বৈচিত্র্যকরণ, প্রযুক্তির মানোন্নয়ন, দক্ষতা উন্নয়ন এবং কস্ট কমপিটিটিভ হওয়ার মাধ্যমে ভ্যালু চেইনে এগিয়ে থাকার ওপর শিল্পের গুরুত্ব দানের বিষয়টি অবহিত করেন।

তিনি কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা, পরিবেশগত টেকসই উন্নয়ন এবং শ্রমিকদের কল্যাণ প্রভৃতি ক্ষেত্রগুলোতে পোশাক শিল্পের অসাধারণ অগ্রগতির বিষয়গুলোও তুলে ধরেন।

এসএমই প্রতিষ্ঠানগুলোর টেকসই উন্নয়নে অর্থায়নের গুরুত্ব তুলে ধরে ফারুক হাসান বলেন, প্রতিষ্ঠানগুলো কঠোর পরিশ্রম করা সত্ত্বেও বিভিন্ন বিধি-বিধানের কারণে প্রচলিত ফাইনান্সিং স্কিমগুলো গ্রহণ করতে পারে না। তিনি এসএমইএ প্রতিষ্ঠানগুলো যাতে করে স্বল্প অর্থায়নে কারখানার সামর্থ্য বাড়ানো এবং সাসটেইনেবিলিটি চর্চাগুলো গ্রহণের মাধ্যমে প্রতিযোগী সক্ষমতা ধরে রাখতে সমর্থ্য হয়, তার জন্য বিশ্বব্যাংককে সহায়তা দিয়ে এগিয়ে আসার অনুরোধ জানান।

তিনি পোশাক শিল্পের জন্য সাসটেইনেবিলিটি, দক্ষতা উন্নয়ন, প্রযুক্তিগত মানোন্নয়ন, উদ্ভাবন প্রভৃতি ক্ষেত্রগুলোতে বিশ্বব্যাংকের সহায়তা কামনা করেন।

বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন বিজিএমইএর পরিচালক আবদুল্লাহ হিল রাকিব, পরিচালক নীলা হোসনে আরা, বিজিএমইএ স্ট্যান্ডিং কমিটি অন ফরেন মিশন সেলের চেয়ারম্যান শামস মাহমুদ এবং বিজিএমইএ স্ট্যান্ডিং কমিটি অন ইউডি-ওভেন অ্যান্ড নিট এর চেয়ারম্যান মো নুরুল ইসলাম।