কোম্পানি সংবাদ পুঁজিবাজার

প্রকাশিত সংবাদের ব্যাখ্যা দিয়েছে লাফার্জহোলসিম

নিজস্ব প্রতিবেদক: সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ফায়ারস্টোন বিল্ডিং প্রডাক্ট কোম্পানি অধিগ্রহণ সম্পর্কিত সংবাদকে কেন্দ্র করে লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশের শেয়ারদর বাড়তে থাকে। এজন্য ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) দর বাড়ার কারণ এবং প্রকাশিত সংবাদের তথ্য সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চেয়ে চিঠি পাঠায়। আর তার জবাবে লাফার্জহোলসিম জানায়, এখনও কোম্পানিটি রুফিং ব্যবসা শুরু করেনি। যদিও এই অধিগ্রহণটি লাফার্জহোলসিম গ্রুপের জন্য খুবই ভালো সংবাদ। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে সরাসরি লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবসায় প্রভাব ফেলছে না।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি ফায়ারস্টোন বিল্ডিং প্রডাক্ট অধিগ্রহণ করছে লাফার্জহোলসিম গ্রুপ এমন শিরোনামে পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হয়। এতে বলা হয়, অধিগ্রহণের জন্য ফায়ারস্টোন বিল্ডিং প্রডাক্ট এবং লাফার্জহোলসিমের মধ্যে একটি চুক্তি হয়েছে।  লাফার্জহোলসিম গ্রæপ নিজস্ব তহবিল থেকে নগদ অর্থ প্রদান এবং ঋণ গ্রহণের মাধ্যমে ৩৪০ কোটি ডলারের এ বিনিময় চুক্তি সফল করার উদ্যোগ নিয়েছে। এ অধিগ্রহণের ফলে প্রতি বছর ১১ কোটি ডলার সাশ্রয় হবে বলে আশা করছে লাফার্জহোলসিম। এ অধিগ্রহণের ফলে প্রথম বছর থেকেই শেয়ারপ্রতি আয়ে প্রভাব পড়বে বলেও আশাবাদী কোম্পানিটি। এছাড়া টেকসই নির্মাণে বিশ্বের শীর্ষস্থান দখলে এ চুক্তি  লাফার্জহোলসিম গ্রুপের জন্য একটি মাইলফলক। ফায়ারস্টোন বিল্ডিং প্রডাক্ট সুপরিচিত টায়ার নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ব্রিজেস্টোনের একটি অঙ্গপ্রতিষ্ঠান। কমার্শিয়াল রুফিং এবং বিল্ডিং ইনভেলাপ সলিউশন প্রদানে যুক্তরাষ্ট্রে শীর্ষ প্রতিষ্ঠান ফায়ারস্টোন।

এদিকে দেখা গেছে, গত ২০ ডিসেম্বর ২০২০ তারিখ থেকে ১২ জানুয়ারি ২০২১ পর্যন্ত ধারাবাহিকভাবে দর বেড়েছে কোম্পানিটির। ২০ ডিসেম্বর কোম্পানিটির শেয়ারদর ছিল ৪০ টাকা ৬০ পয়সা আর গত ১২ জানুয়ারি লেনদেন হয় ৬৭ টাকা ১০ পয়সা।

এদিকে গতকাল ডিএসইতে লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশের শেয়ারদর চার দশমিক ৪৬ শতাংশ বা দুই টাকা ৮০ পয়সা কমে প্রতিটি সর্বশেষ ৬০ টাকায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দরও ছিল ৬০ টাকা। দিনজুড়ে ৬৪ লাখ ৫৯ হাজার ২৫১টি শেয়ার মোট চার হাজার ৭১৬ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ৩৯ কোটি ২৮ লাখ ৩০ হাজার টাকা। দিনভর শেয়ারদর সর্বনিম্ন ৫৭ টাকা ১০ পয়সা থেকে ৬৩ টাকা ৯০ পয়সায় লেনদেন হয়। গত এক বছরে শেয়ারদর ৩২ টাকা ৪০ পয়সা থেকে ৭০ টাকায় ওঠানামা করে।

২০০৩ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয় ‘এ’ ক্যাটেগরির কোম্পানিটি। এক হাজার ৪০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন এক হাজার ১৬১ কোটি ৩৭ লাখ টাকা। কোম্পানির রিজার্ভের পরিমাণ ৪৫৮ কোটি ৫৬ লাখ টাকা।

সর্বশেষ নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন এবং বাজারদরের ভিত্তিতে মূল্য আয় অনুপাত (পিই রেশিও) ৪০ এবং অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন এবং বাজারদরের ভিত্তিতে ৩৪ দশমিক ৮৮।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..