প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

ফ্রিল্যান্সিং প্রতিযোগিতায় শীর্ষে বাংলাদেশিরা

নিজস্ব প্রতিবেদক: ফ্রিল্যান্সিংয়ের আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় শীর্ষস্থান অর্জন করেছে বাংলাদেশি একটি দল। এছাড়া অপর একটি গ্রুপ বিশেষ পুরস্কার জিতে শীর্ষ দশে স্থান পেয়েছে। গত আগস্টে শুরু হওয়া ‘এক্সপোজ আওয়ার লোগো’ শীর্ষক এ প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশি ফ্রিল্যান্সাররা এ সাফল্য অর্জন করেন। ফ্রিল্যান্সারডটকম নামের একটি প্রতিষ্ঠান বিশ্বব্যাপী এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে।

অস্ট্রেলিয়াভিত্তিক কোম্পানিটির পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে। সূত্রমতে, ব্যবহারকারী ও প্রকল্প সংখ্যার দিক থেকে বিশ্বের বৃহত্তম ফ্রিল্যান্সিং ও ক্রসসোর্সিং (বহুদেশীয় আউটসোর্সিং) বাজার হচ্ছে ফ্রিল্যান্সারডটকম। ওয়েবসাইট তৈরি, লোগো ডিজাইন, মার্কেটিং, কপি রাইটিংসহ বিভিন্ন বিষয়ে এ অনলাইন প্ল্যাটফরমে ফ্রিল্যান্সাররা সেবা দিয়ে ও নিয়ে থাকেন। অস্ট্রেলিয়ার সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জে নিবন্ধিত এ কোম্পানিটি।

প্রতিষ্ঠানটি সম্প্রতি আড়াই কোটি গ্রাহকের মাইলফলক অর্জন উপলক্ষে গ্রাহকের মধ্যে একটি প্রতিযোগিতার আয়োজন করে।

গত আগস্টে শুরু হওয়া ‘এক্সপোজ আওয়ার লোগো’ শীর্ষক এ প্রতিযোগিতা ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিভিন্ন শহরে ক্যাম্পেইন চলে। ৫২ দিনব্যাপী এ প্রতিযোগিতায় ২৫ হাজার ডলারের ১০টি পুরস্কার দেওয়া হয়। এর মধ্যে শীর্ষস্থান অর্জন করায় বাংলাদেশি ‘সনরস’ নামের একটি গ্রæপ ১০ হাজার ডলার অর্জন করেছে। গতকাল মঙ্গলবার এ-সংক্রান্ত পুরস্কার ঘোষণা করা হয়। বাংলাদেশের অপর একটি দলও ৯টি বিশেষ পুরস্কারের মধ্যে একটি জিতে নিয়েছে। বিশেষ পুরস্কারপ্রাপ্ত ওই প্রতিষ্ঠানটির নাম ফ্ল্যাসমোব। ক্যাম্পেইনের আওতায় সর্বাধিক লোককে সম্পৃক্ত করায় তারা এ স্বীকৃতি পায়।

এতে অন্যান্য দেশের মধ্যে কলম্বিয়া, ফিলিপাইনও তিন হাজার ডলার মূল্যের বিশেষ পুরস্কার অর্জন করেছে। এছাড়া ইন্দোনেশিয়ার দুটি, ফিলিপাইনের একটি, নেপালের একটি, যুক্তরাষ্ট্রের একটি এবং আলবেনিয়ার একটি করে গ্রæপ এক হাজার ডলার করে পুরস্কার জিতেছে।

সূত্রমতে, প্রতিষ্ঠানটির অধীনে বিশ্বব্যাপী প্রায় আড়াই কোটি গ্রাহক ও ফ্রিল্যান্সার রয়েছে। এর মধ্যে পাঁচ লাখ ৪৫ হাজার বাংলাদেশি ফ্রিল্যান্সার রয়েছেন। এছাড়া বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের মালিক ও উদ্যোক্তারাও রয়েছেন এ কোম্পানির সঙ্গে। সব মিলিয়ে ঢাকা, খুলনা, রাজশাহী, চট্টগ্রাম ও রংপুর শহরের প্রায় সোয়া ছয় লাখ বাংলাদেশি যুক্ত রয়েছেন এ কোম্পানির অধীনে। জানা গেছে, যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, যুক্তরাজ্য ও অস্ট্রেলিয়ার উদ্যোক্তারা বাংলাদেশি ফ্রিল্যান্সারদের কাছ থেকে সেবা নিয়ে থাকেন, যা সেবা খাতের রফতানি আয় বৃদ্ধিতে ভ‚মিকা রাখে।