প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে দেয়া হবে ৮০ লাখ টিকা

নিজস্ব প্রতিবেদক: আগামীকাল মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন। এ উপলক্ষে বিশেষ টিকা কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। কার্যক্রমের অংশ হিসেবে ৮০ লাখ মানুষকে টিকা দেয়া হবে। গতকাল দুপুরে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এ তথ্য জানিয়েছেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, আগামীকাল বিশেষ কার্যক্রমের মাধ্যমে ৮০ লাখ ব্যক্তিকে কভিড-১৯ টিকা দেয়া হবে। সারাদেশের সব ইউনিয়ন, সিটি করপোরেশন ও পৌরসভা এলাকায় এ টিকা দেয়া হবে। এরই মধ্যে টিকার জন্য যারা নিবন্ধন করেছেন তাদের এ কার্যক্রমে প্রাধান্য দেয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, আগামীকাল সকাল ৯টা থেকে বিশেষ টিকা কার্যক্রম শুরু হবে। যারা গ্রামে থাকে, দরিদ্র জনগোষ্ঠী, বয়স্ক, তারা এই কার্যক্রমে টিকা নিতে পারবেন। যারা নিবন্ধন করে খুদেবার্তা পাননি, তারা এই কার্যক্রমে অগ্রাধিকার পাবেন। এ কার্যক্রমে শুধু প্রথম ডোজের টিকা দেয়া হবে। কার্যক্রমে বেশিরভাগ টিকা দেয়া হবে সিনোফার্মের।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, এখন পর্যন্ত সাড়ে পাঁচ কোটি ডোজ টিকা হাতে পাওয়া গেছে। এর মধ্যে দেয়া হয়েছে চার কোটি ডোজ। হাতে রয়েছে দেড় কোটি ডোজ টিকা। গর্ভবতী নারী ও দুগ্ধদানকারী মায়েরা এ কার্যক্রমে টিকা পাবেন না। ইউনিয়ন, সিটি করপোরেশন ও পৌরসভা এলাকায় ছয় হাজারের বেশি কেন্দ্রে টিকা দেয়া হবে। টিকা নিবন্ধন কার্ড, জাতীয় পরিচয়পত্র নিয়ে এলেও টিকা নেয়া যাবে।

এক প্রশ্নের জবাবে জাহিদ মালেক বলেন, টিকা পেতে যে কেন্দ্রে নিবন্ধন করেছেন, সে কেন্দ্রেই টিকা নিতে হবে। ২৮ সেপ্টেম্বরের আগেই টিকার জন্য মোবাইল ফোনে বার্তা চলে যাবে। এর আগে গণটিকায় ৪৫ লাখ টিকা দেয়া হয়েছিল। এবার আরও বড় পরিসরে টিকা দেয়ার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের টিকা কার্যক্রম নিয়ে তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের টিকা দেয়া চলমান আছে। তাদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে রাখা হয়েছে। আর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের প্রায় সবাইকেই টিকা দেয়া হয়েছে। তবে যারা এখনও দেননি, তাদের সবাইকে আহ্বান জানাব দ্রুত টিকা নেয়ার জন্য।

প্রবাসীদের সম্পর্কে তিনি বলেন, কয়েকটি জায়গায় প্রবাসীদের বুস্টার ডোজের কথা বলা হয়েছে। তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) এখন পর্যন্ত বুস্টার ডোজের নির্দেশনা দেয়নি। যদি এমন প্রয়োজন হয়, তবে আমরা অবশ্যই আমাদের প্রবাসীদের কথা বিবেচনা করব এবং প্রয়োজনে ডব্লিউএইচওর সঙ্গে কথা বলে তাদের জন্য যথাযথ পদক্ষেপ নেব।

সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

সর্বশেষ..