প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

প্রযুক্তি নিয়ে পাঁচ ভবিষ্যদ্বাণী

শেয়ার বিজ ডেস্ক: ২০১৭ সালে প্রযুক্তি খাতে কী ধরনের পরিবর্তন আসতে পারে, তার পূর্বাভাস দিয়েছেন প্রযুক্তি বিশ্লেষক টিম বাজারিন। ৩০ বছর ধরে প্রযুক্তি নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী কলাম লিখে আসছেন তিনি। গবেষণা ও জরিপ বিশ্লেষণ করে এবারও ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন বাজারিন। নতুন বছর সামনে রেখে প্রযুক্তি নিয়ে তার পাঁচ ভবিষ্যদ্বাণী প্রকাশ করেছে মার্কিন সাময়িকী টাইম।

১. প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রভাব

সিলিকন ভ্যালির প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো যে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত ডোনাল্ড ট্রাম্পের বড় সমর্থক নয়, তা মোটামুটি সবারই জানা।

তবে তারা এ-ও জানেন, সামনের চার বছর এই প্রশাসনের সঙ্গেই কাজ করতে হবে তাদের। সম্প্রতি ট্রাম্পের সঙ্গে সাক্ষাৎও করেছেন শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তি নেতারা। তবে ট্রাম্পের স্বভাব এমনই যে, তার কাজকর্ম আগে থেকে আঁচ করা অসম্ভব হওয়ায় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের প্রতি তার উদ্যোগ কী হবে, তা স্পষ্ট নয়। তাই ২০১৭ সালে এটি প্রযুক্তির জন্য বড় সমস্যা হতে পারে, সম্ভবত সবচেয়ে বড়।

২. অগমেন্টেড বা মিক্সড রিয়্যালিটির গুরুত্ব বৃদ্ধি

সামনের বছর ভার্চুয়াল রিয়্যালিটির চেয়ে অগমেন্টেড বা মিক্সড রিয়্যালিটির গুরুত্ব বৃদ্ধি পেতে পারে। বর্তমানে শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো ভিআর ডিভাইস নিয়ে কাজ করলেও সামনের বছর অগমেন্টেড রিয়্যালিটি প্রযুক্তি প্রাধান্য পাবে। এর আগে অ্যাপল প্রধান টিম কুকও জানিয়েছেন, এআর প্রযুক্তি ভিআর-এর চেয়ে ‘বেশি মজাদার’। তাই ২০১৭তে নতুন আইফোন উম্মোচনকালে অগমেন্টেড রিয়্যালিটি বড় আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকলে আশ্চর্য হওয়ার কিছু নেই।

৩. হাইব্রিড কম্পিউটার

২০১৭ সাল হতে পারে টু-ইন-ওয়ান কম্পিউটারের। বহুমুখী কম্পিউটিং প্ল্যাটফর্ম হওয়ায় নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো এখন সেদিকেই মনোযোগ দিচ্ছে।

একই সঙ্গে ল্যাপটপ এবং ট্যাবলেটের অভিজ্ঞতা পাওয়ায় গ্রাহকও সেদিকে ঝুঁকছে বলেই ধারণা করা হচ্ছে।

৪. বাড়বে স্মার্ট অটোমোবিলসের চাহিদা

বর্তমানে স্বচালিত গাড়ি নিয়ে বিস্তৃত পরিসরে গবেষণা চালানো হলেও সেগুলো ২০২২ সালের আগে রাস্তায় নামবে না বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এ সময়ের মধ্যে গ্রাহক সফটওয়্যার ব্যবহার করে তার গাড়ি আরও স্মার্ট করতে চাইবে। তাই অ্যাপলের কারপ্লে বা গুগলের অ্যান্ড্রয়েড অটোর মতো সফটওয়্যার প্ল্যাটফর্মগুলোর চাহিদা বৃদ্ধি পাবে।

৫. হ্যাকার ও সন্ত্রাসী হবে আরও পরিণত

গেলো বছরজুড়ে বেশ কিছু বড় হ্যাক এবং সন্ত্রাসের খবর পাওয়া গেছে।

ইনটেল সিকিউরিটির তথ্যমতে, গত বছরের শুধু প্রথম অর্ধেই ৫৫৪ মিলিয়ন হ্যাকের ঘটনা ঘটেছে। আগের পুরো বছরজুড়ে যার সংখ্যা ছিল ৭০৭ মিলিয়ন। নতুন বছরে এসব সাইবার অপরাধী আরও পরিণত এবং চতুর হবে বলে বিশ্বাস বাজারিনের।