প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

প্রশিক্ষণে জোর দুদকের

নিজস্ব প্রতিবেদক: কর্মকর্তাদের দক্ষতা ও কাজের মান বৃদ্ধি করতে প্রশিক্ষণে জোর দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। প্রশিক্ষণ শাখার সার্বিক ব্যবস্থাপনায় দেশে ও বিদেশে বিষয়ভিত্তিক বিভিন্ন প্রশিক্ষণ আয়োজন করা হয়েছে। দুদক জনসংযোগ দপ্তর থেকে শেয়ার বিজকে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রথমবারের মতো কমিশনার (অনুসন্ধান) মোজাম্মেল হক খানের নেতৃত্বে কমিশনের মহাপরিচালক, পরিচালক, উপপরিচালক, সহকারী পরিচালক ও উপসহকারী পরিচালক পর্যায়ের ২০ জন কর্মকর্তার সমন্বয়ে প্রথম ব্যাচ প্রশিক্ষণের জন্য বিদেশ গেছেন।

গত ১০ মে থেকে থাইল্যান্ডের এশিয়ান ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজিতে (এআইটি) ‘ইফেকটিভ এন্টি করাপশন পলিসি স্ট্র্যাটেজি অ্যান্ড প্র্যাক্টিস’ বিষয়ক প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। তারা ব্যাংকক অবস্থান করছেন। একই বিষয়ে এআইটিতে ২০ জন কর্মকর্তার সমন্বয়ে দ্বিতীয় ব্যাচ আগামী ২৩ মে এবং তৃতীয় ব্যাচ আগামী ৩ জুন থেকে ১০ দিনব্যাপী প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করবেন। এরই ধারাবাহিকতায় আগামী জুলাই ও আগস্ট মাসে পর্যায়ক্রমে চতুর্থ ও পঞ্চম ব্যাচে ৪০ জন একই প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করবেন।

এছাড়া আধুনিক ডিজিটাল পদ্ধতিতে সংঘটিত দুর্নীতি উদঘাটনের জন্য কমিশনের একটি দক্ষ টিম প্রস্তুতের লক্ষ্যে বিশ্বের একটি প্রখ্যাত ইনস্টিটিউটে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম চলমান রয়েছে। এর অংশ হিসেবে প্রথমবারের মতো কমিশনের তিনজন কর্মকর্তা (সিস্টেম এনালিস্ট, প্রোগ্রামার ও সহকারী পরিচালক) সংযুক্ত আরব আমিরাতে ‘ডিভিআর রিকভারি অ্যান্ড এক্সামিনার’ বিষয়ক ৭ দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। গত ফেব্রুয়ারি ও মার্চ মাসে ১৪ দিনব্যাপী ‘ট্রেনিং অন মোবাইল ফরেনসিক টুলস’ বিষয়ক প্রশিক্ষণও সম্পন্ন হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র থেকে ‘কম্পিউটার ফরেনসিক টুলস’ বিষয়ক প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করেছেন কমিশনের তিন জন কর্মকর্তা। বর্তমানে কমিশনের সে একই টিম ভারতের নয়াদিল্লির ‘ফাউন্ডেশন ফিউচারিসটিক টেকনোলজি লিমিটেডে ১২ দিনব্যাপী ‘কম্পিউটার ফরেনসিক টুলস’ বিষয়ক প্রশিক্ষণে আছেন। এছাড়া আগামী জুন মাসে যুক্তরাষ্ট্রে ‘অডিও অ্যান্ড ভিডিও ফরেনসিক’ বিষয়ক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হবে।

এ ছাড়া সম্প্রতি প্রথমবারের মতো ইনস্টিটিউট অব কস্ট অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট অ্যাকাউন্ট্যান্ট বাংলাদেশে (আইসিএমএবি) গত এপ্রিল মাসে ‘ফিন্যান্সিয়াল অ্যাকাউন্টিং’ প্রশিক্ষণে ৩০ জন কর্মকর্তা অংশগ্রহণ করেন। আগামী জুলাই ও আগস্ট মাসে পর্যায়ক্রমে দুটি ব্যাচে আরও ৬০ জন কর্মকর্তা প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করবেন।

প্রথমবারের মতো গত ৯-১১ মে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন আয়োজিত ‘ক্যাপিটাল মার্কেট ব্যবস্থাপনা’ শীর্ষক প্রশিক্ষণের প্রথম ব্যাচ সম্পন্ন হয়েছে। কমিশনের ৩০ জন কর্মকর্তা এই প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করে। এরই ধারাবাহিকতায় মে ও জুন মাসে তিন দিনব্যাপী প্রশিক্ষণের আরও দুটি ব্যাচের প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হবে।

এছাড়া গতকাল থেকে ঢাকার হোটেল রেডিসন বøæ তে ইউএস ডিপার্টমেন্ট অব জাস্টিস আয়োজিত ‘প্রটেকটিং পাবলিক ইনটিগ্রিটি: প্রসিকিউটিং অ্যান্ড ইনভেস্টিগেটিং কমপ্লেক্স করাপশন কেস’ শীর্ষক তিন দিনব্যাপী কর্মশালা শুরু হয়েছে। এ কর্মশালায় কমিশনের বিভিন্ন পর্যায়ের ২০ জন কর্মকর্তা ও প্যানেলভুক্ত ১০ জন আইনজীবী অংশগ্রহণ করছেন। আগামী জুন মাসে বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে মামলা ব্যবস্থাপনা, জব্দ তালিকা প্রস্তুতকরণ, ক্রোক, চার্জশিট দাখিল, আদালতে সাক্ষ্য প্রমাণাদি উপস্থাপনসহ প্রয়োজনীয় অন্যান্য বিষয় সংক্রান্ত সপ্তাহব্যাপী প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হবে।