পর্ষদ সভা

প্রান্তিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ১১ কোম্পানি

নিজস্ব প্রতিবেদক: চলতি হিসাববছরের প্রান্তিক (জানুয়ারি-মার্চ) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ১১ কোম্পানি। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
জেনারেশন নেক্সট ফ্যাশন: তৃতীয় প্রান্তিকে শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে এক পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ১৭ পয়সা। ২০১৯ সালের ৩১ মার্চ শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য হয়েছে ১১ টাকা ৮৯ পয়সা, যা ২০১৮ সালের ৩০ জুনে ছিল ১১ টাকা ৪৬ পয়সা।
অ্যাডভেন্ট ফার্মা: তৃতীয় প্রান্তিকে শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ৬০ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ২৯ পয়সা। ২০১৯ সালের ৩১ মার্চ শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য হয়েছে ১৩ টাকা ১৮ পয়সা, যা ২০১৮ সালের ৩০ জুনে ছিল ১২ টাকা ৭৪ পয়সা।
নূরানী ডায়িং: তৃতীয় প্রান্তিকে শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ২১ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ৩১ পয়সা। ২০১৯ সালের ৩১ মার্চ শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য হয়েছে ১২ টাকা ৬৬ পয়সা, যা ২০১৮ সালের ৩০ জুনে ছিল ১৩ টাকা ১০ পয়সা।
এ্যাসকোয়্যার নিট কোম্পাজিট: তৃতীয় প্রান্তিকে শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে এক টাকা ১০ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল এক টাকা দুই পয়সা। ২০১৯ সালের ৩১ মার্চ শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য হয়েছে ৬৪ টাকা ২১ পয়সা, যা ২০১৮ সালের ৩০ জুনে ছিল ৪৬ টাকা ৯০ পয়সা।
জাহিন স্পিনিং: তৃতীয় প্রান্তিকে শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ১৩ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ২৪ পয়সা। ২০১৯ সালের ৩১ মার্চ শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য হয়েছে ১৪ টাকা চার পয়সা, যা ২০১৮ সালের ৩০ জুনে ছিল ১৩ টাকা ৪০ পয়সা।
শ্যামপুর সুগার মিল: তৃতীয় প্রান্তিকে শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ৩২ টাকা ৮৪ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ১৪ টাকা ৯৯ পয়সা লোকসান। ২০১৯ সালের ৩১ মার্চ শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য হয়েছে ৮৩০ টাকা ৮২ পয়সা লোকসান, যা ২০১৮ সালের ৩০ জুনে ছিল ৭৫৩ টাকা ৩৭ পয়সা লোকসান।
খান ব্রাদার্স পিপি ওভেন ব্যাগ: তৃতীয় প্রান্তিকে শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে পাঁচ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ২০ পয়সা। ২০১৯ সালের ৩১ মার্চ শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য হয়েছে ১২ টাকা ৬১ পয়সা, যা ২০১৮ সালের ৩০ জুনে ছিল ১২ টাকা ৫৩ পয়সা।
বেক্সিমকো সিনথেটিকস: তৃতীয় প্রান্তিকে শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ৮১ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল এক টাকা ৩৬ পয়সা লোকসান। ২০১৯ সালের ৩১ মার্চ শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য হয়েছে ১৫ টাকা ছয় পয়সা, যা ২০১৮ সালের ৩০ জুনে ছিল ১৭ টাকা ৫৯ পয়সা।
প্রিমিয়ার সিমেন্ট: তৃতীয় প্রান্তিকে শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে এক টাকা ৩৫ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল দুই টাকা আট পয়সা। ২০১৯ সালের ৩১ মার্চ শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য হয়েছে ৪৫ টাকা ২০ পয়সা, যা ২০১৮ সালের ৩০ জুনে ছিল ৪৩ টাকা ১৩ পয়সা।
ড্যাফোডিল কম্পিউটারস: তৃতীয় প্রান্তিকে শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ৩২ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল ৬৭ পয়সা। ২০১৯ সালের ৩১ মার্চ শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য হয়েছে ১৩ টাকা ৫৪ পয়সা, যা ২০১৮ সালের ৩০ জুনে ছিল ১৩ টাকা ৫৮ পয়সা।
জিবিবি পাওয়ার: তৃতীয় প্রান্তিকে শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ২৯ পয়সা, যা আগের বছর একই সময় ছিল চার পয়সা লোকসান। ২০১৯ সালের ৩১ মার্চ শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য হয়েছে ১৯ টাকা ৯২ পয়সা, যা ২০১৮ সালের ৩০ জুনে ছিল ১৯ টাকা ৫৪ পয়সা।

সর্বশেষ..