প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

প্রেসিডেন্টের দুর্নীতি মামলা: স্যামসাংয়ের দুই কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদ

 

শেয়ার বিজ ডেস্ক: দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট পার্ক জিউন হাইয়ের বিরুদ্ধে সাংবিধানিক আদালতে অভিশংসন প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে স্যামসাংয়ের দুই জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। খবর বিবিসি।

স্যামসাংয়ের ভাইস চেয়ারম্যান চৌই গি সাং ও চাং চুং কি’কে সন্দেহভাজন দোষী হিসেবে নয়, বরং প্রত্যক্ষদর্শী হিসেবে গতকাল সোমবার আদালতের বিশেষ কৌঁসুলি তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করেন। স্যামসাংয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ, প্রতিষ্ঠানটি থেকে বড় অঙ্কের ঘুষ দেওয়া হয় অলাভজনক একটি প্রতিষ্ঠানকে, যা পরিচালনা করেন প্রেসিডেন্ট পার্ক গুন হাইয়ের ঘনিষ্ঠ আস্থাভাজন চোই সুন সিল। চোই’র ওপর বলপ্রয়োগ ও প্রতারণা চেষ্টার অভিযোগ রয়েছে। অভিযোগ রয়েছে, চোই সুন সিল সরকারের বিভিন্ন কৌশল নির্ধারণে মধ্যস্থতা করছেন এবং প্রেসিডেন্টের সঙ্গে সম্পর্কের সূত্র ধরে অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হয়েছেন। ২০১৫ সালে ইলেকট্রনিক জায়ান্টটির অধীনস্থ নির্মাণ প্রতিষ্ঠান স্যামসাং সিঅ্যান্ডটি ও সহযোগী প্রতিষ্ঠান শেইল ইন্ডাস্ট্রিজ একীভূত হয়। এটি নিয়ে প্রতিষ্ঠানটির বহুসংখ্যক শেয়ারধারীর ভিন্নমত থাকলেও এই একীভূত হওয়ার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়। তাদের দাবি ছিল, এই চুক্তির মাধ্যমে সংখ্যালঘু শেয়ারধারীরা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। তবে লাভবান হবে স্যামসাং গ্রুপের মালিক লি কুন হি’র পরিবার। দুই প্রতিষ্ঠানেই শেয়ার থাকা জাতীয় পেনশন তহবিল পরিচালনা প্রতিষ্ঠান ন্যাশনাল পেনশন সার্ভিস (এনপিএস) এই চুক্তির পক্ষে ভোট দেয়।

অভিযোগ রয়েছে, এই চুক্তিতে প্রেসিডেন্টের সমর্থন পাওয়ার জন্য চোই সুন সিল ও তার মেয়েকে ৩১ লাখ ডলার ঘুষ দেয় স্যামসাং। এ বিষয়ে গত মাসে এক শুনানিতে স্বীকারও করে স্যামসাং কর্তৃপক্ষ। তারা জানায়, চোই সুন সিলের মেয়ের কর্মজীবনে উন্নতির জন্য এ অর্থ দেওয়া হয়।