স্পোর্টস

ফাইনালের আগে আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক: আফগানিস্তানের বিপক্ষে একের পর এক হারে আত্মবিশ্বাসে চিড় ধরেছিল বাংলাদেশের। তবে এ দলটির বিপক্ষে গত পরশু চট্টগ্রামে ত্রিদেশীয় সিরিজের রাউন্ড রবিন লিগের শেষ ম্যাচ জিতে সে জায়গা আবার ফিরে পেয়েছে টাইগাররা। যা সাকিব আল হাসানদের দিয়েছে এ টুর্নামেন্টের শিরোপা ছোঁয়ার রসদ। এখন সেদিকেই চোখ রাসেল ডমিঙ্গোর শিষ্যদের।
ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজে আফগানিস্তানের বিপক্ষে প্রথম দেখায় বাংলাদেশ হেরেছিল ২৫ রানে। মূলত এরপর থেকে সমালোচনায় বিদ্ধ হয়েছিল টিম টাইগার্স, যা থেকে দলটি মুক্ত হয়েছে গত পরশু। ওইদিন চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের ৪৫ বলে ৭০ রানের অপরাজিত ইনিংসে ভর করে ৬ বল আর ৪ উইকেট হাতে রেখে জিতে যায় স্বাগতিকরা। এর ফলে সফরকারীদের বিপক্ষে চরম এক প্রতিশোধও নেওয়া হয়েছে লাল-সবুজ প্রতিনিধিদের। তবে এটুকুতেই সন্তুষ্ট নন রাসেল ডমিঙ্গোর শিষ্যরা। তারা চায়, ফাইনালে যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটিকে হারিয়ে ট্রফি উল্লাসে মাততে।
আফগানদের বিপক্ষে দুর্দান্ত খেলে জিতলেও সাকিবের ব্যক্তিগত কোনো অনুভূতি নেই। তার সবকিছুই দলকেন্দ্রিক। যে কারণে গত পরশুই এ অধিনায়ক বলেছিলেন, ব্যক্তিগত সন্তুষ্টির চেয়ে দলের জয়টাই যেন বেশি প্রশান্তি এনে দিচ্ছে, ‘অবশ্যই এটি বড় জয়। আপনি যদি শেষ কয়েক মাসের কথা চিন্তা করেন, আমরা টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে একদমই ভালো করতে পারছিলাম না। ফলে আমাদের উন্নতির প্রয়োজন ছিল। সে লক্ষ্যে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।’
আগামীকাল মিরপুরের শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নির্ধারিত হবে ত্রিদেশীয় সিরিজের চ্যাম্পিয়ন দল। তার আগে অবশ্য গত পরশু আফগানদের বিপক্ষে জয়টাই শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে রসদ জোগাচ্ছে টাইগারদের। এমন ইঙ্গিতই পাওয়া গেছে সাকিবের কথাতেই, ‘ফাইনালে নামার আগে এ জয়টি আমাদের অনেক অনুপ্রেরণা ও আত্মবিশ্বাস জোগাবে। আমরা জানি, মিরপুরে খেলা ভিন্ন হবে। নতুন দিন, নতুন পরিস্থিতি, কিছুই হয়তো আজকের মতো হবে না। তাই আফগানিস্তানকে হারানোর জন্য আমাদের সেরাটাই খেলতে হবে।’
চলতি সিরিজে টানা ব্যাটিং ব্যর্থতা চলছিল বাংলাদেশের। গত পরশু সিনিয়র ক্রিকেটাররা দায়িত্ব নেওয়ায় তা কাটিয়ে উঠেছে বাংলাদেশ। ফাইনালেও এ ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে বলে আশা সাকিবের, ‘টুর্নামেন্টজুড়েই আমাদের বোলিং দারুণ হয়েছে, ফিল্ডাররা সহায়তা করেছে। কিন্তু ব্যাটিংই বারবার দলকে ভুগিয়েছে। টি-টোয়েন্টিতে সবাই একসঙ্গে রান করবে না। কিন্তু যেদিন যে রান করবে, তাকে দলের জন্য শেষ পর্যন্ত টিকে থাকতে হবে। আজ (গত পরশু) যেমন হয়েছে, আশা করি ফাইনালেও সেটা বজায় থাকবে।’
চট্টগ্রামপর্ব শেষ করে গতকালই ফাইনাল ম্যাচের জন্য ঢাকায় ফিরেছে বাংলাদেশ। এদিন অবশ্য কোনো অনুশীলন করেনি টিম টাইগার্স। সবাইকে দেখা গেছে চনমনে। কেউ মুখে কিছু না বললেও তারা যে মনে মনে চলতি টুর্নামেন্টের শিরোপার স্বপ্ন দেখছেন সেটা অনুমান করাই যায়। এজন্য হয়তো চট্টগ্রাম থেকেই পরিকল্পনা এঁটে ফিরেছেন রাজধানীতে। যা বাস্তবায়নে আজই অনুশীলনে মন দেবেন রাসেল ডমিঙ্গোর শিষ্যরা।

সর্বশেষ..