প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্সের শেয়ারদর বেড়েছে ৪৩ দশমিক ৯২ শতাংশ

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড গত সপ্তাহে দর বৃদ্ধির তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে। আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারদর বেড়েছে ৪৩ দশমিক ৯২ শতাংশ। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্রমতে, গত সপ্তাহে কোম্পানিটির প্রতিদিন গড় লেনদেন হয়েছে ৩৬ কোটি দুই লাখ ৩৪ হাজার টাকার শেয়ার। সপ্তাহ শেষে মোট লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়ায় ১৮০ কোটি ১১ লাখ ৭০ হাজার টাকা।

এদিকে সর্বশেষ কার্যদিবসে ডিএসইতে কোম্পানিটির শেয়ারদর ৯ দশমিক ৯৬ শতাংশ বা আট টাকা ৯০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি সর্বশেষ ৯৮ টাকা ৩০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল একই। দিনজুড়ে ৩৪ লাখ ৭৭ হাজার ১৫৭ শেয়ার তিন হাজার ৮৮ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ৩৩ কোটি ১৯ লাখ টাকা। দিনভর শেয়ারদর সর্বনি¤œ ৯০ টাকা ৪০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ৯৮ টাকা ৩০ পয়সায় হাতবদল হয়। আর গত এক বছরের মধ্যে কোম্পানিটির শেয়ারদর সর্বোচ্চ ৯৮ টাকা ৩০ পয়সা থেকে সর্বনি¤œ ৩৬ টাকা ১০ পয়সার মধ্যে লেনদেন হয়।

কোম্পানিটি ২০০৫ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়ে বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটেগরিতে অবস্থান করছে। ১০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ৭৪ কোটি ৭৪ লাখ ৩০ হাজার টাকা। কোম্পানিটির মোট সাত কোটি ৪৭ লাখ ৪২ হাজার ৭৫১টি শেয়ার রয়েছে। ডিএসইর সর্বশেষ তথ্যমতে, মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের ২৪ দশমিক ৫০ শতাংশ শেয়ার, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ৪৪ দশমিক ১০ শতাংশ, বিদেশি বিনিয়োগকারীদের কাছে শূন্য দশমিক ৩৭ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ৩১ দশমিক শূন্য তিন শতাংশ শেয়ার রয়েছে।

তালিকার দ্বিতীয় স্থানে থাকা রংপুর ফাউন্ড্রি লিমিটেডের শেয়ারদর বেড়েছে ৪২ দশমিক শূন্য চার শতাংশ। গত সপ্তাহে কোম্পানিটির প্রতিদিন গড় লেনদেন হয়েছে ছয় কোটি ৩০ লাখ ৮২ হাজার টাকার শেয়ার। সপ্তাহ শেষে মোট লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়ায় ৩১ কোটি ৫৪ লাখ ১০ হাজার টাকা।

এদিকে সর্বশেষ কার্যদিবসে কোম্পানিটির শেয়ারদর ৯ দশমিক ৯৮ শতাংশ বা ১৮ টাকা ৮০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি সর্বশেষ ২০৭ টাকা ১০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল একই। ‘এ’ ক্যাটেগরির কোম্পানিটি ১৯৯৯ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। ২০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ১০ কোটি টাকা। কোম্পানিটির মোট এক কোটি শেয়ার রয়েছে। ডিএসইর সর্বশেষ তথ্যমতে, মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে রয়েছে ৪৯ দশমিক ৮৯ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক ১৬ দশমিক ৫৮ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে ৩৩ দশমিক ৫৩ শতাংশ শেয়ার।

এর পরের অবস্থানগুলোয় থাকা যথাক্রমে এগ্রিকালচারাল মার্কেটিং কোম্পানি লিমিটেডের শেয়ারদর বেড়েছে ৩৭ দশমিক ৬৯ শতাংশ। গত সপ্তাহে কোম্পানিটির প্রতিদিন গড় লেনদেন হয়েছে আট কোটি ১০ লাখ ১৭ হাজার ৮০০ টাকার শেয়ার। সপ্তাহ শেষে মোট লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়ায় ৪০ কোটি ৫০ লাখ ৮৯ হাজার টাকা। বুসন্ধরা পেপার মিলস লিমিটেডের শেয়ারদর বেড়েছে ৩২ দশমিক ২৩ শতাংশ। গত সপ্তাহে কোম্পানিটির প্রতিদিন গড় লেনদেন হয়েছে ১৫ কোটি ৬৬ লাখ ৫১ হাজার ৪০০ টাকার শেয়ার। সপ্তাহ শেষে মোট লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়ায় ৭৮ কোটি ৩২ লাখ ৫৭ হাজার টাকা। পঞ্চম অবস্থানে থাকা আরএকে সিরামিকস লিমিটেডের ২৩ দশমিক ৫০ শতাংশ বেড়েছে। গত সপ্তাহে কোম্পানিটির প্রতিদিন গড় লেনদেন হয়েছে ২৭ কোটি ৫৯ লাখ ৯৯ হাজার ৪০০ টাকার শেয়ার। সপ্তাহ শেষে মোট লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়ায় ১৩৭ কোটি ৯৯ লাখ ৯৭ হাজার টাকা। তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের ২১ দশমিক ২৭ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে, গত সপ্তাহে কোম্পানিটির প্রতিদিন গড় লেনদেন হয়েছে ৪৩ কোটি তিন লাখ ৬৩ হাজার ৪০০ টাকার শেয়ার। সপ্তাহ শেষে মোট লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়ায় ২১৫ কোটি ১৮ লাখ ১৭ হাজার টাকা। বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের ২০ দশমিক ৩৬ শতাংশ। গত সপ্তাহে কোম্পানিটির প্রতিদিন গড় লেনদেন হয়েছে ৭২ কোটি ৮৪ লাখ ৪১ হাজার ৬০০ টাকার শেয়ার। সপ্তাহ শেষে মোট লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়ায় ৩৬৪ কোটি ২২ লাখ আট হাজার টাকা। তাওফিকা ফুডস অ্যান্ড লাভেলো আইসক্রিম পিএলসির ১৮ দশমিক ৮১ শতাংশ, গত সপ্তাহে কোম্পানিটির প্রতিদিন গড় লেনদেন হয়েছে ২৪ কোটি ৬০ লাখ ৭৮ হাজার ৪০০ টাকার শেয়ার। সপ্তাহ শেষে মোট লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়ায় ১২৩ কোটি তিন লাখ ৯২ হাজার টাকা। আনোয়ার গ্যালভানাইজিং লিমিটেডের ১৭ দশমিক ৮৭ শতাংশ, এবং ওয়াটা কেমিক্যালস লিমিটেডের ১৪ দশমিক ৯৮ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে।