প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

ফিনল্যান্ডের কাছে অস্ত্র বিক্রি করছে যুক্তরাষ্ট্র

শেয়ার বিজ ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটোয় যোগদানে তোড়জোড় চলছে ইউরোপের দেশ ফিনল্যান্ডের। তার আগেই দেশটির কাছে ৩৮ কোটি ডলারের অস্ত্র বিক্রির অনুমোদন দিয়েছে বাইডেন প্রশাসন। দেশটির পররাষ্ট্র দপ্তর বৃহস্পতিবার কংগ্রেসকে অবগত করে বলছে, তারা স্টিঙ্গার অ্যান্টি-এয়ারক্রাফ্ট শোল্ডার-ফায়ার ক্ষেপণাস্ত্র এবং সংশ্লিষ্ট সরঞ্জাম বিক্রির অনুমোদন দিয়েছে। খবর: সিএনএন।

পররাষ্ট্র দপ্তর আরও জানিয়েছে, আত্মরক্ষার্থে ফিনল্যান্ডকে সহায়তা করা যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় স্বার্থের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। প্রস্তাবিত অস্ত্র বিক্রি ফিনল্যান্ডের প্রতিরক্ষা ও প্রতিরোধ সক্ষমতা জোরদার করবে।

রাশিয়ার সঙ্গে ফিনল্যান্ডের ১৩৪০ কিলোমিটার স্থল সীমান্ত। গত ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক অভিযানের পর গত মে মাসে ফিনল্যান্ড ও প্রতিবেশী সুইডেন আনুষ্ঠানিকভাবে ন্যাটোতে যোগ দেয়ার আবেদন করে। তারই পরিপ্রেক্ষিতে দুই দেশের জোর প্রক্রিয়া চলছে। তবে ন্যাটোয় যোগ দেয়া নিয়ে প্রকাশ্যে হুমকি দিয়ে আসছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন। ক্রেমলিনের দাবি, এটি রাশিয়ার নিরাপত্তার জন্য হুমকি।

এদিকে ইউক্রেনে রাশিয়ার যুদ্ধের পর সৃষ্ট পরিস্থিতিতে ইউরোপকে নিজেদের প্রতিরক্ষা সামর্থ্য গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছেন ফিনল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট সানা মারিন। তিনি বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের সহযোগিতা ছাড়া ইউরোপ যথেষ্ট শক্তিশালী নয়। গতকাল সিডনিতে এসব কথা বলেন তিনি।
ফিনিশ প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের নিশ্চিত করতে হবে যে আমরা শক্তিশালী। আমি নির্মম সত্য বলতে চাই, ইউরোপ যথেষ্ট শক্তিশালী নয়। যুক্তরাষ্ট্র ছাড়া আমরা বিপদে পড়ব।

‘রাশিয়ার লাগাম’ টেনে ধরতে চীনের দায়িত্বের বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে ফিনিশ প্রধানমন্ত্রী এই মন্তব্য করেছেন। তিনি বলেছেন, চীন ভূমিকা রাখতে পারে। কিন্তু আমাদের শুধু এটির ওপর নির্ভর করলে চলবে না।

সানা মারিন বলেছেন, যুদ্ধ জিততে ইউক্রেনের যা যা প্রয়োজন তা সরবরাহ করা উচিত। রাশিয়ার আক্রমণ ঠেকাতে অস্ত্র, অর্থ ও মানবিক সহযোগিতা দিয়ে কিয়েভকে সহযোগিতায় এগিয়ে আছে যুক্তরাষ্ট্র।

তিনি বলেন, আমাদের নিশ্চিত করতে হবে যে, ইউরোপীয় প্রতিরক্ষার ক্ষেত্রে নিজেদের সক্ষমতা বাড়াতে হবে। নিশ্চিত করতে হবে বিভিন্ন পরিস্থিতিতে আমরা যেন মানিয়ে নিতে পারি।