প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

ফুটবলেই সর্বনাশ ক্রিকেটারদের!

ক্রীড়া প্রতিবেদক: অনুশীলনে নামার আগে গা গরমের জন্য ফুটবল খেলা ক্রিকেটারদের চিরায়ত রীতি। সে রীতি মানেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররাও। কিন্তু মূল অনুশীলনের চেয়ে তারা বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন ফুটবলকে। যে কারণে নিজেদের সর্বনাশ ডেকে আনছেন তারা। পড়ছেন একের পর এক ইনজুরিতে। যার প্রভাব পড়ছে দলে। ঠিক তেমনটাই হয়েছে চলতি দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজেও।  দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে দ্বিতীয় ওয়ানডের আগে পার্লে টাইগার ক্রিকেটাররা নেমেছিলেন ফুটবল অনুশীলনে। সেখানেই ইনজুরির শিকার হন মোস্তাফিজ। যে কারণে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ থেকে ছিটকে পড়েন তারকা এ পেসার। যে কারণে ক্রিকেটারদের প্রতিদ্বদ্ধিতামূলক ফুটবল খেলতে না করেছেন বিসিবির চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘অনুশীলনের সময় আঘাত পাওয়াটা দুঃখজনক ব্যাপার। সারা বছর সে অনুশীলন করছে; কিন্তু জাতীয় দলের হয়ে যখন খেলতে নামবেঠিক তখন ইনজুরিতে পড়ছে।’ফুটবল অনুশীলনের সময় ক্রিকেটারদের মাথায় থাকে না এটা শুধুই অনুশীলন। যে কারণে তারা ইনজুরিতে পড়েন। যা তাদের মনঃসংযোগে প্রভাব ফেলে। একই সঙ্গে দলও পড়ছে বিপদে। এ থেকে বের হতে দেবাশীষ চৌধুরী বলেন, ‘অনুশীলনের সময় ক্রিকেটারদের মনে রাখতে হবে, আমরা ওয়ার্মআপের জন্য ফুটবল খেলছি, গোল দেয়ার জন্য নয়। কোনো প্রতিযোগিতা করা যাবে না। তারা যেটা করে, একজন বল নিয়ে সে পাস না দিয়ে পায়ের মধ্যে বল রেখে দিচ্ছে।’ক্রিকেটাররা নাকি ফুটবল পেলেই হয়ে পড়েন লিওনেল মেসি ও ম্যারাডোনা। যে কারণে নিজেদের মধ্যে তারা নিজেরাই জড়িয়ে পড়েন প্রতিদ্ব›িদ্বতায়। যা মোটেও অনুশীলনে কাম্য নয়। এ নিয়ে দেবাশীষ বলেন, ‘প্রতিদ্বদ্বতাপূর্ণ ফুটবলে কিন্তু কারোই ওয়ার্মআপ ঠিকমতো হচ্ছে না। নির্দেশনা সব সময়ই থাকে; কিন্তু বল পেলে তারা ম্যারাডোনা-মেসি হয়ে যায়।’দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের শুরুতেই ইনজুরিতে পড়েন তামিম ইকবাল। এরপর সৌম্য সরকার, মুশফিকুর রহিম, ইমরুল কায়েস ও মোস্তাফিজুর রহমান হাঁটেন সে পথেই। শেষ পর্যন্ত অন্যরা ইনজুরি থেকে সুস্থ হয়ে উঠলেও তামিম ও মোস্তাফিজকে ধরতে হয় দেশের বিমান। যা দলের পারফরম্যান্সে বিরূপ প্রভাব ফেলেছে। এখান থেকে বের হতে চেষ্টা করছে বাংলাদেশ। কিন্তু দলের সেরা দুই তারকার অনুপস্থিতিতে সেটা কতটুকু করতে পারবে সফরকারীরা তা হয়তো সময়ই বলবে।