সারা বাংলা

ফুলবাড়ীতে টানা বর্ষণে তলিয়ে গেছে ঘরবাড়ি

প্রতিনিধি, দিনাজপুর: দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে টানা বর্ষণ ও উজানের ঢলে শাখা যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে নি¤œাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। নদীপাড়ের গ্রামগুলোর বাড়িঘর পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় একাধিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আশ্রয় নিয়েছে অর্ধশত পরিবার। এছাড়া নদীতে বিলীন হতে শুরু করেছে ফসলি জমিও।

গতকাল সোমবার উপজেলার শিবনগর ইউনিয়নের রাজারামপুর ঘাটপাড়া গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে শাখা যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে, রাজারামপুর ঘাটপাড়া ও ভাটাপাড়ার অধিকাংশ বাড়িঘর রাস্তা-ঘাট পানিতে তলিয়ে গেছে। ভাটাপাড়া ও ঘাটপাড়ার অর্ধশত পরিবার আশ্রয় নিয়েছে ফুলবাড়ী শহীদ স্মৃতি আদর্শ ডিগ্রি কলেজ ও কলেজিয়েট উচ্চ বিদ্যালয়ে।

ঘাটপাড়া গ্রামের বাসিন্দারা বলেন, পানি বৃদ্ধি পাওয়া অব্যাহত থাকলে আর দু-একদিনের মধ্যে ওই এলাকার আরও বাড়িঘর পানির নিচে তলিয়ে যাবে।

এদিকে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় উপজেলার খয়েরবাড়ী ইউনিয়নের ফসলি জমি নদীতে চলে যেতে শুরু করেছে। খয়েরবাড়ী ইউনিয়নের কিসমত লালপুর গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে ইতোমধ্যে ১০ বিঘা জমি নদীতে ভেঙে পড়েছে।

কিসমত লালপুর গ্রামের মাসুদ রানা জানান, তাদের চার বিঘা জমির মধ্যে দুই বিঘার অধিক নদীতে ভেঙে পড়েছে। একইভাবে কিসমত লালপুর গ্রামের তরণীকান্ত, ভূপেন্দ্রনাথ এর জমিও নদীতে ভেঙে পড়েছে।

খয়েরবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান আবু তাহের মণ্ডল বলেন, গত ১০ বছরে প্রায় ৫০ বিঘা জমি নদীতে বিলীন হয়েছে। তার নিজের জমিও গেছে ১২ বিঘা।

নদীর পানি বৃদ্ধিতে একদিকে পানিবন্দি হয়ে পড়েছে উপজেলার বিভিন্ন অঞ্চলের শতাধিক পরিবার। অপরদিকে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে শীতকালীন সবজি ক্ষেতের।

এ বিষযে জানতে চাইলে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রুম্মান আক্তার বলেন, এ পর্যন্ত চার হেক্টর ফসলি জমি পানির নিচে তলিয়ে গেছে। তবে দু-একদিনের মধ্যে পানি নেমে গেলে ক্ষতির পরিমাণ কমে যাবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার খায়রুর আলম সুমন বলেন, পানিবন্দি হওয়া পরিবারের জন্য ত্রাণ কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। নদীভাঙনের বিষয়টি মন্ত্রণালয়কে অবহিত করা হয়েছে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..