শেষ পাতা

ফ্যাক্টরিং আমদানি-রফতানিকে আরও বেগবান করবে

বিআইবিএম ও এফসিআই’র যৌথ কর্মশালায় বক্তারা

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক ফ্যাক্টরিংয়ের ব্যবহার রফতানি কার্যক্রমকে আরও বেগবান করবে। পাশাপাশি স্থানীয় আমদানিকারকদের তুলনামূলক কম খরচে আমদানির সুযোগ করে দেবে। ফলে ফ্যাক্টরিং ব্যবহারে আমদানি এবং রফতানিকারক উভয়ই সুফল পাবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।
গতকাল সোমবার বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট (বিআইবিএম) এবং দি ফ্যাক্টরস চেইন ইন্টারন্যাশনাল (এফসিআই), নেদারল্যান্ডসের ফ্যাক্টরিং শীর্ষক কর্মশালায় বক্তারা এসব কথা বলেন। প্রসঙ্গত, ফ্যাক্টরিং ঋণপত্র বা এলসির একটি বিকল্প পদ্ধতি। বর্তমানে বিশ্বের অনেক দেশই আমদানি-রফতানি কার্যক্রম পরিচালনার ক্ষেত্রে এলসির পরিবর্তে ফ্যাক্টরিং সুবিধা নিচ্ছেন ব্যবসায়ীরা।
রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে অনুষ্ঠিত ওই কর্মশালায় প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর আহমেদ জামাল।
অনুষ্ঠানে আহমেদ জামাল বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংক অব্যাহতভাবে রফতানি এবং আমদানিকারকদের আর্থিক বা আনুষঙ্গিক অন্যান্য সেবা দিয়ে যাচ্ছে। ফ্যাক্টরিং ব্যবহারে আমদানি এবং রফতানিকারক উভয়ই সুফল পাবে। এসব দিক বিবেচনায় বাংলাদেশ ব্যাংক দুটি কমিটি গঠন করেছে। এর মধ্যে একটি কোর কমিটি এবং আরেকটি টেকনিক্যাল কমিটি। দুটি কমিটিই ফ্যাক্টরিংয়ের বিভিন্ন দিক বিশ্লেষণ করছে।
সভাপতির বক্তব্যে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক এবং বিআইবিএমের মহাপরিচালক মহা. নাজিমুদ্দিন বলেন, ‘ওপেন অ্যাকাউন্ট ট্রেডের নন এলসি মেথডে ব্যাংক এবং করপোরেট প্রতিষ্ঠানগুলো কিছু চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হচ্ছে। এসব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় ফ্যাক্টরিং গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স, বাংলাদেশ (এবিবি) লিমিটেডের চেয়ারম্যান এবং ঢাকা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ মাহবুবুর রহমান বলেন, অর্থনৈতিক কার্যক্রমে ফ্যাক্টরিং গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে। বিশেষ করে এসএমই খাত এক্ষেত্রে বিশেষ সুবিধা পেতে পারে।
স্বাগত বক্তব্যে এফসিআই’র সেক্রেটারি জেনারেল পিটার মুলরয় বলেন, ফ্যাক্টরিংয়ের ক্ষেত্রে ঝুঁকি সংক্রান্ত বিষয়ে এফসিআই বাংলাদেশে শিগগিরই একটি সেমিনারের আয়োজন করবে। ভবিষ্যতে এ বিষয়ে আরও কাজ করার প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।
কর্মশালায় আরও উপস্থিত ছিলেন পূবালী ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং বিআইবিএমের সুপারনিউমারারি অধ্যাপক হেলাল আহমদ চৌধুরী, বিআইবিএমের পরিচালক (গবেষণা, উন্নয়ন এবং কন্সালটেন্সি, প্রশাসন ও হিসাব) ড. প্রশান্ত কুমার ব্যানার্জ্জী, সোনালী ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক এসএ চৌধূরী, এফসিআই’র রিজনাল ডিরেক্টর লি কেং লিয়ন, ট্রেড উইন্ড জিএমবিএসইচের বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোহেল জালি, প্রীমাডলার অপারেশনস বাংলাদেশ লিমিটেডের নন-এক্সিকিউটিভ চেয়ারম্যান নাসের বখতিয়ার আহমেদ এবং ওয়েলস ফার্গো ব্যাংকের রিজনাল ট্রেড সেলস ম্যানেজার ভিভেক শর্মা। বাংলাদেশ ব্যাংকের সহযোগিতায় বিআইবিএম এবং এফসিআই যৌথভাবে ফ্যাক্টরিংবিষয়ক এ কর্মশালার আয়োজন করে। এতে পৃষ্ঠপোষকতা করেছে প্রীমা ডলার এবং ট্রেড উইন্ড জিবিএইচ।

সর্বশেষ..