বিশ্ব বাণিজ্য

ফ্রান্সকে ৩৫ কোটি ডলার জরিমানা দিতে রাজি এইচএসবিসি

শেয়ার বিজ ডেস্ক : হংকং অ্যান্ড সাংহাই ব্যাংকিং করপোরেশনের (এইচএসবিসি) বিরুদ্ধে ফ্রান্সে দীর্ঘদিন ধরে ফৌজদারি তদন্ত চলছে। প্রতিষ্ঠানটির সুইস প্রাইভেট ব্যাংকিং শাখার বিরুদ্ধে ফরাসি গ্রাহকদের কর ফাঁকিতে সহায়তার অভিযোগে এ তদন্ত চলছে। বিষয়টি নিষ্পত্তি করতে চায় ব্রিটেনভিত্তিক এ আর্থিক ও ব্যাংকিং সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানটি। এজন্য ফ্রান্স সরকারকে ৩৫ কোটি তিন লাখ ডলার জরিমানা দিতে সম্মত হয়েছে এইচএসবিসি। খবর বিবিসি।
২০০৬ ও ২০০৭ সালে ফ্রান্সের গ্রাহকদের কর ফাঁকির কর্মকাণ্ডে ব্যাংকটির সুইস শাখার সম্পৃক্ততার অভিযোগে আনুষ্ঠানিকভাবে ফৌজদারি তদন্তের মুখোমুখি হয় এইচএসবিসি। তদন্তের অংশ হিসেবে ২০১৫ সালের ফেব্রুয়ারিতে এইচএসবিসির প্রাইভেট ব্যাংকিং শাখায় সুইজারল্যান্ড কর্তৃপক্ষ তল্লাশি চালালে ইস্যুটি সবার সামনে আসে। ব্যাংকটির বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে, তারা মাদক, অস¿ ব্যবসা ও সন্¿াসী কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে অর্জিত অর্থ পাচারে গ্রাহকদের সহায়তা প্রদান করেছে।
তবে তদন্তের ওই সিদ্ধান্তকে ওই সময়ে আইনগতভাবে ভিত্তিহীন বলেছিল এইচএসবিসি। ব্যাংকটি জানিয়েছে, তারা এ তদন্তের বিরুদ্ধে আপিল এবং আত্মপক্ষ সমর্থনে লড়াই করবে। দুই বছর ধরে চলা তদন্তের বিষয়ে অবশেষে নিষ্পত্তিতে আসতে চায় প্রতিষ্ঠানটি। এজন্য ফ্রান্স সরকারকে ৩৫ কোটি ৩০ লাখ ডলার জরিমানা দেবে এইচএসবিসি।
এর আগে ইউবিএস ব্যাংক ২০১৪ সালে অর্থ পাচারের অভিযোগের ভিত্তিতে ফ্রান্সের তদন্তকারীদের এক দশমিক এক বিলিয়ন ইউরো জরিমানা দেওয়ার মাধ্যমে মামলা নিষ্পত্তি করতে বাধ্য হয়।
উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে বিশ্বজুড়ে ধনী ও প্রভাবশালী ব্যক্তিদের কর ফাঁকি দিতে সহযোগিতা করার অভিযোগ ওঠে এইচএসবিসির বিরুদ্ধে। বিশ্বজুড়ে ২০৩টি দেশের এক লাখ ছয় হাজার গ্রাহকের ব্যাংক হিসাবের তথ্য বিশ্লেষণে প্রতারণার প্রমাণ পাওয়া যায়। এর মধ্যে ব্রিটেনের এমন ব্যাংক হিসাবের সংখ্যা ছিল সাত হাজার।
অভিযোগ স্বীকার করে নিয়ে ওই সময়ে এইচএসবিসি কর্তৃপক্ষ বলেছিল, গ্রাহকের হিসাবের গোপনীয়তার সুযোগে কিছু ব্যক্তি অবৈধ লেনদেন করেছেন, সেজন্য এ ধরনের কর্মকাণ্ড বন্ধে হিসাব চালানোর মূল কাঠামোতে পরিবর্তন আনা হয়েছে। অবৈধ লেনদেনে জড়িত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ সব ধরনের সহযোগিতা করবে বলে জানায় প্রতিষ্ঠানটি। তবে অপরাধ স্বীকার ও জড়িত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার ঘোষণা দিয়েই পার পায়নি এইচএসবিসি। ফ্রান্স ছাড়াও যুক্তরাষ্ট্র, বেলজিয়াম ও আর্জেন্টিনাসহ আরও কয়েকটি দেশে কর দুর্নীতির অভিযোগে ব্যাংকটির বিরুদ্ধে তদন্ত পরিচালিত হয়েছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..