প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

বগুড়ায় পৃথক দুই মামলায় সাতজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

প্রতিনিধি, বগুড়া : বগুড়ায় দুই যুগ আগের দুইটি হত্যাকান্ডের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় রায় ঘোষনা করেছে আদালত। দুইটি হত্যা মামলায় সাতজনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালতের বিচারক। বুধবার দুপুরে বগুড়ার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত -২ ও ৩ এর বিচারক রায় ঘোষণা করেন।

আদালত সূত্রে জানাযায়, ১৯৯৮ সালের ২৮ অক্টোবর রাতে বগুড়ার শিবগঞ্জের বিল হামলা গ্রামের একটি চাতালের নৈশপ্রহরী আব্দুল জব্বারকে হত্যা করা হয়। স্থানীয় ওই চাতালে থাকা যন্ত্রপাতি লুটপাট করতে এ ঘটনা সংগঠিত হয়। পরবর্তীতে পুলিশ ওই ঘটনায় দায়ের করা মামলা তদন্ত শেষে ছয়জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন।

এ ঘটনায় দীর্ঘ ২৪ বছর পর ছয়জনকে যাবজ্জীন ও ৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেয় আদালত । অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত-৩ এর বিচারক রুবাইয়া ইয়াছমিন এ রায় ঘোষণা করেন।

মামলায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রাপ্তরা হলেন, আফজাল হোসেন তার ভাই জাহিদুল ইসলাম, সাইফুল আলম, গোলজার রহমান, আছমা বেগম ও আলম ফকির। এরমধ্যে আছমা বেগম ও আলম ফকির পলাতক আছেন। বাকিরা রায় ঘোষণার সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

অপরদিকে কাহালুর লক্ষীমণ্ডপ গ্রামে ১৯৯৬ সালের ৮ আগস্ট স্থানীয় পুকুর নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে মজিবর নামের এক কৃষককে মারপিটের পর কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এই ঘটনায় ১৯ জনকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করা হয়। পুলিশ পরে ১৮ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করেন৷ এরমধ্যে মামলা চলাকালীন সময়ে দু’জন মারা যান।

দীর্ঘ ২৬ বছর পর এ মামলায় তসলিম উদ্দিনকে (৭০) যাবজ্জীন কারাদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেয় আদালত। এছাড়াও মামলার অন্য ১৫ আসামীকে খালাস দেওয়া হয়। অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জল আদালত-২ এর বিচারক মুহাম্মাদ কামরুল হাসান রায় ঘোষণা করেন৷

বগুড়া আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডঃ বিনয় কুমার দাস বিশু বলেন, পৃথক দুই মামলায় সাতজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। এর মধ্য দিয়ে দীর্ঘ দুই যুগ পর হত্যাকাণ্ড দুইটির বিচার কার্য সম্পন্ন হয়েছে।