প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

বগুড়ায় ট্রাক্টর শ্রমিক ইউনিয়নের দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত সাত

 

বগুড়া ব্যুরো: বগুড়ার সান্তাহারে ট্রাক্টরচালক রেজাউল ইসলাম ও শ্রমিক আনোয়ার হোসেনের মধ্যে অপ্রীতিকর ঘটনার সালিশকে কেন্দ্রকে ট্রাক্টর শ্রমিক ইউনিয়নের দুই পক্ষের মধ্যে  রোববার সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন প্রায় সাতজন। এদের মধ্যে রাইস মিল চালক রশিদুল ইসলামকে হাসপাতালে ও শামীম নামের ট্রাক্টর শ্রমিককে ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় চালকল মালিক মতিউর রহমান আদমদীঘি থানায় অভিযোগ করেছেন।

জানা গেছে, শনিবার সান্তাহারে এক ট্রাক্টর চালক ও শ্রমিকের মধ্যে গামছার মালিকানা নিয়ে বস্চা ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার মীমাংসা করার জন্য শহরের হবির মোড়ে অবস্থিত বগুড়া জেলা ট্রাক্টর শ্রমিক ইউনিয়ন নেতারা রাত ৮টার দিকে, এলাকার একটি চালকলের অফিসে বৈঠকে বসে। বৈঠকে ট্রাক্টর শ্রমিক আনোয়ার দোষী সাবস্ত্য হন। এজন্য তাকে চড়থাপ্পড় মারা ও চালকের কাছে ক্ষমা চেয়ে বুকে বুক মেলানোর রায় দেওয়া হয়। রায় কার্যকর করার জন্য ওই সংগঠনের রোড় সেক্রেটারি রোস্তম আলীকে দায়িত্ব দেওয়া হয়। রায় কার্যকর হওয়ার পরই ওই সংগঠনের সাবেক কমিটির লোকজন ওই রায়ের বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে হট্টগোল শুরু করে। তারা সেখানে থাকা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি ভাঙচুর করে। এতে ওই চালকলের ম্যানেজার রুবেল, চালক রশিদুল ও মোকলেছ হট্টগোলকারীদের বাধা দেয়। ফলে হট্টগোলকারীরা আরও ক্ষিপ্ত হয়ে ওই তিনজনকে মারধর করে। এতে চালক রশিদুল গুরুত্বর আহত হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি ভাঙচুরের এখবর দ্রুত ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা মাসুদ রানার নেতৃত্বে বেশ কিছু নেতাকর্মী সেখানে গেলে শুরু হয় সংঘর্ষ। এতে দুই পক্ষে প্রায় সাতজন আহত হয়।