প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

বগুড়ায় হত্যার ১৪ বছর পর রায়, ৯ জনের যাবজ্জীবন

প্রতিনিধি,বগুড়া : বগুড়ায় জমি নিয়ে বিরোধে আব্দুল জব্বার (৬২) নামের এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে হত্যার ১৪ বছর রায় ঘোষনা করা হয়েছে। রায় ঘোষনায় ১৫ জন আসামীর মধ্যে ৯ জনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড এবং ৬ জনকে বেকসুর খালাস প্রদান করেছেন আদালত। যাজ্জীবন কারাদন্ড প্রাপ্ত ৯ জনের মধ্যে দুইজন পলাতক রয়েছেন।

বুধবার (৩ আগস্ট) দুপুরে বগুড়ার প্রথম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ হাবিবা মন্ডল রায় ঘোষনা করেন।

যাবজ্জীবন কারাদন্ড প্রাপ্তরা হচ্ছেন বগুড়া সদর উপজেলার চালিতাবাড়ি নগরকান্দি গ্রামের ইসমাইল হোসেন ওরফে ইউনুছ,তার দুই ছেলে জাকির মিয়া ও মাসুদ মিয়া। একই গ্রামের আব্দুল খালেক, ইনতাজ আলী, সুলতান মোল্লা,মানিক মিয়া ও আব্দুল গফুর। কারাদন্ড প্রাপ্ত ৯ জনের মধ্যে মানিক মিয়া ও আব্দুল গফুর রায় ঘোষনার সময় পলাতক ছিলেন।

মামলার বাদী মোহাম্মদ সাজু জানান, নিহত আব্দুল জব্বার তার বড় ভাই। আসামীদের সাথে জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলছিল। ২০০৮ সালের ২০ জুন দুপুরে শাখারিয়া ইউনিয়নের নুরইল বিল এলাকায় বিরোধপুর্ন জমি মাপজোক চলছিল। এসময় আসামীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে আব্দুল জব্বারকে কুপিয়ে হত্যা করে।

এঘটনায় সাজু বাদী হয়ে ১৫ জনের নামে বগুড়া সদর থানায় মামলা করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বগুড়া সদর থানার তৎকালীন উপ-পরিদর্শক (এসআই) শরিফুল আলম তদন্ত শেষে একই বছরের ৩০ নভেম্বর ১৫ জন আসামীকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন। এরপর দীর্ঘ শুনানী শেষে বুধবার রায় ঘোষনা করা হয়।

মামলাটি বাদী পক্ষে পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট নাসিমুল করিম হলি এবং আসামী পক্ষে ছিলে অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম মন্টু ও বিনয় কুমার দাস বিশু।