স্পোর্টস

বঙ্গবন্ধু বিপিএলের মাঠের লড়াই আজ থেকে

ক্রীড়া প্রতিবেদক: বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) পর্দা ওঠে গত রোববার। দুদিনের বিরতির পর আজ থেকে শুরু হচ্ছে এ টুর্নামেন্টের ময়দানী লড়াই। উদ্বোধনী দিনে দুটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে। দুপুর দেড়টায় চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স ও সিলেট থান্ডার্স মুখোমুখি হবে। এরপর ম্যাচে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় কুমিল্লা ওয়ারিয়র্সের বিপক্ষে খেলবে রংপুর রেঞ্জার্স।

বঙ্গবন্ধু বিপিএলের ময়দানী লড়াইয়ের আগে দলগুলো শেষবারের মতো নিজেদের ঝালিয়ে নেয় গতকাল। মিরপুর একাডেমি মাঠে এদিন সকাল থেকেই ব্যস্ত ছিলেন ক্রিকেটাররা।

নতুন আঙ্গিকের বিপিএল মাঠে গড়ানোর আগেই উদ্বোধনী ম্যাচ উত্তাপ ছড়াচ্ছে বেশ। যদিও আজ সিলেটের বিপক্ষে চট্টগ্রাম পাচ্ছে না অলরাউন্ডার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে। এদিকে ক্রিস গেইলও থাকছেন না। তারপরও বন্দর নগরীর দলটি চিন্তিত নয় খুব বেশি। কেননা তারা আস্থা রাখছেন ইমরুল কায়েস, নাসির হোসেন, রুবেল হোসেন, নুরুল হাসান সোহান, এনামুল হক জুনিয়র, মুক্তার আলী, পিনাক ঘোষ, নাসুম আহমেদ, জুনায়েদ সিদ্দিকী, কেসরিক উইলিয়ামস, আভিস্কা ফার্নান্দো, রায়াদ এমরিত, রায়ান ব্রায়ান ও ইমাদ ওয়াসিমের ওপর।

এদিকে তারকা খেলোয়াড় না থাকলেও আজ কোনোভাবেই চট্টগ্রামকে ছাড় দিতে চাইছে না সিলেট। কেননা দলটিতে রয়েছেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, মোহাম্মদ মিথুন, নাজমুল ইসলাম অপু, সোহাগ গাজী, রনি তালুকদার, নাঈম হাসান, দেলোয়ার হোসেন, মনির হোসেন খান, রুবেল মিয়া, শেরফেইন রাদারফোর্ড, শাফিকউল্লাহ শাফাক, নাভিন-উল হক, জনসন চার্লস ও জীবন মেন্ডিসের মতো ক্রিকেটাররা।

আজ থেকে শুরু হতে যাওয়া বিপিএলে সিলেটের জন্য অপেক্ষা করছে চ্যালেঞ্জ। ব্যাপারটি মানছেন অধিনায়ক মোসাদ্দেক হোসেন, ‘প্রথম থেকেই সবাই জানি এটা একটা চ্যালেঞ্জিং টুর্নামেন্ট। অধিনায়ক হিসেবে মনে করি, আমাদের দলের জন্যও চ্যালেঞ্জ অপেক্ষা করছে। আমরা জেতার জন্যই মাঠে নামব। জেতার চ্যালেঞ্জই আমার কাছে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। বিপিএল একটা বড় টুর্নামেন্ট। এখানে যারা খেলে সবাই অভিজ্ঞ, নিজের ভূমিকা সম্পর্কে সবাই জানে। সবাই সবার দায়িত্বটা বুঝে নিলে আমার জন্য কাজ করাটা সহজ হয়ে যাবে।’

এবারের বিপিএলে রংপুর খেলছে আফগানিস্তান অলরাউন্ডার মোহাম্মদ নবীর নেতৃত্বে। গতকাল সংবাদ সম্মেলনে তার দায়িত্ব বুঝিয়ে দেন দলটির কর্ণধাররা। এদিকে উত্তরবঙ্গের দলটিতে রয়েছেন মোস্তাফিজুর রহমান, নাঈম শেখ, আরাফাত সানি, জহুরুল ইসলাম, তাসকিন আহমেদ, জাকির হাসান, ফজলে মাহমুদ রাব্বী, নাদিফ চৌধুরী, সঞ্জিত সাহা, শাই হোপ, লুইস গ্রেগরি ও ক্যামেরন ডেলফোর্টের মতো ক্রিকেটাররা।

বিপিএলের নতুন আসর মাঠে গড়ানোর আগেই গতকাল রংপুরের অধিনায়ক মোহাম্মদ নবী তার দল নিয়ে সন্তুষ্টির কথা বলেছেন। তিনি এবার আস্থা রাখছেন মোস্তাফিজ-তাসকিনের ওপর, ‘তাসকিন-মোস্তাফিজকে একসঙ্গে পাওয়া আমাদের বোলিং সাইডের জন্য একটি ভালো সুবিধা। ওরা থাকায় আমাদের দল ভালো বোলিং শক্তি নিয়ে খেলতে পারবে। জুনাইদ খান সেও খুব ভালো। এটা একটা শক্তিশালী বোলিং সাইড। আমি কিছু রান বোর্ডে তুলতে চেষ্টা করব। এর সঙ্গে বোলিংটা ভালো করতে চেষ্টা করব। তাহলে আমরা ফলও পাব।’

রংপুরের চেয়ে কোনো অংশে কম নয় কুমিল্লা ওয়ারিয়র্স। দলটিতে রয়েছেন তারকা ক্রিকেটার সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান। এছাড়া আল-আমিন হোসেন, ইয়াসির আলী চৌধুরী, সাব্বির রহমান, সানজামুল ইসলাম, আবু হায়দার রনি, মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন, সুমন খান, ফারদিন হোসেন অনি, কুশল পেরেরা, মুজিব-উর রহমান, ডেভিড মালান ও দাসুন শানাকা। তাই নতুন আঙ্গিকের এ টুর্নামেন্টের দলটি চাইছে প্রতিপক্ষকে হারিয়ে শুরু করতে।

বিসিবি তত্ত্বাবধানে নতুনভাবে এবার হচ্ছে বিপিএল। বিভিন্ন লিগ ও জাতীয় দলের খেলায় ব্যস্ত থাকায় একসঙ্গে বেশি দিন অনুশীলনের সুযোগ পায়নি দলগুলো। তারপরও আসরে ভালো করতে প্রত্যয়ী সব দলের ক্রিকেটাররা।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..