দিনের খবর শেষ পাতা

বন্ড সুবিধায় আমদানিকৃত পণ্য অবৈধভাবে অপসারণ

সাইদ সবুজ, চট্টগ্রাম: ঝালকাঠির নলছিটির এসএম জহিরুল আলম। তিনি চট্টগ্রামের নিমলীতে মেসার্স ব্র্যান্ডন্যাশন লিমিটেড নামের একটি গার্মেন্ট ফ্যাক্টরি প্রতিষ্ঠা করেন। এটি রপ্তানিমুখী শিল্পপ্রতিষ্ঠান হিসেবে বন্ড সুবিধার আওতায় চট্টগ্রাম বন্ড কমিশনারেটে ২০১৮ সালে নিবন্ধিত হয়। প্রতিষ্ঠানটি এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে দুই বছরে ৪০টি চালান অবৈধভাবে অপসারণ করে প্রায় পাঁচ কোটি টাকা রাজস্ব ফাঁকি দিয়েছে। আর এই ফাঁকি আড়াল করতে লাইসেন্স গ্রহণের পর থেকে কোনো অডিটও করায়নি প্রতিষ্ঠানটি।

সূত্র জানায়, গত ১৩ এপ্রিল বন্ড সুবিধায় আমদানিকৃত ও স্থানীয়ভাবে সংগৃহীত অরপ্তানিকৃত কাঁচামাল ও পণ্য অবৈধভাবে অপসারণের কারণে প্রতিষ্ঠানটিকে সাড়ে পাঁচ কোটি টাকা জরিমানা আদায়ের দাবিনামা-সংবলিত কারণ দর্শানোর নোটিস জারি করে চট্টগ্রাম বন্ড কমিশনারেট।

চট্টগ্রাম বন্ড কমিশনার সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরের ১ ফেব্রুয়ারি ব্র্যান্ডন্যাশন লিমিটেডের লিয়েন ব্যাংক জনতা ব্যাংক লিমিটেড, শেখ মুজিব রোড করপোরেট শাখা চট্টগ্রামকে চিঠি দেয়া হয়। ওই চিঠিতে প্রতিষ্ঠানটির অরপ্তানিকৃত মালামালের ব্যাক টু ব্যাক এলসি (বিবিএলসি), প্রোফরমা ইনভয়েস (পিআই), বিল অব লেডিং ও বিল অব এন্ট্রি সরবরাহের জন্য বলা হয়। এর বিপরীতে ১১ ফেব্রুয়ারি জনতা ব্যাংক এক চিঠির মাধ্যমে চট্টগ্রাম বন্ড কমিশনারটকে জানায়, জনতা ব্যাংক লিমিটেডের মাধ্যমে ব্র্যান্ডন্যাশন লিমিটেড বন্ড সুবিধার আওতায় বিবিএলসির মাধ্যমে আমদানিকৃত কাঁচামাল (ফেব্রিক্স ও এক্সেসরিজ) সম্পূর্ণ রপ্তানি করা হয়নি। এছাড়া অরপ্তানিকৃত পণ্যগুলো প্রতিষ্ঠানের জিম্মায় রক্ষিত আছে বলে জনতা ব্যাংক লিমিটেডকে ৩০০ টাকার নন-জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে অঙ্গীকারনামা দাখিল করেছে।

এদিকে ব্যাংকের চিঠির তথ্যমতে, পণ্য যাচাই করতে চলতি বছরের ৩১ মার্চ প্রতিষ্ঠানটির চট্টগ্রাম আকবার শাহ থানার ফিরোজশাহ এলাকার গ্রিন টাওয়ারে অবস্থিত গুদাম সরেজমিনে পরিদর্শনে গেলে উল্লেখিত কোনো পণ্য পাওয়া যায়নি।

চট্টগ্রাম বন্ড কমিশনারেট কর্তৃপক্ষ জানান, ওই দিন আনুমানিক ১২টার দিকে বন্ড কমিশনারেটের কর্মকর্তা, চট্টগ্রাম বিকেএমইএ প্রতিনিধি উপ-সচিব (কমপ্লায়েন্স) মো. সোহেল, জনতা ব্যাংক শেখ মুজিব শাখার প্রতিনিধি ব্যবস্থাপক ফরেন এক্সেচেঞ্জ (এসপিও) হারুন আল রশিদ ও ভবন মালিকের ছেলে তানভির আহমেদের উপস্থিতিতে গুদাম পরিদর্শন করা হয়।

এ সময় ব্র্যান্ডন্যাশন লিমিটেডের সিলগালাকৃত তালা ভাঙার আগে প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. শায়েকুল মোমেনিন ইবনে কামালের সঙ্গে যোগাযোগ করতে তার মোবাইল ফোনে একাধিকবার ফোন করেন চট্টগ্রাম বন্ড কমিশনারেটের কর্মকর্তারা। কিন্তু তিনি ফোন রিসিভ করেননি। তার আগে গুদাম পরিদর্শনের খবর জানাতে প্রতিষ্ঠানটিতে গেলেও প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ পাওয়া যায়। ফলে সিলগালাকৃত তালা ভেঙে প্রতিষ্ঠানের অভ্যন্তরে প্রবেশ করে মেশিনারিজ ও অন্যান্য মালামাল ইনভেন্ট্রি করা হয়।

এ সময় দেখা যায়, ৫৮টি পুরনো সুইং মেশিন, ৯টি অন্যান্য পুরনো মেশিন, ৩৫ বস্তা ব্যবহার অনুপযোগী জুট ও ১৫ রোল ব্যবহার অনুপযোগী পেডিং (প্রতিরোলে আনুমানিক পাঁচ কেজি করে) পাওয়া যায়। তারপর ইনভেন্ট্রি কার্যক্রম শেষ করে সবার উপস্থিতিতে এবং যৌথ স্বাক্ষর নিয়ে গুদাম সিলগালা করা হয়। তবে ইনভেন্ট্রিতে ব্যাংকের দেয়া তথ্য অনুযায়ী আমদানিকারকের ৪০টি চালানের বিপরীতে ছয় কোটি ১৩ লাখ ২১ হাজার ৯২৩ টাকার পণ্য পাওয়া যায়নি, যার বিপরীতে পাঁচ কোটি ৪১ লাখ ৯০ হাজার ৯৬০ টাকার রাজস্ব জড়িত রয়েছে। এতে বোঝা যায়, আমদানিকারক অবৈধভাবে অপসারণের মাধ্যমে বন্ড সুবিধায় আমদানিকৃত সমস্ত পণ্য খোলা বাজারে বিক্রি করে দিয়েছে।

এদিকে ২০২০ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর প্রতিষ্ঠানটির বন্ড লাইসেন্স মেয়াদ দুই বছর শেষ হয়েছে। তারপর চলতি বছরের ২২ ফেব্রুয়ারির মধ্যে হালনাগাদ নিরীক্ষণ সম্পাদনের জন্য ১ ফেব্রুয়ারি প্রতিষ্ঠানটিকে চিঠি পাঠায় চট্টগ্রাম বন্ড কমিশনারেট। কিন্তু প্রতিষ্ঠানটি বার্ষিক নিরীক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় দলিলসহ কোনো আবেদন দাখিল করেনি। ফলে প্রতিষ্ঠানটি এসআরও’র বিধান ও লাইসেন্সিং কর্তৃক পালনীয় শর্তাবলি যথাযথভাবে পালন না করায় চলতি বছরের ২৮ মার্চ প্রতিষ্ঠানটির বন্ড লাইসেন্স সাময়িক স্থগিত করা হয়। একই সঙ্গে আমদানি কার্যক্রম বন্ধ করার জন্য বিন এবং জেনারেল অকার্যকর করা হয়।

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম বন্ড কমিশনার একেএম মাহবুবুর রহমান শেয়ার বিজকে বলেন, আমদানিকারক অবৈধ আপসারণের মাধ্যমে খোলা বাজারে পণ্য বিক্রি করে বন্ডেড ওয়্যারহাউস লাইসেন্সিং বিধিমালার শর্ত ভঙ্গ করেছে। একই সঙ্গে প্রতিষ্ঠানটি বন্ড লাইসেন্স গ্রহণের পর থেকে কোনো অডিট করায়নি। তাই প্রতিষ্ঠানটির বন্ড লাইসেন্স সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছে। একই সঙ্গে ছয় কোটি ১৩ লাখ টাকার পণ্য অবৈধ অপসারণ করে প্রায় সাড়ে পাঁচ কোটি টাকা রাজস্ব ফাঁকি দিয়েছে। তাই চলতি মাসের ১৩ তারিখে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে রাজস্ব ফাঁকির মামলা ও দাবিনামা জারি করা হয়েছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..